বুমরাহের বিধ্বংসী বোলিংয়ে রেকর্ড জয় ভারতের, এল ৬০ পয়েন্টও

0

ভারত: ২৯৭ ও ৩৪৩-৭ ডিঃ (রাহানে ১০২, বিহারী ৯৩, চেজ ৪-১৩২)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২২২ ও ১০০ (রোচ ৩৮, বুমরাহ ৫-৭)

আন্টিগা: যশপ্রীত বুমরাহের বিধ্বংসী স্পেলে ধূলিসাৎ হয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিদেশের মাঠে রেকর্ড জয় পেল বিরাটবাহিনী।

রবিবার আন্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ টপ অর্ডারকে একার হাতে সাবড়ে দেন বুমরাহ। তাঁর বিধ্বংসী প্রথম স্পেল সামলাতেই হিমশিম খায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে চা-বিরতির সময়ে ক্যারিবিয়ানদের স্কোর ছিল পাঁচ উইকেটে ১৫। ৪১৯ রানের টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে কোনো দলের স্কোর এই রকম হলে, তাদের ভাগ্যে কী আছে বলাই বাহুল্য। তাই বাকি কাজটা নিয়মরক্ষার হয়ে দাঁড়ায়।

১১তম টেস্টেই এই নিয়ে চতুর্থ বার পাঁচ বা তার বেশি উইকেট নিলেন বুমরাহ। সেই সঙ্গে বুমরাই এশিয়ার প্রথম বোলার হলেন, যিনি সাউথ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজে পাঁচ উইকেট নিলেন। বুমরাহ ছাড়াও, বাকি পাঁচ উইকেটের মধ্যে ইশান্ত তিনটে এবং শামি দু’টি উইকেট নেন।

আরও পড়ুন স্টোকসের অবিশ্বাস্য ইনিংসে ভর করে ইতিহাস গড়ল ইংল্যান্ড

তবে বুমরাহ-শো শুরু হওয়ার আগে রবিবার চতুর্থ দিনের সকালটা ছিল অজিঙ্ক রাহানে এবং হনুমা বিহারীর। বিশেষ করে রাহানের কাছে গুরুত্ব ছিল অনেক বেশি। পাক্কা দু’ বছর পর শতরান করলেন রাহানে। ২০১৭-এর আগস্টে শ্রীলঙ্কায় শতরানের পর ফর্ম হারিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। সেই ফর্ম কিছুটা ফিরে পান, গত বছর আগস্টে ইংল্যান্ড সফরে। কিন্তু বড়ো রান করলেও কিছুতেই শতরানের ধারেকাছে পৌঁছোনো হচ্ছিল না তাঁর। এ দিন সেটাই হল।

রাহানের শতরানের পর কার্যত ঝোড়ো একটি ইনিংস খেলে যান হনুমা বিহারী। মাত্র ১২৮ বলে ৯৩ রান করেন তিনি। এই ইনিংসের সুবাদে ভারতীয় দলে নিজের জায়গাটিও পাকা করে ফেললেন বিহারী। রাহানের আর বিহারীর এই ইনিংসগুলির সুবাদে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৪১৯ রানের টার্গেট দেয় ভারত।

৩১৮ রানে জিতে এশিয়ার বাইরে সব থেকে বড়ো জয় পেল ভারত। তবে ভারত তাদের টেস্ট ইতিহাসে সব থেকে বড়ো জয় পেয়েছিল ২০১৫-তে। দিল্লিতে সাউথ আফ্রিকাকে ৩৩৬ রানে হারিয়েছিল তারা। এই জয়ের সুবাদে ৬০ পয়েন্ট পেয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষস্থানে পৌঁছে গেল ভারত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here