তিরন্দাজিতে ভারতের পদক-স্বপ্ন শেষ হল। শুক্রবার দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছে ৬-৪ সেট পয়েন্টে হেরে গেলেন বাংলার অতনু দাস। তবে ম্যাচটিতে আগাগোড়া হাড্ডাহাড্ডি লড়াই ছিল। সেয়ানে সেয়ানে টক্কর চলছিল দু’জনের মধ্যে। এটা বলাই যায় যে বৃষ্টিভেজা দিনে অতনুর দুর্ভাগ্যই তাঁকে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে দিল না।

আবার ব্যর্থ ভারতের শুটিং। ৫০ মিটার রাইফেল প্রোন ইভেন্টে ফাইনালের যোগ্যতা অর্জন করতে ব্যর্থ হলেন গগন নারাং আর চেইন সিং। যোগ্যতাঅর্জনকারী রাউন্ডে ১৩তম স্থানে শেষ করেন গগন আর চয়নের র‍্যাঙ্ক আরও খারাপ। তিনি শেষ করেন ৩৬ র‍্যাঙ্কে। স্কিটে ৭৫-এর মধ্যে ৭২ পেয়ে প্রথম দিনে দশম স্থান পেয়ে আশা জাগিয়ে রেখেছেন মাইরাজ আহমদ খান। আর ২৫মি র‍্যাপিড ফায়ার পিস্তলে ২৮৯ পেয়ে দশম হয়ে স্টেজ ১ শেষ করেছেন গুরপ্রীত সিং।

বৃহস্পতিবারের পর শুক্রবারও ব্যাডমিন্টনে হারলেন জ্বালা গুট্টা আর অশ্বিনী পোনাপ্পা জুটি। হল্যান্ডের প্রতিদ্বন্দ্বী জুটির বিরুদ্ধে তিন সেটের ম্যাচে হারেন তাঁরা। ভারতের পুরুষ জুটি সুমিত রেড্ডি ও মনু অত্রি স্ট্রেট সেটে চিনা জুটির কাছে হারলেন। পর পর দু’টি ম্যাচে হারলেন তাঁরা।

আথলেটিক্সে মহিলাদের শট পাটে ভারতের মনপ্রীত কৌর ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ। ফাইনালে উঠতে হলে তাঁকে অন্তত ১৮.৪০ মিটারের দুরত্ব রাখতে হত। কিন্তু তাঁর লোহার বলের দূরত্ব ছিল মাত্র ১৬.৭৬ মিটার। ছেলেদের ৮০০ মিটার দৌড়ে সেমিফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হলেন জিন্সন জন্সন। ডিসকাস থ্রো-এ বিকাশ গৌড় ২৮তম স্থান পেয়ে পরের রাউন্ডে যেতে পারলেন না। একই ব্যর্থতার কাহিনি পুরুষদের ২০ কিমি হাঁটার ফাইনালে। মনিশ সিং শেষ করলেন ত্রয়োদশ হয়ে। যে সময় করলেন তা তাঁর ব্যক্তিগত রেকর্ডেরও ধারেকাছে নয়। আর গণপতি কৃষ্ণন ও গুরমীত সিং তো ডিসকোয়ালিফায়েড হয়ে গেলেন।

কানাডার সঙ্গে ভারতের পুরুষ হকি দল ২-২ গোলে ড্র করেও কোয়ার্টার ফাইনালে গেল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here