জুটিতে লুটলেন এলগার-ডে কক, তবুও দিনের শেষে চালকের আসনে ভারত

0

ভারত: ৫০২-৭

সাউথ আফ্রিকা ৩৮৫-৮ (এলগার ১৬০, ডে কক ১১০, অশ্বিন ৫-১২৮)

বিশাখাপত্তনম: দুর্ধর্ষ বল করলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তন করেই নিলেন পাঁচটা উইকেট। তৃতীয় দিনের খেলার শেষে চালকের আসনে ভারতও। তবুও এ দিন শিরোনামে থাকলেন সাউথ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা।

আরও পরিষ্কার করে বললে ডিন এলগার এবং কুইন্টন ডে কক। আর কিছুটা হলেও অধিনায়ক ফাফ দু’প্লেসি।

এই তিন ব্যাটসম্যানের সৌজন্যে তৃতীয় দিনের খেলার শেষে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে প্রোটিয়া শিবির। কারণ ফলোঅনটা তো করতে হচ্ছে না।

দিনের শুরুটা হয়েছিল ভারতের পক্ষেই। এ দিন খেলা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই বাভুমাকে ফিরিয়ে দেন ইশান্ত। ৬৪ রানের মধ্যে চার উইকেট হারিয়ে সাউথ আফ্রিকা তখন রীতিমতো ধুঁকছে।

ফাফ দু’প্লেসি আসার পর কিছুটা থিতু হয় সাউথ আফ্রিকা। তবে অর্ধশতরান করে ফাফ প্যাভিলিয়নের মুখে দেখার পরেও কোনো ভাবেই স্বস্তি ছিল না সাউথ আফ্রিকা শিবিরে। এর পরেই কার্যত রূপকথা লিখতে শুরু করল সাউথ আফ্রিকা।

অনবদ্য একটা জুটির মধ্যে দিয়ে ভারতীয় স্পিনারদের ওপরে রীতিমতো দাদাগিরি চালিয়ে গেলেন এলগার আর ডে কক। অশ্বিন-জাদেজার ঘূর্ণি আর হনুমার পার্ট টাইম স্পিনকে সাবলীল ভাবে সামলানোর মধ্যে দিয়ে প্রমাণ, যথেষ্ট হোমওয়ার্ক করে এসেছে দু’প্লেসির দল।

এলগার আর ডে ককের ১৬৪ রানের অনবদ্য জুটির সামনে কালঘাম ছুটে গেল ভারতীয় স্পিনারদের। শতরান পেরিয়ে নিজের ইনিংসকে আরও অনেকটাই এগিয়ে নিয়ে গেলেন এলগার। আর অন্য দিকে ঝোড়ো একটা ইনিংস খেলে ১০০-এর মুখ দেখেন ডে কক।

আরও পড়ুন রাবিশ! ইমরান খানকে তুলোধনা সৌরভের

এই জুটির তাণ্ডবের সামনে একটা সময় এমনও মনে হয়েছিল যে ভারত সম্ভবত লিড ধরে রাখতে পারবে না। কিন্তু সেটা যে হল না তার কৃতিত্ব অশ্বিনের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে ভারতীয় দলে জায়গা তাঁর হয়নি শুধুমাত্র জাদেজার কাছে অলরাউন্ডারের দক্ষতায় হেরে যাওয়ায়। সে নিয়ে তাঁর মনে কোনো চাপা ক্ষোভ ছিল কি না, তা জানা নেই, কিন্তু প্রথম সুযোগকে কাজে লাগানোর যে জেদ অশ্বিনের মধ্যে চেপেছিল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

সেটাই হল। আটটার মধ্যে পাঁচটা উইকেটই তাঁর। সুযোগ রয়েছে আরও দু’টো উইকেট নিয়ে নেওয়ার। তবে সেই সঙ্গে এ-ও বোঝা গেল সাউথ আফ্রিকাকে একদম হালকা ভাবে নিলে ভালো রকম ভুগতে হবে বিরাটবাহিনীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here