কনফেডারেশন কাপ: অভিজ্ঞ চিলে-কে রুখে দিল তরুণ জার্মান ব্রিগেড

0
616

চিলি – ১ (স্যাঞ্চেজ)   জার্মানি – ১ (স্টিন্ডল)

সানি চক্রবর্তী: প্রথমার্ধটা যদি হয় চিলের, দ্বিতীয়ার্ধ তাহলে জার্মানির। প্রথমার্ধ উপহার দিল আক্রমণাত্মক বক্স টু বক্স ফুটবল। দ্বিতীয়ার্ধে যেন দুদলেরই অনেকটা সাবধানী ফুটবল। যেন ১ পয়েন্ট নিয়েই খুশি দুপক্ষই।

শুরু থেকে যদিও চিলের একের পর এক আক্রমণে নাস্তানাবুদ হয়েছে জার্মানি। দ্রুত গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়ে তারা। তরুণ জার্মান ব্রিগেডের উপর প্রথম মিনিট থেকে চাপ বজায় রেখেছিল চিলে। প্রথমার্ধের একেবারে শেষলগ্নে গোলশোধ করে জার্মানি। দ্বিতীয়ার্ধে সেভাবে উল্লেখযোগ্য কোনো মুহূর্ত নেই। তাই ম্যাচের শেষে বলা জয় নৈতিক জয় জার্মানির। অভিজ্ঞ চিলেকে রুখে দিল তারা। ফিফা ক্রমতালিকায় এখন ৪ নম্বরে কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়নরা। আর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি ৩ নম্বরে। তবে এই জার্মান দলটা মূলদলের ভবিষ্যত সাপ্লাই লাইন, বলা ভালো রিজার্ভ দল। তাই মরিয়া লড়াই ও জোয়াকিম লো-র পেপটকে দ্বিতীয়ার্ধে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে ১ পয়েন্ট ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য তরুণ জার্মানি শিবিরেরই বাহবা প্রাপ্য।

ম্যাচ শুরুর ৬ মিনিটের মধ্যেই আর্সেনালের সতীর্থ শাখোরড্রান মুস্তাফির ভুলে চিলেকে এগিয়ে দিয়েছিলেন অ্যালেক্সি স্যাঞ্চেজ। আক্রমণের চাপ বাড়িয়ে মুস্তাফিকে সামনে বাজে ক্লিয়ারেন্সে বাধ্য করান ভিদাল-স্যাঞ্চেজ। তাদের দুজনের যুগলবন্দিতেই মার্ক টের স্টেগেনকে পরাস্ত করে স্যাঞ্চেজের ৩৮ তম আন্তর্জাতিক গোল। ১১৩তম আন্তর্জাতিক ম্যাচে এই গোলের জেরে মার্সেলো সালাসকে টপকে চিলির সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার তকমাটাও পেয়ে গেলেন স্যাঞ্চেজ। রেকর্ডের খাতা আরও ভরানোর সুযোগ থাকলেও সেটা যদিও করতে পারেননি তিনি। তবে স্যাঞ্চেজের গোলের কিছুক্ষণের মধ্যেই এডুয়ার্ডো ভার্গাসের প্রয়াস আর সামান্য নীচে থাকলে কনফেডারেশনস কাপের এই ম্যাচের ফল ভিন্ন হত। ভার্গাসের শট স্টেগেনকে পরাস্ত করলেও ক্রসপিসে লেগে ফিরে আসে। প্রথমার্ধের শেষলগ্ন পর্যন্ত চিলির গোলের ১৮ গজের মধ্যে মাত্র দুবার বল নিয়ে ঢুকতে পেরেছিল জার্মানি। বরং সেই সময়ে একের পর এক আক্রমণ শানিয়ে গোলের ক্রমাগত খোঁজ করছিল চিলে। এরকম পরিস্থিতিতেই পালটা আক্রমণে জার্মানির গোল শোধ। একেবারে বাঁধিয়ে রাখার মতো প্রতি আক্রমণের গোল বললেও হয়তো বেশি বলা হয় না। নিজেদের বক্সের ঠিক বাইরে থেকে দ্রুত গতিতে দৌড় শুরু করেন এমরি চ্যান। সেখান থেকে ডিফেন্স চেরা ক্রসে বাঁ প্রান্তে হেক্টরকে খুঁজে নেয় তার মাপা পাস। চলতি বলেই ঠিকানা লেখা ক্রস বাড়ান হেক্টর। পুরো শরীর ছুঁড়ে দিয়ে ডান পায়ের টাচে জার্মানির পক্ষে সমতা ফেরান লার্স স্টিন্ডল।

কনফেডারেশনস কাপের ২ ম্যাচে ২ টি গোল করা হয়ে গেল স্টিন্ডলের। বরুশিয়া মুনচেনগ্লাডবাখের এই আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার ইতিমধ্যে নজর কেড়েছেন। এই ম্যাচ ড্র হওয়ায় চিলে ও জার্মানি দুই দেশই ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ শীর্ষে রইল(গোলপার্থক্যে এগিয়ে চিলি)। গ্রুপের অপর ম্যাচে ক্যামেরুন-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচও শেষ হয়েছে ১-১ ব্যবধানে। তাই শেষপর্বর লড়াইয়ের পরেই গ্রুপ বি-র দুই সেমিফাইনালিস্ট ঠিক হবে। অবশ্যই বর্তমান পরিস্থিতিতে, সেই দুই স্থানের দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে চিলে ও জার্মানিই।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here