ইশান্ত শর্মা চোট না সারালে ভারতের কপাল আরও পুড়ত

0

ভারত ১৬৫ (রাহানে ৪৬, ময়াঙ্ক ৩৪, জেমিসন ৪-৩৯)

নিউজিল্যান্ড ২১৬-৫ (উইলিয়ামসন ৮৯, টেলর ৪৪, ইশান্ত ৩-৩১)

ওয়েলিংটন: বিভিন্ন মহলেই দাবি করা হয় ভারতের বর্তমান পেস আক্রমণ সর্বকালের সেরা। এই দাবিকে শিলমোহর দিয়েছেন কোচ রবি শাস্ত্রী আর অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সেই ‘সর্বকালের সেরা’ পেস আক্রমণই মুখ থুবড়ে পড়ল ওয়েলিংটন টেস্টের দ্বিতীয় দিন।

কথায় কথায় ১৭ বছর আগের সেই দুঃস্বপ্নের ওয়েলিংটন টেস্টের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে এই টেস্টের। কারণ ভারতীয় ব্যাটিংয়ের পরিস্থিতি হুবহু মিলে গেল। কিন্তু বোলিংয়ের এ কী দশা! সে বার নিউজিল্যান্ড ব্যাটিংকে একাই শেষ করে দিয়েছিলেন জাহির খান। এ বার জাহিরের সেই দায়িত্বে ইশান্ত শর্মাকে পাওয়া গেলেও বাকিরা কোনো দাগ কাটতেই পারলেন না।

নেহাৎ শেষ বেলায় কেন উইলিয়ামসনকে তুলে নিয়ে কিছুটা মান বাঁচালেন মহম্মদ শামি। কিন্তু পিচের যা পরিস্থিতি এ দিনও ছিল, তাতে নিউজিল্যান্ড ব্যাটিংকে আরও আগেই ধসিয়ে দেওয়া সম্ভব হত।

ইশান্ত শর্মার খেলার ওপর কোনো গ্যারান্টি টেস্টের ৪৮ ঘণ্টা আগেও ছিল না। জানুয়ারিতে রঞ্জি ম্যাচ চলাকালীন চোট পেয়েছিলেন তিনি। নিউজিল্যান্ড সিরিজে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিলেন। তার পর ধীরে ধীরে নিজেকে সুস্থ করে তুলে এই টেস্টে তিনি নেমেছেন।

আর নামতেই দাপট। কিউয়িদের প্রথম তিনটে উইকেটের তিনটেই ইশান্তের। কিন্তু তাতেও তো লাভ বিশেষ হল না। কারণ তারা তো দ্বিতীয় দিনেই প্রথম ইনিংসে ভারতের রানের থেকে এগিয়ে গেল। তবুও শেষ বেলায় শামির পাশাপাশি অশ্বিনও একটা উইকেট পাওয়ায় তুলনামূলক ভাবে স্বস্তিতে ভারত। কিন্তু বুমরাহর উইকেট না পাওয়াটা আবার চিন্তা ভাঁজ ফেলে দিয়েছে।

এ দিন সকালটাও আগের দিনের মতো দুঃস্বপ্নেরই ছিল।

শনিবার ভারতের আশা এবং ভরসার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন অজিঙ্ক রাহানে আর ঋষভ পন্থ। রাহানে একটা দিক আঁকড়ে থাকার চেষ্টা করলেও, নিজের রান বাড়াতে ব্যর্থ হন পন্থ।

তবে এটাও ঠিক যে পন্থ রান আউট হয়েছেন। ফলে ভাগ্যকে দোষ দেওয়া ছাড়া তাঁর আর কিছু করার নেই। কিন্তু তিনি ক্রিজে থেকে গেলেও ইনিংস কতটা টানতেন সে প্রশ্ন থেকেই যায়। পন্থ বিদায় নেওয়ার একটু পরেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন অশ্বিন।

দলের স্কোর যখন সাত উইকেটে ১৪৩, ধৈর্য হারিয়ে ফেলেন রাহানেও। উইকেটকিপারের হাতে খোঁচা দিয়ে ফেরেন তিনি। এই পরিস্থিতিতে ২০ বলে ২১ রানের ঝোড়ো একটা ইনিংস খেলে সামাল দিতে চেয়েছিলেন মহম্মদ শামি। তবে তিনিই বা কতটা টানতেন।

আরও পড়ুন বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে চমক ভারতের, পুনম যাদবের ঘূর্ণিতে কাত অস্ট্রেলিয়া

ভারত শেষ হল ১৬৫ রানে। বিরাট কোহলির নেতৃত্বকালে কোনো টেস্টের প্রথম ইনিংসে এটি ভারতের দ্বিতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। ২০১৮-এর জুলাইয়ে লর্ডসে ১০৭-এ শেষ হয়ে গিয়েছিল ভারতীয় ব্যাটিং।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.