উল্লাস! ছবি: আইসিসি

অস্ট্রেলিয়া: ১৫৮-৪ (১৭ ওভার) (ম্যাক্সওয়েল ৪৬, লিন ৩৭, কুলদীপ ২-২৪)

ভারত: (লক্ষ্য ১৭৪) ১৬৯-৭ (ধাওয়ান ৭৪, কার্তিক ৩০, জ্যাম্পা ২-২২) 

ব্রিসবেন: পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি২০ ম্যাচ হেরে আসা অস্ট্রেলিয়া জিতে গেল ভারতের বিরুদ্ধে! খবরটা করলেও লাগলেও, ঘটনাটা সত্যি! বহু দিন পরে বাঘা দলকে হারিয়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। সেই সঙ্গে প্রশ্ন উঠে গেল, অস্ট্রেলিয়াকে হালকা করে নেওয়ার খেসারতই কি দিতে হল ভারতকে?

ব্রিসবেনের আবহাওয়াটা অনেকটা কলকাতার গরমকালের আবহাওয়ার মতো। সারা দিন ছড়ি ঘোরাবে রোদ। তার পর বিকেল হলেই নামবে স্বস্তির ঝড়বৃষ্টি। এ দিনও সে রকমই হল। সেই বৃষ্টির জন্য ভারতের লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে গেল এক ধাক্কায় ১৫ রান।

১৭ ওভারে অস্ট্রেলিয়া শেষ করেছিল ১৫৮ রানে। অর্থাৎ লক্ষ্যমাত্রা হওয়া উচিত ছিল ১৫৯। কিন্তু ভারত যখন ব্যাট করতে নামল, দেখা গেল ভারতকে জয়ের জন্য করতে হবে ১৭৪। এটা নতুন কোনো বিতর্কের জন্ম দেবে কি না সেটা পরেই জানা যাবে অবশ্য। কিন্তু বুধবার যেটা দেখা গেল, তা হল বহু দিন পর অস্ট্রেলিয়ার জ্বলে ওঠা।

বিগত কয়েক মাস অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ড খুবই খারাপ। টেস্ট, এক দিনের ম্যাচ তো বটেই, তথৈবচ পারফরম্যান্স টি২০-তেও। কিন্তু সাম্প্রতিক অতীতের সেই অভিজ্ঞতা ঝেড়ে ফেলে নতুন উদ্যমে নেমেছিল অজিরা। এবং কেল্লা ফতে। দুই ওপেনার শর্ট এবং ফিঞ্চ দ্রুত আউট হয়ে যাওয়ার পর তাণ্ডব শুরু করেন লিন। কেকেআর ভক্তরা লিনের এমন তাণ্ডব অনেক দেখেছেন। লিনের পরে জ্বলে ওঠেন ম্যাক্সওয়েল। লিন এবং ম্যাক্সওয়েলের দাপটে খড়কুটোর মতো ভেঙে পড়ে ভারতীয় বোলাররা। সব থেকে বেশি মার খান ক্রুনাল পাণ্ড্য এবং খলিল আহমেদ।

আরও পড়ুন অভাবনীয় কিছু না ঘটলে বিশেষ আশা নেই বাংলার

১৭৪-এর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে খেলতে নেমে অবশ্য বিশেষ বিচলিত মনে হয়নি ভারতকে। শুরুটা দারুণ করেছিলেন শিখর ধাওয়ান। উলটো দিকে ব্যাটসম্যানদের তরফ থেকে বিশেষ সাহায্য তিনি পাননি। রোহিত শর্মা, কেএল রাহুল, বিরাট কোহলিরা রান পাননি, কিন্তু ধাওয়ান কোনো কিছুতেই বিচলিত ছিলেন না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে যেখানে শেষ করেছিলেন, সেখান থেকেই এ দিন শুরু করেন তিনি।

ধাওয়ানের তাণ্ডবের কোনো উত্তরই খুঁজে পাচ্ছিলেন না অজি বোলাররা। শুধু অপর প্রান্তের ব্যাটসম্যানদের তুলে নিচ্ছিলেন তাঁরা। কিন্তু ধাওয়ান ফিরে যাওয়ার পরেই হঠাৎ করে চাপে পড়ে যায় ভারত। একটা সময়ে ভারতের জেতার জন্য ৪ ওভারে দরকার ছিল ৬০। ঠিক যখন জয়ের গন্ধ দেখতে পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া, তখনই ঋষভ পন্থ এবং দীনেশ কার্তিকের হাত ধরে ম্যাচে ফেরে ভারতে। ১৪তম ওভারে ২৫ রান তোলে এই জুটি। পরের ওভারে আসে ১১। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। হার দিয়ে অস্ট্রেলিয়া সফর শুরু করতে হল ভারতকে।

এই হার একটা বড়ো শিক্ষা দিয়ে গেল ভারতকে। এখনও এই সিরিজ জেতার সুযোগ রয়েছে ভারতের। কিন্তু পরের ম্যাচ থেকে অস্ত্রেলিয়াকে কোনো ভাবেই হালকা ভাবে নিলে চলবে না ভারতকে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here