স্বচ্ছন্দ গতিতে উঠছে রান। খুশিতে উচ্ছ্বসিত রোহিত ও রাহুল। ছবি সৌজন্যে বিসিসিআই।

ভারত: ৩৮৭-৫ (রোহিত ১৫৯, রাহুল ১০২,আইয়ার ৫৩, কটরেল ২-৮৩)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২৮০ (হোপ ৭৮, পুরান ৭৫, শামি ৩-৩৯, কুলদীপ ৩-৫২)

বিশাখাপত্তনম: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে একদিনের ম্যাচের সিরিজের আকর্ষণ জিইয়ে রাখার দরকার ছিল। ভারত বুধবার সেটাই করল। এ দিন বিশাখাপত্তনমে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে গুঁড়িয়ে দিল ভারত। তিন ম্যাচের সিরিজ এখন ১-১।

রোহিত আর রাহুলের জোড়া সেঞ্চুরির দৌলতে ভারত পৌঁছে যায় ৫ উইকেটে ৩৮৭ রানে। ৩৮৮ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে গিয়ে ২৮০ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ভারতের দুই সফল বোলারের এক জন কুলদীপ যাদব হ্যাটট্রিক করেন আর ওপর বোলার শামি অল্পের জন্য হ্যাটট্রিক পাওয়া থেকে বঞ্চিত হন।

টসে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক কায়রন পোলার্ড ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান। ভারতের এই ব্যাটিং লাইন-আপ চাইলে কী করতে পারে তা এ দিন হাতেনাতে দেখিয়ে দিল। প্রথম উইকেটের জুটি টিকে থাকল ৩৭ ওভার পর্যন্ত। ৩৭তম ওভারের শেষ বলে জুটি ভাঙল। ততক্ষণে স্কোর বোর্ডে উঠে গিয়েছে ২২৭ রান।

কে এল রাহুল ১০২ রান করে জোসেফের বলে চেজের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। রোহিতকে সঙ্গ দিতে নামেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিন বল পরেই কোহলি ফিরে যান শূন্য হাতে, পোলার্ডের বলে সেই চেজকে ক্যাচ দিয়ে।

আরও পড়ুন: অবসর ভেঙে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন এবি ডেভিলিয়ার্স?

শেষ সাড়ে ১২ ওভারে ভারত ব্যাটিং-এ ঝড় তোলে। ওঠে ১৫৫ রান। রোহিত শেষ করেন ১৫৯-এ, শ্রেয়স আইয়ার ৫৩ এবং ঋষভ পন্থ ৩৯ রান। রান ওঠার গতি দেখেই বোঝা যাচ্ছে ওয়েস্ট ইডিজের বোলাররা ভারতের ব্যাটসম্যানদের কখনোই তেমন বিপাকে ফেলতে পারেননি।

পোলার্ডবাহিনীর হেটমেয়ার আর লিউইস শুরুটা মন্দ করেননি। যদিও রান ওঠার গতি বেশ মন্থর ছিল। প্রথম উইকেট পড়ে ৬১ রানে। শার্দূল ঠাকুরের বলে আইয়ারের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন লিউইস। এর পর ২৫ রানের ব্যবধানে ৩টি উইকেট পড়ে যায়।

দলের হাল ধরেন হোপ আর পুরান। তাঁরা যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন, ততক্ষণ মনে হচ্ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ একটা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করছে। কিন্তু এর পরেই বড়ো ধাক্কা। পর পর দু’ বলে শামি ফিরিয়ে দিলেন পুরান আর পোলার্ডকে। ২৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে পুরানকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান শামি। ক্রিজে আসেন পোলার্ড। পরের বলেই পোলার্ডের প্রস্থান। শামির বলে উইকেটকিপারের হাতে ক্যাচ। শামিকে হ্যাটট্রিক থেকে বঞ্চিত করলেন হোল্ডার।

শামি পেলেন না, কিন্তু কুলদীপ পেলেন। হ্যাটট্রিক করার গৌরব। ৩৩তম ওভারের চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ বলে একে একে ফিরে গেলেন হোপ, হোল্ডার ও জোসেফ। দল তখন ৭ উইকেটে ২১০। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হার তখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। কিমো পলের ব্যাটিং (৪২ বলে ৪৬) দলের পরাজয়কে একটু দেরিতে ডেকে আনল।               

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন