ওয়েবডেস্ক: বিসিসিআই মুখে বলছে ‘ কোনো দ্বন্দ্ব নেই। সবটাই গণমাধ্যমের তৈরি’। কিন্তু বাস্তবে ভারতীয় বোর্ড অত্যন্ত চিন্তিত বারতীয় দলের দুই ব্যাটিং পাওয়ার হাউজের সম্পর্কের শীতলতা নিয়ে। আজকের তারকাদের সমর্থক-গোষ্ঠীগুলি অত্যন্ত শক্তিশালী হয় এবং তারা সমাজ-মাধ্যমে অত্যন্ত সক্রিয়। ফলে এই তাদের মধ্যে লড়াইয়ের জেরে দুই তারকার দ্বন্দ্ব বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়ে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা করছে বোর্ড।

এই পরিস্থিতিতে প্রাথমিক ভাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে ভারত অধিনায়কের সাংবাদিক বৈঠক বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিসিসিআই। বিতর্ক হওয়ায় শেষ অবধি সাংবাদিক বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সোমবার রাতেই ফ্লোরিডা উড়ে যাচ্ছে ভারতীয় দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রথম দুটি ওয়ান ডে সেখানেই খেলা হবে। কোচ রবি শাস্ত্রী যাবেন দুদিন পর। তারপরই সেখানে পৌঁছবেন বিসিসিআই-এর সিইও রাহুল জোহরি। দুই মহাতারকার সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। কথা বলবেন কোচ শাস্ত্রীর সঙ্গেও। কারণ ধোনির থেকে বিরাটের হাতে অধিনায়কত্ব যাওয়ার পর্যায়টা তিনি কাছ থেকে দেখেছিলেন। রোহিত-বিরাট দ্বন্দ্ব মেটাতে তাই শাস্ত্রীর সাহায্য চাইবে বিসিসিআই।

অধিনায়ককে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানোর ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা দেওয়া থেকেই ওই দ্বন্দ্বের শুরু। বিশ্বকাপে ভারতের বিদায়ের পর সেই দ্ব্ন্দ্ব তীব্র হয়। অনুষ্কাকে টুইটারে আনফলো করেন রোহিত। তিন ধরনের ক্রিকেটে বিরাট ও রোহিতের মধ্যে অধিনায়কত্ব ভাগ করে দেওয়ারও হাওয়া ওঠে। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি জটিল হয়। দুই তারকার কেউই এ নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বিরাটকেই সম্পূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তবে যেহেতু পনেরো মাস পরেই টি-টোয়েন্ট বিশ্বকাপ। তাই সাদা বলের ক্রিকেটে বিরাটের অধিনায়কত্বের ওপর কড়া নজর রাখা হবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন