ব্যাটিংয়ে ফের ব্যর্থ হলেও বোলারদের দাপটে ওভালে লড়ছে ভারত

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ব্যাটে ফের একবার ব্যর্থ হলেও বল হাতে জ্বলে উঠছে ভারত। সে কারণে ওভাল টেস্টের প্রথম দিনের খেলার পরেও বলতে হচ্ছে যে ম্যাচ থেকে বেরিয়ে যায়নি ভারত।

হেডিংলি টেস্টের প্রথম ইনিংসের মতো জঘন্য শুরু ভারত এ দিন না করলেও কোনো মোটেও ভালো শুরু করেনি। যদিও প্রথম ওভার থেকেই বেশ আক্রমণাত্মক ছিলেন কেএল রাহুল। অ্যান্ডারসনকে ড্রাইভ করে চার মেরে খাতা খোলেন তিনি। তাঁর তৃতীয় ওভারে রাহুলের ড্রাইভ। শেষ বলে অ্যান্ডারসনকে স্কোয়ার ড্রাইভ মারলেন তিনি।

যখন সবে মনে হচ্ছে ওপেনিং জুটিটা ফের একবার দাঁড়িয়ে গিয়েছে, তখনই প্রথম উইকেট পতন ভারতের। ক্রিস ওকসের বলে খোঁচা দিলেন রোহিত। উইকেটরক্ষক বেয়ারস্টোয়ের হাতে ক্যাচ। ১১ রান করে ফিরে যান রোহিত।

বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি রাহুলও। পরের ওভারেই রবিনসনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ড্রেসিং রুমে ফিরে যান তিনি। আগের টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসের ফর্ম ধরে রাখতে পারেননি পুজারা। ভারতকে আরও বিপাকে ফেলে অ্যান্ডারসনের বলকে উইকেট কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে তিনি যখন ফেরেন, তখন ভারত পঞ্চাশও পেরোয়নি।

এর পরেই চরমতম একটা ফাটকা খেলে ভারত। রবীন্দ্র জাদেজাকে নামানো হয় পাঁচ নম্বরে। যদিও ঠিক কী কারণে এমনটা করা হয়েছিল, কারও মাথায় ঢোকেনি। রান পাননি জাদেজা। মাত্র ১০ রান করেই ফিরে যান তিনি।

তবে ঠিক এই মুহূর্তেই চূড়ান্ত ফর্মে ফিরতে শুরু করেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। একের পর এক কভার ড্রাইভ বেরোতে থাকে তাঁর ব্যাট থেকে। সিরিজের দ্বিতীয় অর্ধশতরান হয়ে করে ফেলেন তিনি। পর পর দু’ইনিংসে পঞ্চাশ পেরিয়ে যান তিনি।

তবে এ বারও তিন অঙ্কের রানে পৌঁছতে ব্যর্থ হল বিরাট। অর্ধশতরান করেই রবিনসনের বলে ফিরলেন তিনি। আরও চাপে পড়ে যায় ভারত। সেই চাপ আরও বাড়ে, যখন আউট হয়ে ফিরে যান অজিঙ্ক রাহানেও। খারাপ ফর্ম থেকে বেরোতে পারছেন না রাহানে। এ দিন মাত্র ১৪ রান করেই ওভার্টনের বলে ফিরে যান তিনি।

চা বিরতির পর ড্রেসিং রুমে ফিরে যান পন্থও। এ দিনের এই ব্যাটিংয়ের পর ঋদ্ধিমান সাহাকে ভারতীয় দলের ফিরিয়ে আনার দাবি যে আরও জোরদার হবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

১৩০ রান বোর্ডে ওঠার আগেই ৭ উইকেট হারিয়ে ভারত যখন ধুঁকছে, তখনই কাউন্টার অ্যাটাক শুরু করেন শার্দূল ঠাকুর। ইংল্যান্ডের বোলারদের নাকানি চোবানি খাইয়ে একের পর চার ছক্কার ফুলঝুরি বইয়ে দেন ঠাকুর। মাত্র ৩২ বলেই অর্ধশতরান করে ফেলেন তিনি।

ঠাকুরের ব্যাটের দাপটেই কিছুটা ভদ্রস্থ স্কোরে গিয়ে পৌঁছোয় ভারত। তবে এ বারও দুশোর ঘর পেরোতে পারল না তারা। কারণ ঠাকুর আউট হতেই পরের ওভারেই পর পর দুটো উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৯১ রানেই শেষ হয়ে যায় ভারত।

কম রানে আটকে গিয়েও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাল্টা প্রত্যাঘাত করে ভারতীয় বোলিং। জ্বলে ওঠেন জসপ্রীত বুমরাহ। প্রথমে তাঁর বোল্ড হয়ে যান ওপেনার ররি বার্নস। কিছুক্ষণ পর অপর ওপেনার হাসিব হামিদকে ফিরিয়ে ভারতীয় বোলিংকে চূড়ান্ত অক্সিজেন দিয়ে দেন বুমরাহ।

তবে দুই ওপেনারকে হারিয়েও লড়তে থাকে ইংল্যান্ড। নতুন করে কোনো উইকেট না হারিয়ে পঞ্চাশের গণ্ডি পেরিয়ে যায় তারা। তবে দিনের শেষ মুহূর্তে জো রুটকে হারিয়ে ফের একবার চাঙ্গা হয়ে গিয়েছে ভারতীয় দল। সব মিলিয়ে ভারত এখনও ম্যাচে রয়েছে এটা বলতেই হয়।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন