india vs england
যখন তাণ্ডব চালাচ্ছেন বুমরাজ। ছবি: আইসিসি টুইটার

ভারত: ৩২৯ এবং ৩৫২-৭

ইংল্যান্ড: ১৬১ এবং ৩১১-৯ (বাটলার ১০৬, স্টোক্স ৬২, বুমরাহ ৫-৮৫)

ওয়েবডেস্ক: সব ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীর প্রার্থনা এখন একটাই। বুধবার ট্রেন্টব্রিজে বৃষ্টি যেন না আসে। বিদেশের মাঠে অন্যতম একটা স্মরণীয় জয়ের থেকে মাত্র একটা উইকেট দূরে ভারত। সেই উইকেটটা নেওয়ার জন্য বুধবার মাঠে নামতে হবে ভারতকে।

ভারতীয় বোলারদের সেই পুরোনো রোগটাই ফিরে এসেছিল! এজবাস্টনে ভারতের হেরে যাওয়ার পেছনে একটা গুরুত্বপূর্ণ কারণ ছিল ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসের তিনটে উইকেট দ্রুত তুলতে না পারা। তেমনই এখানেও যখন মনে হচ্ছিল ভারতের জিতে যাওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা তখন ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান এমন গেঁড়ে বসলেন যে তাঁদের ফেরাতেই কালঘাম ছুটে গেল বোলারদের।

অথচ দিন শুরুর প্রথম দেড় ঘণ্টা ভারতীয় শিবিরে ছবিটা সম্পূর্ণ অন্য রকম ছিল। একে একে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছেন চার জন। স্কোরবোর্ডে তখন সবে ৬৪। এই পরিস্থিতিতে হঠাৎ করে ভোঁতা হয়ে গেল বোলারদের ধার। না কাজ করল ইশান্ত-শামি-বুমরাহ-পাণ্ড্যদের পেস, না কাজে দিল অশ্বিনের স্পিন। এই সুযোগ নিয়ে দুর্ধর্ষ জুটি তৈরি করলেন জস বাটলার এবং বেন স্টোক্স।

এ দিনের শুরুতেই ইশান্তকে স্লিপে খোঁচা দিয়ে ফিরে যান ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার জেনিংস এবং কুক। তার পর মধ্যাহ্নভোজনের কিছুক্ষণ আগেই পোপ এবং রুটকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান যথাক্রমে বুমরাহ এবং শামি। কিন্তু তার পরেই ক্রিজে জমে যান বাটলার এবং স্টোক্স।

এই জুটি চলাকালীন বেশ কয়েক বার স্লিপে ক্যাচ উঠেছিল, কিন্তু ফিল্ডারদের হাত পর্যন্ত পৌঁছোতে পারেনি সেই বল।

ক্রিজে পুরোপুরি জমে গিয়েছেন দু’জনে। দুর্ধর্ষ শতরান করেছেন বাটলার, অর্ধশতরান করে ফেলেছেন স্টোক্স, ঠিক তখনুই ত্রাতা হিসেবে উদয় হলেন বুমরাহ। বাটলারকে এলবিডব্লিউ করার পরের বলেই বোল্ড করলেন বেয়ারস্টোকে। তাঁর একটা স্পেলেই লড়াই কার্যত শেষ হয়ে গেল ইংল্যান্ডের। একাই তুলে নিলেন পাঁচটা উইকেট। কিছুক্ষণ আগে যে প্রতিরোধ গড়ে উঠেছিল ইংল্যান্ড শিবিরে সব উধাও।

তবুও বলতে হয় বুমরাহরই দোষে তাড়াতাড়ি ম্যাচ শেষ করতে পারল না ভারত। তাঁর পুরোনো দোষ, নো-বলে উইকেট নেওয়া। এ বারও সে রকম করলেন তিনি। ফলে নবম উইকেটে জুটি তৈরি গেল রশিদ এবং ব্রডের মধ্যে। দিনের শেষ বেলায় ব্রডের উইকেট পড়লেও দশম উইকেট আর তুলতে পারল না ভারত। বুধবার কত তাড়াতাড়ি ইংল্যান্ডের শেষ উইকেটটা পড়ে, সেটাও দেখার।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন