Connect with us

ক্রিকেট

‘নিরাপদ’ শহর কলকাতায় সিএবির ব্যবস্থাপনায় খুশি, বাড়ি ফেরার আগে জানাল ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা

Published

on

খবর অনলাইনডেস্ক: ধরমশালা থেকেই বাড়ি ফিরতে হত তাদের। কারণ সিরিজ বাতিল হয়ে গিয়েছে। কিন্তু কোন শহর থেকে বাড়ির বিমান ধরবে, সেই নিয়ে চিন্তাভাবনা ছিল সাউথ আফ্রিকার (Cricket South Africa) ক্রিকেটারদের মধ্যে। দিল্লি থেকে সাউথ আফ্রিকার সরাসরি বিমান পাওয়া গেলেও সেই শহরে পা রাখার কোনো ঝুঁকিই নেননি কুইন্টন ডে ককরা (Quinton De Kock)। পরিবর্তে বেছে নিয়েছিলেন কলকাতাকে। মঙ্গলবার সকালেই কলকাতা থেকে দুবাইয়ের উদ্দেশে রওনা হয়ে যায় সাউথ আফ্রিকা দল।

কলকাতা তথা পশ্চিমবঙ্গে এখনও পর্যন্ত কোভিড ১৯-এ (Covid 19) আক্রান্ত কোনো রোগী নেই। উলটো দিকে দিল্লিতে এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ জন। ফলে দিল্লিকে ‘নিরাপদ’ মনে করেনি গ্রেম স্মিথের (Graeme Smith) বোর্ড।

সোমবার বিকেলে কলকাতায় এসে পৌঁছোয় সাউথ আফ্রিকা দল। শহরে দলকে স্বাগত জানান সিএবি সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া (Avishek Dalmiya), সচিব স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় আর যুগ্ম সচিব দেবব্রত দাস।

এ দিন সকালে সাউথ আফ্রিকা দল দুবাই উড়ে যাওয়ার পর সংবাদসংস্থা আইএএনএসকে অভিষেক বলেন, “ওরা আজ সকালেই দুবাই উড়ে গেল। সেখান থেকে যে যার বাড়ি পৌঁছে যাবে। সিএবির ব্যবস্থাপনায় তারা সন্তোষ প্রকাশ করেছে।”

আরও পড়ুন করোনাভাইরাসের জেরে শিবির বন্ধ করল আইপিএলের সব ফ্র্যাঞ্চাইসি, বাড়ি ফিরছেন ক্রিকেটাররা

উল্লেখ্য, ধরমশালায় প্রথম একদিনের ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেস্তে যাওয়ার পরেই দুই দেশের বোর্ড সিরিজ আপাতত বাতিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এর পরেই বাড়ি ফেরার তোড়জোড় শুরু করে সাউথ আফ্রিকা ক্রিকেট দল।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ক্রিকেট

সংঘাত চরমে, ওয়েবসাইট থেকে সুরেশ রায়নার নাম মুছে দিল চেন্নাই সুপারকিংস

এ বার তো নয়ই, আর হয়তো কখনই রায়নাকে হলুদ জার্সিতে দেখা যাবে না।

Published

on

suresh raina

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সুরেশ রায়নার (Suresh Raina) সঙ্গে চেন্নাই সুপারকিংসের (Chennai Superkings) ম্যানেজমেন্টের সংঘাত চরমে পৌঁছে গেল। দলের সরকারি ওয়েবসাইট থেকে মুছে ফেলা হল রায়নার নাম।

আইপিএল শুরুর আগে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি থেকে দেশে ফিরে এসেছিলেন রায়না। কারণ হিসেবে শোনা গিয়েছিল নানা কথা। ঘর পছন্দ না হওয়া, অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনির মতো ঘর চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়েছিল। 

স্বয়ং রায়না যদিও বলেছিলেন যে আমিরশাহিতে তাঁর সন্তানদের জন্য উদ্বেগ থেকেই আইপিএল না খেলার সিদ্ধান্তে এসেছিলেন। সেই সময় চেন্নাই শিবিরের ১৩ সদস্যের করোনা ধরা পড়েছিল। তার মধ্যে দু’জন ক্রিকেটারও ছিলেন।

