খবরঅনলাইন ডেস্ক: ডিএলএস নিয়ে নাটক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এ রকম ঘটনা আগে ঘটেছে বলে মনে পড়ছে না কোনো ক্রীড়াবিদের। ঠিক কত রান তাড়া করতে হবে তা পরিষ্কার করে বোঝা গেল বাংলাদেশ ইনিংস শুরু করে দেওয়ার পরে। এমনটাই ঘটল নেপিয়ারে অনুষ্ঠিত নিউজিল্যান্ড বনাম বাংলাদেশের দ্বিতীয় টি২০ ম্যাচে।

১৭.৫ ওভার ব্যাট করার পরে নিউজিল্যান্ডকে থেমে যেতে হয় বৃষ্টির কারণে। ততক্ষণে তাদের স্কোরবোর্ডে রান ৫ উইকেটে ১৭৩। খেলা বৃষ্টির জন্য বেশ কিছুক্ষণ বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশ খেলতে নামে। তারা জানত ডিএলএস পদ্ধতির হিসাবে তাদের ১৬ ওভারে ১৪৮ রান তুলতে হবে। ম্যাকলিয়ন পার্কের বিশাল স্ক্রিন, অফিসিয়াল ব্ল্যাকক্যাপস টুইটার হ্যান্ডেলে এবং আইসিসি ওয়েবসাইটে টার্গেট হিসাবে এই স্কোরই দেখিয়েছিল।

একটু পরেই খেলা বন্ধ করে দেন ম্যাচ আধিকারিকরা। ততক্ষণে বাংলাদেশের ৯ বল খেলা হয়ে গিয়েছে। খেলা বন্ধ হওয়ার একটু আগে দেখা যায় বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো এবং দলের ম্যানেজার সব্বির খানকে দেখা যায় ম্যাচ রেফারি জেফ রেফারির সঙ্গে কথা বলতে। মাঠের আম্পায়াররা দুই দলকে জানান, বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা ১৭০ রান। সংশোধিত টার্গেট জেনে আবার খেলতে শুরু করে বাংলাদেশ।

কিন্তু এই টার্গেটও চূড়ান্ত ছিল না। ১৩ ওভারের পরে আবার জানিয়ে দেওয়া হয় টার্গেট ১৭০ নয়, ১৭১। যা-ই হোক, নির্ধারিত ১৬ ওভারে বাংলাদেশ করে ৭ উইকেটে ১৪২ রান। টার্গেট থেকে ২৮ রান কম। ইনিংসের শুরুতে বাংলাদেশকে টিমকে ভুল টার্গেট জানানো হয়েছিল কি না, তা পরিষ্কার নয়।     

কেন এই বিভ্রান্তি? আইসিসি-র এক মুখপাত্র ইএসপিএনক্রিকইনফোকে বলেন, “মাঠে একটা অপারেশনাল ইস্যু ছিল, যার অর্থ দুই দলের হাতে ডিএলএসশিট তুলে দেওয়া যায়নি।” তিনি বলেন, “ইনিংস শুরু হওয়ার আগে টার্গেট স্কোর মৌখিক ভাবে আম্পায়ারদের জানানো হয়েছিল। দুই দল ডিএলএস শিটের জন্য অনুরোধ করলে ১.৩ ওভারের পর খেলা থামিয়ে দেওয়া হয়। দলদুটির হাতে ডিএলএস শিট তুলে দেওয়ার পরে খেলা ফের শুরু হয়।”

আরও পড়ুন: Road Safety World Series: সচিন, ইউসুফ, বদরীনাথের পর আরও এক ভারতীয় করোনা পজিটিভ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন