ওয়েবডেস্ক: অর্ধশতাব্দী ধরে ভারতের ক্রিকেটপ্রেমী ও কুইজপ্রেমীদের কাছে বড়ো প্রিয় এই তথ্যটি। না শুধু তথ্যটি বললে হবে না। বলতে হবে তথ্যগুলি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য অর্থাৎ এক ইনিংসে জোড়া হ্যাটট্রিকের খবরটা তো আপনারা পেয়ে গেছেন শিরোনাম থেকেই। কিন্তু সেটাই শেষ নয়। সঙ্গে বলা দরকার, সেই ম্যাচটি ছিল ওই বোলারের জীবনের দ্বিতীয় প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। তার আগের ম্যাচে অর্থাৎ তাঁর অভিষেক ম্যাচে ওই ডানহাতি মিডিয়াম পেসার আরেকটি হ্যাটট্রিক করেছিলেন। অর্থাৎ জীবনের প্রথম দুই প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ম্যাচে তিনটি হ্যাটট্রিকের একমাত্র রেকর্ড রয়েছে তাঁর দখলে।

কে তিনি?

যোগিন্দর সিং রাও। যোগিন্দর এই কাণ্ডটি ঘটিয়েছিলেন ১৯৬৩-৬৪ রঞ্জি মরশুমে। তিনি খেলতেন সার্ভিসেস দলের হয়ে। সে সময় ভারতীয় সেনাবাহিনীতে ক্যাপ্টেন পদে কর্মরত ছিলেন তিনি। ১৯৬৩ সালের নভেম্বরে সার্ভিসেসের হয়ে জম্মু ও কাশ্মীরের বিরুদ্ধে অভিষেক হয় তাঁর। যোগিন্দরের হ্যাটট্রিক সহ ৬ উইকেটের ধাক্কায় জম্মু ও কাশ্মীরের প্রথম ইনিংস শেষ হয় মাত্র ৪৯ রানে। দইতীয় ইনিংসে আরও দুটি উইকেট পান যোগিন্দর। জীবনের প্রথম প্রথম শ্রেণির ম্যাচে তাঁর বোলিং পারফরম্যান্স দাঁড়ায় ২৬-১২-৩৫-৮। এ পর্যন্ত প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেকে হ্যাটট্রিক করেছেন ১৭ জন বোলার। তাঁদের মধ্যে ৬ জন ভারতীয়। সে সময় যোগিন্দর ছিলেন দ্বিতীয় ভারতীয়। সেই ম্যাচটি ইনিংসে জেতে সার্ভিসেস।

সার্ভিসেসের পরের ম্যাচটি ছিল নর্দার্ন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৫ ওভার বল করে কোনো উইকেট পাননি যোগিন্দর। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের শেষে ২০০ রানের লিড নিয়ে প্রথম ইনিংস শেষ করে সার্ভিসেস। আর তৃতীয় দিনের শুরুতেই শুরু হয় যোগিন্দরের ম্যাজিক। নর্দান পঞ্জাবের প্রথম তিনটি উইকেট নেন তিনি, হ্যাটট্রিক করে। শেষের দিকে আরও একটা হ্যাটট্রিক। ইনিংসে ৩০ রান দিয়ে ৭ উইকেট নেন তিনি। সেটা ছিল ৩০ নভেম্বর।

কিন্তু ওই মরশুমে পাঁচটি ম্যাচ খেলার পর আর ক্রিকেট খেলেননি যোগিন্দর রাও। সেনাবাহিনীর একটি প্যারাশুট ট্রেনিং-এ চোট পয়ে ক্রিকেট ছাড়তে হয় তাঁকে। যদিও খেলা ছাড়েননি তিনি। শুরু করেন গল্‌ফ খেলা। গলফে পাকিস্তান ও ফ্রান্সে দেশের প্রতিনিধিত্বও করেন যোগিন্দর। সেনাবাহিনীতে মেজর জেনারেল অবধি হয়েছিলেন। অংশ নিয়েছিলেন ১৯৬৫ ও ১৯৭১ সালের পাকিস্তান যুদ্ধে।

১৯৯৪ সালে নিজের ৫৬তম জন্মদিনের ১৩দিন আগে মৃত্যু হয় যোগিন্দর রাওয়ের।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here