শোনা গিয়েছিল, পারিবারিক সমস্যার কারণেও তিনি দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দুষ্কৃতীদের আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছিলেন তাঁর পিসেমশাই। আহত হন পরিবারের অন্যরাও। শোনা গিয়েছিল, রায়নার দেশে ফিরে আসার এটাও একটা বড়ো কারণ।

তবে রায়না কিছু দিন আগেই জানিয়েছিলেন যে চলতি আইপিএলে তিনি ফিরতেও পারেন। এ দিকে, আইপিএলে টানা দুই ম্যাচে হারের পর রায়নাকে দলে ফেরানোর ডাক সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়েছিলেন সমর্থকরা। কিন্তু, যে ভাবে তাঁর নাম কেটে দেওয়া হল সিএসকে-র সরকারি ওয়েবসাইট থেকে, তাতে বার্তা পরিষ্কার। এ বার তো নয়ই, আর হয়তো কখনোই রায়নাকে হলুদ জার্সিতে দেখা যাবে না।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

টেবিল-শীর্ষে থাকা দিল্লিকে হারিয়ে খাতা খুলল হায়দরাবাদ

Continue Reading

ক্রিকেট

টেবিল-শীর্ষে থাকা দিল্লিকে হারিয়ে খাতা খুলল হায়দরাবাদ

স্বস্তিতে হায়দরাবাদ শিবির।

Published

on

sunrisers Hyderabad

হায়দরাবাদ: ১৬২-৪ (ওয়ার্নার ৫৩, বেয়ারস্টো ৪৫, রাবাদা ২-২১)

দিল্লি: ১৪৭-৭ (ধাওয়ান ৩৪, পন্থ ৩২, রশিদ খান ৩-১৪)

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অপরাজেয় থাকার তকমা খোয়াল দিল্লি হারতে থাকা একটা দলের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার আবু ধাবির মন্থর উইকেটে ডেভিড ওয়ার্নারের হায়দরাবাদ হারিয়ে দিল দিল্লিকে। এই জয়ের নেপথ্যে থাকলেন হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যান এবং বোলাররা।

জম্মু-কাশ্মীরের ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে মঙ্গলবার দিনটা কিছুটা হলেও স্পেশাল ছিল। এ দিনই কমলা জার্সিধারীদের হয়ে অভিষেক করলেন আব্দুল সামাদ। মাত্র সাতটা বল খেলেই তিনি দেখিয়ে দিলেন তাঁর মধ্যে যথেষ্ট ক্ষমতা রয়েছে বড়ো কিছু করার। সাউথ আফ্রিকার বোলারকে যিনি তুলে বাউন্ডারি লাইনের বাইরে পাঠাতে পারেন, তিনি বেশি বল খেলার সুযোগ পেলে যে আরও দুর্দান্ত ইনিংস খেলবেন তা বলাই বাহুল্য।

কিন্তু স্কোরবোর্ডটা কী রকম অদ্ভুত না! যাঁরা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেলেন, তাঁদের কোনো চিহ্নই দেখাচ্ছে না। এই যেমন কেন উইলিয়ামসন।

হায়দরাবাদের ব্যাটিংকে মজবুত করতে এ দিন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ককে দলে নিয়ে আসা হয়। ঢিমেতালে খেলাই যাঁর চরিত্র, সেই উইলিইয়ামসন এ দিন যে স্ট্রাইক রেটে খেললেন সেটা ডেভিড ওয়ার্নার আর জনই বেয়ারস্টোর থেকেও বেশি।

ওয়ার্নার আর বেয়ারস্টোর অবদান বলতে, দলকে একটা শক্ত ভিতের ওপরে খাড়া করা দেওয়া। কিন্তু ওপেনিং জুটিতে বড়ো রান করা ছাড়া এই দু’জন সাংঘাতিক কিছু প্রভাব ফেলতে পারেনি। অর্থাৎ, রানের গতি বাড়াতে পারেননি।

আবু ধাবির পিচের চরিত্রটা যে অন্য রকম সেটা আগে থেকেই বোঝা গিয়েছে। কিছুটা শ্লথ গতির পিচে থিতু হতেও সময় লেগে যায়। আর তাই ওয়ার্নার আর বেয়ারস্টো ক্রিজে যতক্ষণ জমে বসলেন ততক্ষণে দশ আট ওভার পেরিয়ে গিয়েছে।

