cricket association of bengal

নয়াদিল্লি: একেই বলে তীরে এসে তরী ডোবা। পাটা উইকেটে প্রাথমিক কাজটা সেরেই ফেলেছিলেন বাংলার বোলাররা। কিন্তু সাত নম্বর ব্যাটসম্যানের ইস্পাত কঠিন লড়াইয়ের সামনে হার মানল বাংলা। ছ’পয়েন্ট নয়, তিনেই সন্তুষ্ট থাকতে হল মনোজ শিবিরকে।

অথচ দিনটা শুরু হয়েছিল অন্য রকম ভাবে। জেতার একটা তাগিদ চোখে পড়ছিল বাংলার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে। তাই মাত্র বারো ওভার ব্যাট করেই ৮৪ রান তুলে ফেলে বঙ্গ-ব্যাটাররা। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান রমন এবং ঈশ্বরণকে হারালেও আগ্রাসী ঢঙে ব্যাট করেন সুদীপ (১৪ বলে ১৯), মনোজ (২৫ বলে ২২) এবং ঋদ্ধি (১০ বলে ১৫)। সার্ভিসেসকে ৩৫৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা দিয়ে দান ছেড়ে দেয় বাংলা।

পাটা উইকেটে বিপক্ষকে অল আউট করতে হলে অসাধারণ বোলিং পারফরমেন্স দেখানো দরকার ছিল বাংলার। শুরুতে সেটা হয়েও ছিল। শামি, কনিষ্ক শেঠ এবং গোনির সৌজন্যে তিরিশ ওভারেই তিন উইকেট যায় সার্ভিসেসের। এর পর ৪৩ ওভারে যখন বিপক্ষের পঞ্চম উইকেটটি পড়ে তখন জয়ের স্বপ্ন দেখা শুরু করে দিয়েছে বাংলা। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ান খালিদ আহমেদ। ৯৯ বল খেলে মাত্র ন’রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। চার নম্বরে নামা বিকাশ হাটওয়ালার সঙ্গে দুরন্ত পার্টনারশিপে বাংলার জয়ের সব স্বপ্ন ভেঙে দেন খালিদ।

দিনের শেষের দিকে দু’টি উইকেট পেলেও, ততক্ষণে জয়ের আশা সব শেষ। গত বেশ কয়েক বছরের ইতিহাসে দেখা যাচ্ছে প্রতিপক্ষকে প্রবল চাপে ফেলেও, শেষ রক্ষা আর হচ্ছে না বাংলা শিবিরের। রঞ্জি ট্রফিতে বাংলাকে এগোতে হলে ‘তরী ডোবা’টা যে বন্ধ করতে হবে তা বলাই বাহুল্য।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here