দিনভর নাটকের পর ঘোষণা: রবি প্রধান কোচ, জাহির বোলিং কোচ, রাহুল বিদেশে ব্যাটিং কনসালট্যান্ট

0
1366

মুম্বই: দিনভর নাটক। সব শেষে মঙ্গলবার প্রায় মধ্য রাতে বিসিসিআই-এর ঘোষণা, ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হলেন রবি শাস্ত্রী। তবে সৌরভ-সচিন-লক্ষ্মণের সিএসি (ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি) শাস্ত্রীর সঙ্গে জুড়ে দিয়েছে আরও দু’ জনকে — জাহির খান ও রাহুল দ্রাবিড়। জাহিরকে করা হয়েছে বোলিং কোচ, রাহুলকে ভারতীয় দলের বিদেশ সফরে ব্যাটিং কনসালট্যান্ট। মঙ্গলবার রাত ১১টা নাগাদ বিসিসিআই-এর তরফে ই-মেল করে এই নিয়োগ ঘোষণা করা হয়েছে।

সোম ও মঙ্গলবার সারা দিন ধরে ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ নিয়ে যা চলল, তাকে কুনাট্য বললেও কম বলা হয়। সোমবার দীর্ঘ সময় ধরে পাঁচ আবেদনকারীর ইন্টারভিউ নেন সৌরভ-সচিন-লক্ষ্মণের কমিটি। কিন্তু তার পরেও সিদ্ধান্ত ঝুলিয়ে রাখা হয়। কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, বিরাট দেশে ফিরলে তাঁর সঙ্গে আলোচনা করে কোচের নাম জানানো হবে। তার পরই দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। সমালোচনার জেরে আদালত নিযুক্ত বোর্ডের প্রশাসক কমিটির প্রধান বিনোদ রাই বিসিসিআই-কে মঙ্গলবার সকালে নির্দেশ দেন, বিকেলের মধ্যেই কোচের নাম জানাতে হবে। বিকেলে মিডিয়ায় খবর ছড়িয়ে পড়ে ২০১৯-এর বিশ্বকাপ পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ নিযুক্ত হয়েছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক রবি শাস্ত্রী। কিন্তু তার পরই কহানি মে টুইস্ট। বিসিসিআই সচিব অমিতাভ চৌধুরী জানিয়ে দেন, শাস্ত্রীর কোচ হওয়ার খবর ঠিক নয়। সৌরভ-সচিনদের ক্রিকেট পরামর্শদাতা কমিটি এখনও এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি।

কিন্তু প্রায় মধ্য রাতে আবার কহানি মে টুইস্ট। বিসিসিআই-এর ই-মেল এবং শাস্ত্রীদের নাম ঘোষণা। তবে ক্রিকেট-রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত অনেকেই মনে করেন, এটা সৌরভের একটা মাস্টারস্ট্রোক। ভারতীয় দলের কোচ হিসাবে নিরঙ্কুশ ক্ষমতা দেওয়া হল না রবিকে। দলের সব ব্যাপারে রবি খোলা মনে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না। তাঁর ক্ষমতার রাশ টেনে রাখার জন্য সৌরভ তাঁর সমসাময়িক দু’ জন, জাহির ও রাহুলকে জুড়ে দিলেন টিমে।

আরও পড়ুন: কোচ-রঙ্গ জমজমাট, বিসিসিআই-কে মঙ্গলবারই নাম জানাতে বলল প্রশাসকরা

গত বছরও কোচ পদের জন্য আবেদন করেছিলেন শাস্ত্রী। কিন্তু সৌরভরা বেছে নিয়েছিলেন কুম্বলেকে। তার পরই সৌরভ ও শাস্ত্রীর ব্যক্তিত্বের সংঘাত সামনে আসে। অন্য দিকে কোচ হিসেবে বরাবরই বিরাটের পছন্দ ছিলেন রবি। অল্প সময়ের দায়িত্বে কোচ হিসেবে শাস্ত্রীর রেকর্ডও যথেষ্ট ভালো। কুম্বলের সঙ্গে সঙ্গে বিরাটের সংঘাতের জেরে কুম্বলের পদত্যাগের পর ফের শাস্ত্রীর নাম সামনে আসে। কিন্তু শাস্ত্রী আবেদন করেননি। পরে কোচ পদে আবেদনের সময়সীমা বাড়তে তিনি আবেদন করেন। তাঁর প্রতিযোগী ছিলেন সহবাগ, রাজপুত, মুডি, পাইবাস। ইন্টারভিউতে শাস্ত্রী ও মুডির প্রেজেন্টেশন পছন্দও হয় সৌরভদের। কিন্তু সহবাগকে কোচ করার ব্যাপারে চাপ ছিল প্রভাবশালী রাজনৈতিক মহলের। মনে করা হচ্ছে, তার জেরেই কোচের নাম ঘোষণা স্থগিত রাখা হয়েছিল।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here