greg chappell sourav ganguly

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় ক্রিকেটে চ্যাপেলযুগ শেষ হয়ে গিয়েছে এগারো বছর হয়ে গেল, কিন্তু তিনি যে এখনও গ্রেগ চ্যাপেলকে ক্ষমা করতে পারেননি সেটা বুঝিয়ে দিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। চ্যাপেল তাঁর কেরিয়ার শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন বলে অভিযোগ করলেন মহারাজ। চ্যাপেলের সময়টা যে তিনি এখনও পুরোপুরি ভুলে যেতে পারেননি সেটাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

ভারতীয় ক্রিকেটের মাঠের বাইরের এবং ভেতরের বিভিন্ন গল্প নিয়ে একটি বই লিখেছেন ক্রিকেট সাংবাদিক বোরিয়া মজুমদার। ‘ইলেভেন গড্‌স অ্যান্ড বিলিয়ন ইন্ডিয়ান্‌স’ শীর্ষক বইটা প্রকাশিত হবে আসন্ন আইপিএলে। সেই বইতেই নিজের মনোভাব ব্যক্ত করেছেন সৌরভ।

২০০৫-এর অভিশপ্ত জিম্বাবোয়ে সিরিজের স্মৃতি রোমন্থন করতে গিয়ে তিনি বলেন, “টেস্ট শুরু হওয়ার আগে একদিন আমার কাছে গ্রেগ এল তাঁর পছন্দের টিমলিস্ট নিয়ে। আমি দেখে অবাক যে ওই দলে আমি ছাড়া আরও কয়েক জন সিনিয়র ক্রিকেটারকে বাদ দিয়েছেন তিনি। ওই সফরের শুরু থেকেই কিছু কিছু ব্যাপার আমার ভালো লাগছিল না। সফরের আগে কিছু একটা ঘটেছিল চ্যাপেলের সঙ্গে, সেটা অবশ্য আমি জানি না।”

উল্লেখ্য, ২০০৫-এর জুলাইয়ে চ্যাপেল যখন ভারতের কোচ হয়ে তাঁর প্রথম সফর অর্থাৎ শ্রীলঙ্কা সফরে যান, তখন ছ’ম্যাচের জন্য সৌরভের নির্বাসন চলছিল, যার ফলে ওই সিরিজে দলের অধিনায়কত্ব সামলান রাহুল দ্রাবিড়। সৌরভ নির্বাসনমুক্ত হলে পরের সিরিজে, অর্থাৎ জিম্বাবোয়ে সফরে ফের অধিনায়কের আসন ফিরে পান।

সৌরভের সন্দেহ, ওই শ্রীলঙ্কা সফর চলাকালীন নিশ্চয় গ্রেগের মনটা কেউ বিষিয়েছিল। তাঁর কথায়, “আমার মনে হয়, গ্রেগকে কেউ ভুল বুঝিয়েছিল এই বলে যে আমি যদি দলে থাকি তা হলে ও যে রকম দল তৈরি করতে চাইছে সেটা করতে পারবে না। যাই হোক, যে গ্রেগকে আমি ২০০৩-এ দেখেছিলাম, ২০০৫-এর গ্রেগ কিন্তু অনেক পালটে গিয়েছিল।”

উল্লেখ্য, ২০০৩-এ অস্ট্রেলিয়া সফরের আগে এই গ্রেগের কাছেই ব্যাটিং প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন সৌরভ। তার পরেই ব্রিসবেনে প্রথম টেস্টে সেই ঐতিহাসিক শতরান। এর পর থেকেই গ্রেগের প্রতি সম্মান আরও বেড়ে যায় সৌরভের। তাই ২০০৫-এ যখন ভারতীয় দলের কোচ নির্বাচন হয়েছিল তখন সৌরভের পছন্দ ছিলেন চ্যাপেলই।

বইয়ের ওই অংশে জিম্বাবোয়ে সফর এবং তার পরবর্তী এক মাসে গ্রেগের সঙ্গে কী হয়েছিল সে ব্যাপারে বিস্তারিত লিখেছেন সৌরভ। অনেকের হয়তো মনে আছে টেনিস এলবোয় চোট থাকার ফলে জিম্বাবোয়ে সফরের পর ঘরোয়া টুর্নামেন্ট চ্যালেঞ্জার ট্রফিতে অংশ নেননি সৌরভ।

এই চোটের দোহাই দিয়েই তাঁকে একদিনের দল থেকে বহিষ্কার করা হয় বলে অভিযোগ ছিল সৌরভের। তিনি বলেন, “কখনোই চ্যালেঞ্জার ট্রফিকে ভারতের দল নির্বাচনের পরীক্ষা হিসেবে দেখা হয় না। অথচ আমার ক্ষেত্রে হল। ওই সময়ে আমি ভারতের অধিকাংশ ব্যাটসম্যানের থেকে একদিনের ক্রিকেটে বেশি রান করেছিলাম। অথচ পরের সিরিজে আমিই বাদ। তখনই মনে হল যে চ্যাপেল আমার কেরিয়ার পুরোপুরি শেষ করে দিতে চায়।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here