ওয়েবডেস্ক: বিসিসিআই একটি স্বশাসিত সংস্থা, তাই কোনো ভাবেই বিশ্ব ডোপিং বিরোধী সংস্থা (ওয়াডা) এবং জাতীয় ডোপিং বিরোধী সংস্থার (নাডা) নিয়মকানুন মানা সম্ভব নয়। শুক্রবার এমনই জানিয়ে দিল তারা।

নাডা এবং কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রকের উদ্দেশে এ দিন দু’টো পৃথক চিঠি প্রকাশ করে বিসিসিআই। সেখানে তারা জানিয়ে দেয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) অনুমোদিত হওয়ায় বিসিসিআই শুধুমাত্র ডোপিং নিয়ে আইসিসির তৈরি নিয়মকানুন, ‘আইসিসি কোড’ মানে। আইসিসি কোড যে ওয়াডার অনুকরণেই তৈরি, সে কথাও জানিয়ে দেয় তারা।

বিসিসিআইকে ওয়াডার আওতায় আনার জন্য নাডা এবং ক্রীড়া মন্ত্রকের তরফ থেকে প্রবল চাপ ছিল। চিঠিতে বিসিসিআই জানিয়েছে, আইসিসির ডোপ পরীক্ষার পদ্ধতি যথেষ্ট মজবুত। ওয়াডা স্বীকৃত ল্যাবরেটরিতেই যে খেলোয়াড়দের রক্তের নমুনা পাঠানো হয়, সে কথাও জানিয়ে দেয় তারা।

উল্লেখ্য, ভারতের ক্রিকেটারদের তাদের আওতায় না আনতে পারলে ওয়াডার অনুমোদন হারাতে পারে তারা, এই ব্যাপারে নাডাকে সতর্ক করে দিয়েছিল ওয়াডা। সেই জন্যই বিসিসিআইয়ের ওপরে চাপ সৃষ্টি করেছিল নাডা। কিন্তু নাডার চাপের কাছে তারা যে নতিস্বীকার করবে না, এ দিন তা সাফ জানিয়ে দিল বিসিসিআই।

বিসিসিআই আরও জানিয়েছে যে ২০১৩ থেকে সব ক’টি ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে সব থেকে বেশি ডোপ পরীক্ষার আয়োজন করে বিসিসিআই, এমনই জানিয়েছে তারা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here