অবশেষে ভারতে এসে টেস্ট খেলার আমন্ত্রণ পেল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সামনের বছরের ৮ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি হায়দরাবাদে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে এই টেস্ট ম্যাচটি।

২০০০ সালে টেস্ট খেলার মর্যাদা পাওয়ার পর এই প্রথম ভারতে টেস্ট সফর করবে বাংলাদেশ। এর আগে ২০০৬-এ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আর ২০১৬-এ টি-২০ বিশ্বকাপ খেলতে ভারতে আসে তারা। যদিও ঘরের মাঠে ভারতের বিরুদ্ধে আটটি টেস্ট খেলেছে ভারত তবুও এর আগে এক বারের জন্যও ভারতে আসার আমন্ত্রণ পায়নি বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অভিযোগ ছিল ভারত তাদের বিরুদ্ধে টেস্ট খেললে বিসিসিআই-এর আয় কম হবে, তাই ভারত বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায় না।

টেস্ট ম্যচটি ঘোষণা করার সময় বিসিসিআই সভাপতি অনুরাগ ঠাকুর জানান, “ভারত টেস্ট-খেলিয়ে দেশগুলির মধ্যে প্রথম সারির হওয়ায় আমাদের দায়িত্ব সব টেস্ট-খেলিয়ে দেশকে সমান সুযোগ দেওয়া। ঐতিহাসিক এই টেস্টটি খেলার জন্য বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি”।

ভারতের আমন্ত্রণ পেয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, “এটি একটি অত্যন্ত আনন্দের মুহূর্ত। দু’দেশের ক্রিকেটাররাই এই সুযোগটির জন্য অপেক্ষা করে আছে। গত কয়েক বছর ধরে ভারত আর বাংলাদেশের মধ্যে সীমিত ওভারের ক্রিকেট যে ভাবে আকর্ষণীয় হয়ে উঠছে তাতে আসন্ন টেস্ট ম্যাচটিও সমান আকর্ষণের কেন্দ্র হয়ে উঠবে, এই আশা রাখি”।

বেশ কয়েক মাস ধরেই জল্পনা চলছে যে ভারত বাংলাদেশের আসন্ন সিরিজটির নাম হবে দুর্জয়-গাঙ্গুলি ট্রফি। সরকারি ভাবে কিছু ঘোষণা করা না হলেও এই ব্যাপারে কথাবার্তা অনেকটাই এগিয়েছে। ২০০০ সালে টেস্ট খেলার মর্যাদা পাওয়ার পর বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ছিল ভারতের বিরুদ্ধে। সেই টেস্টে ভারতের হয়ে প্রথম অধিনায়কত্ব করেন সৌরভ গাঙ্গুলি আর সেই ম্যাচে বাংলাদেশের অধিনায়ক ছিলেন নৈমুর রহমন দুর্জয়। সতেরো বছর আগের ও পরের ঐতিহাসিক দু’টি মুহূর্তকে স্মরণীয় করে রাখতেই এমন চিন্তাভাবনা চলছে।        

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here