plunkett celebrates pandya's wicket

ইংল্যান্ড: ৩২২-৭ (রুট ১১৩ অপরাজিত, মর্গ্যান ৫৩, কুলদীপ ৩-৬৮)

ভারত: ২৩৬ (রায়না ৪৬, কোহলি ৪৫, ধোনি ৩৭, প্লুঙ্কেত ৪-৪৬)

লন্ডন: সচিন-সৌরভ-দ্রাবিড়ের পর দশ হাজার রানের এলিট ক্লাবে জায়গা করে নিলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। বিশ্বের দ্বাদশ এবং ভারতের চতুর্থ ক্রিকেটার হিসাবে তাঁর এই সাফল্য। কিন্তু মাহির এই ব্যক্তিগত সাফল্য ভারতের ক্ষেত্রে কোনো দলগত সাফল্য আনল না। দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে কার্যত আত্মসমর্পণ করল ভারত। সিরিজে সমতা ফেরাল ইংল্যান্ড।

৩২৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে গিয়ে ভারতকে কখনোই জেতার ব্যাপারে খুব আত্মবিশ্বাসী মনে হয়নি। কোনো ব্যাটসম্যানই ৫০-এর গণ্ডি পেরোতে পারেননি। সর্বোচ্চ রান সুরেশ রায়নার (৬৩ বলে ৪৬), তার পরেই অধিনায়ক কোহলি (৫৬ বলে ৪৫)। দশ হাজার রানের এলিট ক্লাবে ঢোকার জন্য মাহির দরকার ছিল ৩৩ রান। করলেন ৩৭। কিন্তু এ দিন তাঁর খেলা ধোনিচিত হয়নি। ৩৭ রান করার জন্য মাহি খরচ করেছেন ৫৯ বল। ভারতের ইনিংসে বলার মতো জুটি ছিল চতুর্থ উইকেটে। রায়না ও কোহলির ওই জুটিতে রান ওঠে ৮০ রান। বল হাতে সফল প্লুঙ্কেত। নির্ধারিত ১০ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে তাঁর সংগ্রহ ৪ উইকেট।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিং নেয় ইংল্যান্ড। টসে জিতে ফিল্ডিং নেওয়াটাই এখন একদিনের ক্রিকেটে রীতি হয়ে গিয়েছে। তাই শনিবার যখন টসে জিতে ইংল্যান্ড অধিনায়ক ব্যাটিং-এর সিদ্ধান্ত নিলেন তখন অনেকেরই ভ্রূ কুঁচকেছিল। এই ম্যাচে ইংল্যান্ড ব্যাটিং-এর কাছে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ ছিল। প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল ট্রেন্টব্রিজের থেকে ব্যাটিং পারফরম্যান্সকে আরও ভালো করা। দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জটি ছিল কুলদীপ যাদবকে সামলানো।

প্রথম চ্যালেঞ্জটা ইংল্যান্ড যে সাফল্যের সঙ্গে মোকাবিলা করেছে সেটা স্কোরবোর্ড দেখেই বোঝা যাচ্ছে। দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জটায় অবশ্য সাফল্য আসত না যদি না জো রুট এ দিন দুর্ধর্ষ একটা ইনিংস খেলতেন। ইংল্যান্ডের ওপেনাররা এ দিনও ভালো শুরু করেছিলেন বটে, কিন্তু যথারীতি কুলদীপের স্পিনের জালের ফেঁসে যান। দ্রুত দু’উইকেট হারানোর পরে কুলদীপের ধাক্কা সামলান মর্গ্যান এবং রুট। তবে মর্গ্যান আউট হয়ে যাওয়ার পরে ইংল্যান্ড ইনিংস ভাঙতে শুরু করে।

একটা সময় এমন হয়েছিল যখন মনে হচ্ছিল আগের দিনের মতো এ দিনও অলআউট হয়ে যাবে ইংল্যান্ড। তখনই ম্যাচ ধরেন রুট এবং ডেভিড উইলি। মূলত বাঁ হাতি জোরে বোলার উইলির ঝোড়ো ইনিংসের সুবাদেই তিনশোর গণ্ডি পেরিয়ে যায় ইংল্যান্ড। অন্য দিকে অসাধারণ শতরান করে অপরাজিত থাকেন রুট।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here