খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডে পৌঁছে কোয়ারান্টাইনের নিয়ম ভাঙার কারণে ইতিমধ্যেই চরম সতর্কতার মধ্যে রয়েছে গোটা পাকিস্তান ক্রিকেট দল। সে দেশের সরকার জানিয়ে দিয়েছে এই নিয়ম আর একবার ভাঙলে গোটা দলকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

এই সতর্কতার মধ্যে দলের জন্য আরও খারাপ খবর হল ৭ ক্রিকেটারের কোভিডে আক্রান্ত হওয়া। দু’ দিন আগেই ছ’ জন ক্রিকেটারের কোভিড পজিটিভ হওয়ার খবর জানিয়েছিল নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। শনিবার সেই তালিকায় সংযোজিত হলেন আরও একজন। তবে কারও নামই প্রকাশ করা হয়নি।

এর পরেই প্রশ্ন উঠছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড এবং সরকারের ভূমিকা নিয়ে। নিউজিল্যান্ডের বিমানে ওঠার আগে প্রস্তুতিশিবির করে পাকিস্তান। জৈব সুরক্ষাবলয় তৈরি করা হয়। সেখানে নিউজিল্যান্ডগামী সব ক্রিকেটারের কোভিড টেস্ট হয়। ফল নেগেটিভ আসার পরেই নিউজিল্যান্ডের বিমানে ওঠার ছাড়পত্র মেলে।

কিন্তু কিউয়িদের দেশে পৌঁছে ক্রাইস্টচার্চ বিমানবন্দরে সবার এক দফা কোভিড টেস্ট হয়। তাতেই দেখা যায় যে ছ’জন ক্রিকেটার আক্রান্ত। পরে পজিটিভ হন আরও একজন।

মনে করা হচ্ছে, ক্রিকেটাররা নিউজিল্যান্ডগামী বিমানেই সম্ভবত অন্য যাত্রীদের সঙ্গে মেলামেশা করেছেন। তাতেই কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন অনেকে।

এ দিকে অভিযোগ, ক্রাইস্টচার্চে পৌঁছে কোয়ারান্টাইনের নিয়ম পালন করেননি পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা। অনেকেই শারীরিক দূরত্ববিধি শিকেয় তুলে খোলামেলা ভাবেই মেলামেশা করেছেন। এতেই ক্ষুব্ধ নিউজিল্যান্ড সরকার। সব মিলিয়ে ১৮ ডিসেম্বর পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড সিরিজের প্রথম ম্যাচ আদৌ হবে কি না, সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

সিডনির মাঠে ঢুকে আদানির কয়লাখনি নিয়ে প্রতিবাদ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন