ফলো-অন এড়াতে ভারতের দরকার ১২২ রান, হাতে ৪ উইকেট

0

ইংল্যান্ড: ৫৭৮ (রুট ২১৮, সিবলে ৮৭, স্টোকস ৮২, বুমরাহ ৩-৮৪, অশ্বিন ৩-১৪৬)

ভারত: ২৫৭-৬ (পন্থ ৯১, পুজারা ৭৩, সুন্দর ৩৩ নট আউট, বেস ৪-৫৫, আর্চার ২-৫২)

Loading videos...

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ফলো-অন করার ভ্রূকুটি এখনও ভারতের সামনে। যে পরিকল্পনা করে জো রুট ডিক্লেয়ার না করে পুরো ইনিংস টেনে নিয়ে গেলেন সেই উদ্দেশ্য সফল হল কি না, তা সোমবার বোঝা যাবে। তবে ভারতের বিপদ এখনও কাটেনি। উইকেটে রয়েছেন সুন্দর আর অশ্বিন। হাতে রয়েছে ৪ চার উইকেট। ফলো-অন এড়াতে এখনও সরকার ১২২ রান।

ইংল্যান্ডের অধিনায়কের মনোবাঞ্ছা ছিল দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট না করা। তাই অনেকেই যখন অপেক্ষা করছেন কখন ইংল্যান্ড ডিক্লেয়ার করে, রুট কিন্তু সেই পথেই গেলেন না। রবিবার তৃতীয় দিন সকালেও ২ উইকেট হাতে নিয়ে ব্যাট করতে নামল ইংল্যান্ড। আগের দিনের স্কোরের সঙ্গে আর ২৩ রান যোগ করে শেষ হল ইংল্যান্ডের ইনিংস।

এ দিন খেলা শুরু হওয়ার ২৫ মিনিট পর নবম উইকেট খোয়াল ইংল্যান্ড। তৃতীয় নতুন বল নিয়ে ডম বেসকে এলবিডব্লিউ করেন জসপ্রীত বুমরাহ। দলের রান গিয়ে দাঁড়ায় ৫৬৭। বেসের রান ৩৪। জ্যাক লিচকে সঙ্গ দিতে নামেন জেমস অ্যান্ডারসন।

অ্যান্ডারসনকে বোল্ড করে ইংল্যান্ডের শেষ উইকেট তুলে নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড করল ৫৭৮ রান। বুমরাহ ও অশ্বিন ৩টি করে উইকেট তুলে নিলেন। ২টি করে উইকেট নিলেন ইশান্ত ও নবাগত নাদিম।

ভারতের শুরুতে বিপর্যয়

ভারতের শুরুটা কিন্তু ভালো হয়নি। মোটামুটি নিয়মিত ভাবে উইকেট পড়তে থাকে তাদের। শুরুতেই ভয়ংকর হয়ে ওঠেন জোফ্রে আর্চার। ৪৪ রানের মধ্যে ২টি উইকেট তুলে নেন তিনি। ১৯ রানের মাথায় আউট হলেন রোহিত শর্মা। নিজস্ব ৬ রানের মাথায় আর্চারের বলে বাটলারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিলেন তিনি।

অপর ওপেনার শুভমান গিল আউট হলেন দলের ৪৪ রানের মাথায়। যে মুহূর্তে মনে হচ্ছিল তিনি বোধহয় একটু থিতু হচ্ছেন, ঠিক তখনই বিদায়। তিনিও আর্চারের শিকার। মিড অনে বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে দুর্দান্ত ক্যাচ নিলেন অ্যান্ডারসন। গিলের রান ২৯।

চেতেশ্বর পুজারার সঙ্গী হন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। পুজারা তাঁর স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিমায় খেলা চালিয়ে যেতে থাকেন। কিন্তু বিরাটকে আজ খুব একটা স্বচ্ছন্দ মনে হয়নি। শেষ পর্যন্ত নিজস্ব ১১ রানের মাথায় বেসের বলে পোপের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন তিনি। ভারতের রান গিয়ে দাঁড়ায় ৭১-৩।

পুজারারকে সঙ্গ দিতে নামেন ভারতের সফল অস্থায়ী অধিনায়ক অজিঙ্ক রাহানে। কিন্তু তিনিও কিছু করতে পারলেন না। দলের রানের সঙ্গে আর ২ রান যোগ হতেই তাঁর বিদায়। মাত্র ১ রান করে বেসের বলে রুটের হাতে ক্যাচ দিলেন তিনি। এ বার পুজারার সঙ্গী ঋষভ পন্থ।

হাল ধরেন পুজারা-পন্থ

গোড়ার গোটা কয়েক বল একটু দেখে খেলেন পন্থ। তার পরেই নিজের মূর্তি ধরেন। টেস্ট খেলছেন না টি২০ খেলছেন, বোঝা যায় না। ভারতের ইনিংসের ৩৬তম ওভারে পুজারাকে টপকে যান পন্থ। ৩৬ ওভারের পর ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১২৯। পুজারা ৯৫ বলে ৩৯ রান এবং পন্থ ৩০ বলে ৪৩ রান।

৪০তম ওভারটি করতে আসেন জ্যাক লিচ। সেই ওভারের প্রথম বলে চার মেরে নিজের অর্ধশত রান পূর্ণ করেন পুজারা। ওই একই ওভারের পঞ্চম বলে পন্থ বাউন্ডারির বাইরে বল পাঠিয়ে অর্ধশত রান পূর্ণ করেন পন্থ। ৪ উইকেটে ১৫৪ রান করে ভারত চা-পানের বিরতিতে যায়।   

পুজারা-পন্থ জুটি ধীরে ধীরে শত রানের দোরগোড়ায় পৌঁছে যায়। ৪৬.৪ বলে জুটির ১০০ রান পুর্ণ হয়। দলের স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ১৭৬ রান। এর মধ্যে পন্থের সংগ্রহ ৬৮ এবং পুজারার সংগ্রহ ৩৮ রান।

এই জুটি দলকে এগিয়ে নইয়ে যেতে থাকে। রানের হিসাবে কখনও পন্থ এগিয়ে যান তো কখনও পুজারা। এই জুটির কাছ থেকে ভারত যখন আরও বড়ো রান প্রত্যাশা করছিল, ঠিক সেই সময়ে আবার পতন। নিজের ৭৩ রানের মাথায় বেসের বলে বার্নস-এর হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন পুজারা। দলের রান ৫ উইকেটে ১৯২।

সেঞ্চুরি হাতছাড়া পন্থের

পন্থের সঙ্গী হন ওয়াশিংটন সুন্দর। ক্রমশ শত রানের দিকে এগিয়ে যেতে থাকেন পন্থ। কিন্তু ফের অভিজ্ঞতার অভাবের শিকার হন তিনি। মাত্র ৯ রানের জন্য সেঞ্চুরি মাঠেই রেখে আসেন পন্থ। ইনিও বেসের বলে প্যাভিলিয়নের পথ দেখেন। ক্যাচ ধরেন লিচ। নিজের ৯১ রানে বিদায়, দলের রান ৬ উইকেটে ২২৫।

ইনিংসের হাল ধরতে মাঠে নামেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সুন্দর ও অশ্বিন ধীরে ধীরে দলকে বিপন্মুক্ত করার চেষ্টা করেন। দিনের শেষে ভারতের রান ৬ উইকেটে ২৫৭। সুন্দর ব্যাট করছেন ৩৩ রানে এবং অশ্বিন ৮ রানে।

আরও পড়ুন: টেনিস কিংবদন্তি আখতার আলি প্রয়াত                   

                    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.