ঢাকা: তাঁর দলের প্রতি অন্যায় করেছেন আম্পায়ার। সেই রাগে  গত মাসে ঢাকা দ্বিতীয় ডিভিশন ক্রিকেট লিগের এক ম্যাচে প্রথম ওভারের ৪ বলে ৯২ রান দেন লালমাটিয়া ক্লাবের সুজন মেহমুদ। তাঁকে ১০ বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। লালমাটিয়া ক্লাবকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য নির্বাসিত করা হয়েছে।ক্লাবের কোচ, ক্যাপ্টেন এবং ম্যানেজারকে ৫ বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে।বাংলাদেশ বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ওই বোলার এবং ক্লাব ক্রিকেটকে অসম্মানিত করেছিলেন, তাই এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হল।

আক্সিওম ক্লাবের বিরুদ্ধে ম্যাচটিতে চারটি বৈধ বল ছাড়া তেরোটি ওয়াইড এবং পনেরোটি নো-বল করে সুজন। তেরোটি ওয়াইডে ৬৫ রান দেয় সুজন। প্রতিটি ওয়াইড বলই পৌঁছে গিয়েছিল বাউন্ডারিতে। নো-বলে ওঠে ১৫ রান। বৈধ বলগুলিতে বাকি বারো রান তুলে নেয় আক্সিওম ক্লাবের ব্যাটসম্যান। লালমাটিয়ার খাড়া করা ৮৮ রানের টার্গেট, মাত্র চার বলেই তুলে নেয় আক্সিওম।

আরও পড়ুন: আম্পায়ারিং-এর প্রতিবাদ, চার বলে ৯২ রান দিল বোলার

লালমাটিয়া ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, আদনান রহমন দীপন বলেন, “টসের সময় থেকেই আমাদের বিপক্ষ দলের হয়ে পক্ষপাতিত্ব করে যাচ্ছিলেন আম্পায়ার। আমাদের অধিনায়ককে কয়েন দেখতে দেওয়া হয়নি। আমাদেরকে আগে ব্যাট করতে পাঠানো হয়, একাধিক সিদ্ধান্ত আমাদের বিরুদ্ধে দেওয়া হয়।” তিনি আরও যোগ করেন, “আমাদের দলের খেলোয়াড়রা সবাই তরুণ। এই অন্যায় তারা সহ্য করতে পারেনি, তাই এক ওভারেই ৯২ রান দিয়েছে।”

একই ধরনের কাণ্ড ঘটানোর জন্য তাসনিম হাসান নামে অপর এক বোলারকেও ১০ বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে এদিন। নির্বাসিত করা হয়েছে তার ক্লাব ফিয়ার ফাইটার-কেও।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here