উইলিয়ামসন সনাতনী ব্যাটিংয়ের আধুনিকতম উদাহরণ। সেই উইলিয়ামসন যে সম্পূর্ণ ক্রিকেটীয় শটের মধ্যে দিয়ে আগ্রাসী ব্যাটিং করবেন তা আন্দাজই করা যায়নি। একটাও ছয় না মেরে, মাত্র পাঁচটা চার মেরে দেড়শোর ওপরে স্ট্রাইক রেট রাখেন তিনি।

এ দিন তাই হায়দরাবাদ ব্যাটিং সেরা বিজ্ঞাপন অর্ধশতরান করা ওয়ার্নার বা অল্পের জন্য অর্ধশতরান হাতছাড়া হওয়া বেয়ারস্টো নয়, ২৬ বলে ৪১ করা উইলিয়ামসন।

পিচ যে ব্যাটিংয়ের জন্য আদৌ ছিল না সেটা দিল্লির ব্যাটিং দেখেই বোঝা গেল। অন্য যে কোনো পিচে ১৬২টা কোনো রানই নয়। কিন্তু এ দিন হায়দরাবাদের বোলাররা দিল্লির ব্যাটসম্যানদের রীতিমতো নাকানিচোবানি খাওয়ালেন।

এই আইপিএলে দিল্লিই একমাত্র দল, যাঁদের টপ অর্ডারে চার জন ব্যাটসম্যানই ভারতীয়। আর তাই নিয়ে এখনও পর্যন্ত লিগ টেবিলের শীর্ষে ছিল তারা। কিন্তু এ দিন রান তাড়া শুরু করতেই প্যাভিলিয়নের পথ দেখেন পৃথ্বী শ। শিখর ধাওয়ান আর শ্রেয়স আইয়ার ক্রিজে জমতে শুরু করলেও রানের গতি বাড়াতে পারেননি কেউ।

এরই মধ্যে হাজির হন রশিদ খান, যিনি আরও চাপে ফেলে দেন দিল্লিকে। আইয়ার, ধাওয়ান দু’ জনকেই ফিরিয়ে দেন রশিদ। এমনকি হাত খুলতে দেননি ঋষভ পন্থকে। ফলে একটা সময়ে দিল্লির প্রয়োজন হয়ে পড়ে ৪০ বলে ৮০। ততক্ষণে তাদের স্কোরবোর্ডে উঠেছে মোটে ৮৩। খরচা হয়ে গিয়েছে ১৩.২ ওভার।

এখান থেকে ম্যাচ কিছুটা ঘোরানোর চেষ্টা করেন পন্থ এবং শিমরন হেটমেয়ার। অবশ্য ১৬তম ওভারে হেটমেয়ার আউট হয়ে যেতে ফের চাপে পড়ে দিল্লি। যদিও তখন পন্থের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দেন মার্কাস স্টয়নিস। কিন্তু ১৭তম ওভারে ফের ছন্দপতন দিল্লির। এ বার রশিদ খানের শিকার হন পন্থ।

এর পর শত চেষ্টা করেও আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি দিল্লি। মঙ্গলবারের লড়াইটা ছিল গ্রুপ টেবিলে শীর্ষে থাকা দিল্লির বিরুদ্ধে গ্রুপ টেবিলে সব থেকে নীচে থাকা হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে। এই লড়াই জিতে নিয়ে এখন স্বস্তি ফিরল হায়দরাবাদ শিবিরে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

কিষানের অবিশ্বাস্য ইনিংস শেষে সুপার ওভারে স্বস্তির জয় বেঙ্গালুরুর

Continue Reading

ক্রিকেট

কিষানের অবিশ্বাস্য ইনিংস শেষে সুপার ওভারে স্বস্তির জয় বেঙ্গালুরুর

শেষ হাসি হাসলেন বিরাট কোহলিই।

Published

on

বেঙ্গালুরু ২০১-৩ (ডেভিলিয়ার্স ৫৫ অপরাজিত, পাড়িক্কাল ৫৪, বোল্ট ২-৩৪) [সুপার ওভারে ১১-০]

মুম্বই ২০১-৫ (কিষান ৯৯, পোলার্ড ৬০ অপরাজিত, উদানা ২-৪৫) [ সুপার ওভারে ৭-১]

