কানপুর: টসে জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। উইলিয়ামসনের সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করতে চেষ্টার কসুর করেনি ভারত। রোহিত শর্মার ১৪৭ আর কোহলির ১০৪ রানের দাপটে ৩৩৮ রানের বড়োসড়ো লক্ষ্য খাড়া করেছিল ভারত(রোহিতের ১৫তম আর কোহলির ৩২তম ওয়ান ডে শতরান)। মনে হচ্ছিল বুঝি ভারতের সিরিজ জয় সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু তা হল না।

আরও পড়ুন: ৩২তম ওয়ান ডে সেঞ্চুরির দিনে জোড়া রেকর্ড কোহলির

কিউয়িদের ব্যাটিং চলাকালীন পরিস্থিতি এক সময় এমন দাঁড়াল, মনে হচ্ছিল অবশেষে একটা ওয়ান ডে সিরিজ হারতে চলেছে ভারত। মুনরোর ৬২ বলে ৭৫ রানের ঝকঝকে ব্যাটিং-এর পর অধিনায়কের ৬৪। টেলর ও নিকোলসের প্রয়োজনীয় ইনিংস। সে সবের বিরুদ্ধেই লড়াইটা চালিয়ে গেছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু থামানো যাচ্ছিল না লাথামকে। লাথাম থাকলে যে এই ম্যাচ ভারত জিততে পারবে না, বুঝে গেছিলেন সব ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীই।

কিন্তু এরকম সময়েই ঘটে গেল দুর্ঘটনা। ১৪ বলে ২৫ রান বাকি। হাতে ৫ উইকেট। এমন অবস্থায় প্রায় অবিশ্বাস্য এক তাড়াহুড়োয় রানার্সর জায়গা থেকে রান আউট হয়ে গেলেন লাথাম। ৫২ বলে তখন তাঁর ৬৫ রান হয়ে গেছে। ব্যস। ম্যাচ শেষ হয়ে গেল প্রায় ওখানেই। স্লগ ওভারে দারুণ বল করলেন ভুবনেশ্বর কুমার ও বুমরাহ(ভুবি যদিও এদিন ১০ ওভারে ৯২ রান দিয়েছেন)। কিন্তু লাথাম আউট না হলে সে সব কোনো কাজেই লাগত না।

২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে টানা সাতটি একদিনের সিরিজ জিতল ভারত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here