কেকেআরের অন্দরমহল নিয়ে চাঞ্চল্যকর খবর ফাঁস করলেন রাসেল

রাসেল বলেন, টিমের পরিবেশ সুস্থ নয়। তাই তিনি নিজেকে ড্রেসিং রুমেই আবদ্ধ রাখতেন পছন্দ করেন।

0
andre russell
আন্দ্রে রাসেল। ছবি সৌজন্যে ডিএনএ।

স্পোর্টস ডেস্ক: আইপিএলের এই মরশুমে প্রায় একা হাতে কেকেআরকে জিতিয়েছেন বেশ ক’টা ম্যাচ। সেই আন্দ্রে রাসেল শেষ ছ’টা গেমে দলের হারে বেশ হতাশ। দলের ‘ভুল সিদ্ধান্তে’ তিনি খেদ প্রকাশ করেছেন।

এ বারের আইপিএলে কেকেআর যে চারটে ম্যাচ জিতেছে, তার মধ্যে তিনটিতেই ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হয়েছেন রাসেল। অথচ সেই রাসেলকে যোগ্য সম্মান দেওয়া হচ্ছে না।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপ দলের প্লেয়ার রাসেল শনিবার বলেন, “আমাদের টিম বেশ ভালো। কিন্তু তুমি যদি খারাপ সিদ্ধান্ত নাও, তা হলে তোমাকে হারতে হবে। আর ঠিক এই ব্যাপারটাই ঘটছে। আমাদের যদি যথেষ্ট সময় থাকত, তা হলে আমি কয়েকটি ম্যাচ ধরে হিসাব করে বুঝিয়ে দিতাম কোথায় আরও চেপে বোলিং করলে কিংবা সঠিক সময়ে সঠিক বোলার আনলে আমরা জিততে পারতাম।”

রবিবারই মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সঙ্গে খেলা কেকেআরের। ঠিক তার প্রাক্কালে রাসেল বলেন, “পেশাদার ক্রিকেটার হিসাবে এই পজিশনে থাকাটা খুব স্বাস্থ্যকর ব্যাপার নয়। দলীয় সিদ্ধান্তের কথা যদি বলেন তা হলে বলব, ভুল সময়ে ভুল বোলিং করা হচ্ছে, যার ফলে আমরা খুব সহজেই হারছি।” উল্লেখ্য, আইপিএলে এ পর্যন্ত ২৩ বার মুখোমুখি হয়েছে কেকেআর ও মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। এর মধ্যে মাত্র পাঁচ বার জিতেছে কেকেআর, ১৮ বার মুম্বই।

‘দুর্বল’ রাজস্থানের বিরুদ্ধে ১৭৬ রান করেও হেরে যাওয়ায় বেশি করে ব্যথিত রাসেল। জ্যামাইকার এই ব্যাটসম্যান এ বারের আইপিএলে ১০ ম্যাচে ৪০৬ রান করেছে, তাঁর স্ট্রাইক রেট অবিশ্বাস্য ২০৯.২৭।

রাসেল বলেন, “রাজস্থান রয়্যালসের মতো দুর্বল ব্যাটিং অর্ডারের টিমের কাছে হেরে গেলাম। আমাদের বোলিং দিয়ে একটা টিমকে যদি আমরা ১৭০-এর নীচে বেঁধে রাখতে না পারি, তা হলে শক্তিশালী মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে তো আমাদের অলৌকিক কিছু করতে হবে।”

“অনেকেই বলছে আমরা ব্যাটিং-এ স্ট্রাগল করছি। কিন্তু ব্যাটিং খুব একটা স্ট্রাগল করছে না। বরং আমরা যে রান খাড়া করছি, সেই রান আমাদের ডিফেন্ড করা উচিত।

“কিন্তু আপনি যখন আমাদের বোলারদের মতো খারাপ বোলিং করবেন, আপনি যখন ক্যাচ ধরবেন না, তখন… এখনও পর্যন্ত আমরাই সব চেয়ে খারাপ ফিল্ডিং টিম।”

রাসেল বলেন, টিমের পরিবেশ সুস্থ নয়। তাই তিনি নিজেকে ড্রেসিং রুমেই আবদ্ধ রাখতেন পছন্দ করেন।

রাসেল বলেন, “আমাদের একটা ভালো প্রাক্টিস সেশন পাওয়া খুব জরুরি। এটা সুনিশ্চিত করতে হবে, যা করা দরকার তা করতে হবে, বডিকে বলের লাইনে আনতে হবে, আগামী তিনটে গেমে আমাদের লক্ষ্য ঠিক রাখতে হবে।

আরও পড়ুন রাজস্থানের কাছে হার, প্রথম চারের লড়াইয়ে ধাক্কা খেল হায়দরাবাদ

“ম্যাচের পর ম্যাচ হেরে কয়েক দিন ধরে আমি নিজেকে আমার ঘরে আবদ্ধ রেখেছি। আমি সে রকম মানুষ নই যে ঘুরে বেড়াব… পর পর ছ’টা গেমে হেরে ঘুরে বেড়ানো যায় না।  

“সত্যি কথা বলতে কী, এটা খুব সুস্থকর ব্যাপার নয়। এই মুহূর্তে নিজেকে হতাশ লাগছে। কাল যখন মাঠের দড়িটা পেরোব, আমার এনার্জি লেভেল ১৫০-এ চলে যাবে। শুধু টিভিতে দেখালে চলবে না, ক্রিকেটার হিসাবে আমাদের নিজেদের ভিতরেও জেতার খিদেটা রাখতে হবে।

লসিত মালিঙ্গা, জসপ্রীত বুমরাহর মতো বোলিং অ্যাটাক নিয়ে যে দল গর্ব করে, তাদের বিরুদ্ধে কতটা উজ্জীবিত হতে পারবেন? রাসেল বলেন, তিনি কোনো দিনই কোনো বোলারকে ভয় করেন না – “আমি কোনো দিনই কোনো বোলারকে ভয় পাইনি। সত্যি কথা বলতে কী, বোলাররাও আমাকে কখনও ভয় পায় না। আমি বড়াই করছি না। আমি কাল একটা বলেই আউট হয়ে যেতে পারি, অথবা প্রথম বলটাই ছয়ে পাঠিয়ে দিতে পারি। আমি আউট হতে ভয় পাই না।”

আমি মরতে যাচ্ছি না। এটা বাঁচা-মরার প্রশ্ন নয়। তুনি রান করার চেষ্টা করবে, ওরা তোমাকে আউট করার চেষ্টা করবে। মালিঙ্গা, বুমরাহ খুব ভালো বোলার। কিন্তু ওরা তো মানুষ।”

উল্লেখ্য, কেকেআর শেষ মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে জিতেছিল চার বছর আগে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here