খবরঅইনলাইন ডেস্ক: শেষ পাঁচ ওভারে তাদের দরকার ছিল ৯০। সেখান থেকে ম্যাচটাকে সুপার ওভারে নিয়ে গেল মুম্বই। সুপার ওভারে অবশ্য ম্যাচটা বের করে নিল বেঙ্গালুরু। তিন ম্যাচের মধ্যে দ্বিতীয় জয় পেয়ে চলতি আইপিএলে কিছুটা স্বস্তির জায়গায় পৌঁছে গেল আরসিবি।

তবে ম্যাচটা যে সুপার ওভারে গেল, এর নেপথ্যে পুরোপুরি থাকলেন ঝাড়খণ্ডের ঈশান কিষান। ৯৯ রানের অবিশ্বাস্য একটা ইনিংস উপহার দেন তিনি। তাঁর দোসর হিসেবে ছিলেন কায়রন পোলার্ড।

সোমবার বেঙ্গালুরুর হয়ে ব্যাট হাতে প্রথমে জ্বলে উঠলেন অ্যারন ফিঞ্চ, দেবদত্ত পাড়িক্কাল, এবি ডেভিলিয়ার্স এবং শিবম দুবেরা। তার পর যখন বোলিংয়ের পালা এল, তখন প্রভাব ফেললেন স্পিনাররা। সব মিলিয়ে দুর্দান্ত একটা দিন গেল বেঙ্গালুরুর কাছে। কিন্তু এই পারফরম্যান্সের মধ্যেও প্রশ্নচিহ্ন থেকে গেল বিরাট কোহলিকে নিয়ে।

লকডাউনে কি সব থেকে বেশি প্রভাব পড়েছে বিরাট কোহলির ফর্মে? ইঙ্গিতটা তেমনই। সোমবারও বিরাটের ব্যাটে রানের খরা চলল। ক্রিজে এসে যে ভাবে তিনি রীতিমতো সংঘর্ষ করেছেন, তা বিরাটের ক্ষেত্রে খুব একটা দেখা যায় না।

বিরাট খেলেছেন এ দিন ১১টা বল। আর রান করেছেন মাত্র ৩। অবিশ্বাস্য! এই নিয়ে আইপিএলের প্রথম তিনটে ম্যাচেই ব্যর্থ হলেন তিনি। হায়দয়ারাবাদের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে ১৪ রান করেছিলেন তিনি। দ্বিতীয় ম্যাচে পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে করেছিলেন ১।

বিরাট যতক্ষণ ছিলেন সেই চারটে ওভার বেঙ্গালুরুর স্কোরবোর্ডে উঠেছিল মাত্র ১১ রান। কিন্তু এর পরেও আরসিবি যে দুশো পেরিয়ে গেল তা কী ভাবে সম্ভব হল? কারণ বিরাট ছাড়া বাকিদের, বিশেষ করে এবি ডেভিলিয়ার্সের অবদান।

এ দিন বেঙ্গালুরুর হয়ে শুরু করেছিলেন অ্যারন ফিঞ্চ (৫২)। শেষ করলেন শিবম দুবে। রানের মধ্যে ছিলেন দেবদত্ত পাড়িক্কালও। তবে সব থেকে বেশি নজর কেড়েছেন ডেভিলিয়ার্স।

বেঙ্গালুরুর প্রথম ম্যাচ থেকেই ডেভিলিয়ার্স বুঝিয়ে দিচ্ছেন যে তিনি রানের মধ্যে রয়েছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে নিলেও এখনও তিনি অবলীলায় সাউথ আফ্রিকার জাতীয় দলে ঢুকে যেতে পারেন তিনি।

বেঙ্গালুরু এ দিন একশো পেরিয়েছিল ১৩.৪ ওভারে। পরবর্তী ৩৮ বলে তারা করল ১০১ রান। আর ঠিক এই সময়েই চারটে ৪, চারটে ৬ মেরে ২৪ বলে ৫৫ রানের অসামান্য একটা ইনিংস খেলেন ডেভিলিয়ার্স।

যদিও শেষ ওভারে নিজের কেরামতি দেখিয়ে যান শিবম দুবে। ১০ বলে ২৭ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ভারতীয় টি২০ দলে তাঁকে যুবরাজ সিংহের আদর্শ বিকল্প ভাবা হচ্ছে। এ দিন সংক্ষিপ্ত ইনিংসে যে পারফরম্যান্স তিনি করেছেন, সেটা ধরে রাখতে পারলে তাঁর ভবিষ্যৎ কিন্তু সত্যিই উজ্জ্বল।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথমে ছন্দেই দেখা যায়নি মুম্বইয়ের ব্যাটিংকে। বোলিং বিভাগকে শক্ত করতে এ দিন বেশ কিছু পরিবর্তন করেছিল বেঙ্গালুরু। প্রথমত, ডেল স্টেইনকে বসিয়ে শ্রীলঙ্কার ইসুরু উদানাকে নিয়ে আসা হয় দলে। দ্বিতীয়ত, উমেশ যাদবের বদলে দলে জায়গা পান অস্ট্রেলিয়ার লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা।

দুটো পরিবর্তনই যে মোটের ওপরে সফল ছিল, প্রথম দশ ওভারে সেটাই বোঝা যাচ্ছিল। তবে আরও এক জনের কথা না বললেই নয়। তিনি পবন নেগি। আউটফিল্ডে অসাধারণ ক্যাচিং করে গেলেন তিনি।

রোহিত শর্মা, কুইন্টন ডে কক এবং হার্দিক পাণ্ড্যর আউট হওয়ার পেছনে বোলারদের যত না অবদান, তার থেকে হয়তো কিছু বেশি অবদান নেগীর। ঠান্ডা মাথায় এই তিন জনের ক্যাচ সহজেই ধরেছেন তিনি। এই পরিস্থিতি মুম্বইয়ের হাত থেকে ম্যাচটা প্রায় বেরিয়েই যাচ্ছিল।

ঠিক যখন মুম্বই ম্যাচ থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে গিয়েছে, তখনই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিলেন মুম্বইয়ের দু’জন। ঈশান কিষান আর কায়রন পোলার্ড।

গত বারের আইপিএলে আন্দ্রে রাসেল দেখিয়েছিলেন অতি অসম্ভব পরিস্থিতি থেকেও কী ভাবে ম্যাচ বের করে আনা যায়। এ দিন যেন সেটাই করে দিলেন পোলার্ড আর কিষান। কিষান আগে থেকেই ক্রিজে জাঁকিয়ে বসেছিলেন, খেলছিলেনও দুর্ধর্ষ। পোলার্ড যখন কিষাণের সঙ্গে যোগ দিলেন তখন মুম্বইয়ের জয়ের জন্য দরকার ৫২ বলে ১২৪।

এখান থেকেই খেলা ঘুরিয়ে দিলেন পোলার্ড। কিষাণ আগেই অর্ধশতরান করে ফেলেছিলেন। পোলার্ড ২০ বলে ৫০ পেরোলেন, ততক্ষণে পাঁচ বার ছয় মারা হয়ে গিয়েছে তাঁর। মুম্বইয়ের ইনিংসের শুরুর দিকে যে জাম্পা আর যজুবেন্দ্র চাহলের ঘূর্ণিতে মুম্বই পর্যুদস্ত হয়ে গিয়েছিল, তাঁদেরই নাকানিচোবানি খাইয়ে দিলেন পোলার্ড।

নবদীপ সাইনি যখন ১৯তম ওভার বল করতে এলেন, তখন মুম্বইয়ের দরকার ৩১। ওভারের প্রথম চারটে বলে হাত পোলার্ড বা কিষানকে হাত খুলতে দেননি সাইনি। কিন্তু পঞ্চম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে দেন কিষান। ষষ্ঠ বলে একটা রান নেওয়ার ফলে শেষ ওভারে মুম্বইয়ের প্রয়োজন পড়ে ১৯।

চলতি আইপিএলে প্রথম বার সুযোগ পেলেন কিষাণ। আর সেই প্রথম সুযোগেই প্রায় শতরান করে ফেলছিলেন তিনি। শেষ ওভারে পর পর দু’বার ছক্কা হাঁকিয়ে তৃতীয় বলে যখন তিনি ৯৯-এ আউট হলেন, তখন মুম্বইয়ের দরকার শেষ বলে ৫। শেষ বলে চার মেরে ম্যাচটিকে সুপার ওভারে নিয়ে গেলেন পোলার্ড।

সুপার ওভারে অসামান্য বল করেন বেঙ্গালুরুর নবদীপ সাইনি। যে পোলার্ড মূল ম্যাচটা মুম্বইয়ের পক্ষে নিয়ে এলেন, তাঁকে হাত খুলতে দেননি তিনি। এমনকি ওভারের পঞ্চম বলে তাঁর উইকেটও নিয়ে নেন। সব মিলিয়ে সুপার ওভারে মুম্বই তোলে ৭ রান।

মুম্বইয়ের হয়ে এই ৭ রান বাঁচানোর দায়িত্ব পড়ে জসপ্রীত বুমরাহর ওপরে। টুর্নামেন্টে এখনও পর্যন্ত সে ভাবে জ্বলে উঠতে না পাড়া বুমরাহ কিন্তু যথেষ্ট ভালো বল করলেন। তবে শেষ হাসি হাসলেন বিরাট কোহলিই।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

ফর্ম হাতড়াচ্ছেন বিরাট কোহলি, ডেভিলিয়ার্সের ব্যাটে ফের ঝড়

Continue Reading
Advertisement
Uncategorized17 hours ago

সরষের তেল থেকে এলপিজি হয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স, কাল থেকে যে ১০টি নিয়ম বদলে যাচ্ছে

Coronavirus durga puja
দেশ17 hours ago

ওনামেই বিপদ বাড়ল কেরলের, পুজোর আগে শিক্ষা নিতে হবে পশ্চিমবঙ্গকে

Uttar Pradesh Police
দেশ18 hours ago

আটকে রাখা হল পরিবারকে, ঘেঁষতে দেওয়া হল না সংবাদমাধ্যমকে, হাতরাসের তরুণীর শেষকৃত্য করল পুলিশ

corona
দেশ18 hours ago

নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা বাড়লেও সুস্থ হলেন আরও বেশি মানুষ, সক্রিয় রোগী আরও কমল ভারতে

দেশ18 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৮০৪৭২, সুস্থ ৮৬৪২৮

mamata banerjee and sonia gandhi
রাজ্য18 hours ago

নয়া কৃষি আইন রুখতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি কংগ্রেসের

suresh raina
ক্রিকেট19 hours ago

সংঘাত চরমে, ওয়েবসাইট থেকে সুরেশ রায়নার নাম মুছে দিল চেন্নাই সুপারকিংস

Rapes in India
দেশ19 hours ago

দৈনিক ৮৭টি ধর্ষণের ঘটনা ভারতে, চাঞ্চল্যকর তথ্য এনসিআরবির

দেশ18 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৮০৪৭২, সুস্থ ৮৬৪২৮

north bengal rain
রাজ্য3 days ago

অতিবৃষ্টির হাত থেকে অবশেষে রেহাই পেল উত্তরবঙ্গ, আপাতত স্বস্তি

covid peak india
দেশ2 days ago

১৮ সেপ্টেম্বরের পর থেকে সক্রিয় রোগীর গ্রাফ নিম্নমুখী, কোভিডের চূড়া কি অবশেষে পেরোল ভারত?

coronavirus
দেশ2 days ago

দেশে নতুন কোভিড-আক্রান্তের সংখ্যা গত ২৮ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন, ব্যাপক পতন মৃত্যুর সংখ্যাতেও

ganges cruise
কলকাতা3 days ago

মাত্র ৩৯ টাকায় গঙ্গাবক্ষে উপভোগ করুন ‘হেরিটেজ ক্রুজ’

Ration Card and Aadhaar Number
প্রযুক্তি2 days ago

অনলাইনে সত্যিই কি রেশন কার্ডে আধার লিঙ্ক করা যায়?

low pressure west bengal rain
রাজ্য3 days ago

অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহে আসতে পারে নিম্নচাপ, তত দিন বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই ভরসা দক্ষিণবঙ্গের

দেশ3 days ago

হাসিনার জন্মদিনে ভারতের শুভেচ্ছা, মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান স্মরণ হাসিনার

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

কেনাকাটা2 days ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা5 days ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা6 days ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 week ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা2 weeks ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা2 weeks ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা3 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা3 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

নজরে