rashideden

ওয়েবডেস্ক: ঘরের মাঠে নাটকীয় হার কলকাতা নাইট রাইডার্সের। ফলে দ্বিতীয় প্লে-অফে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে হেরে চলতি মরশুমের জন্য আইপিএলকে বিদায় জানালেন দীনেশ কার্তিকরা। বড়ো টার্গেটকে মাথায় রেখে ৮৭/১ থেকে ১২৫/৬ করে কী ভাবে ম্যাচ হারতে হয়, তা হয়তো এদিন কলকাতাকে দেখলেই বোঝা যাবে।

এ দিন টসে জিতে হায়দরাবাদকে ব্যাট করতে পাঠান নাইট অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। ব্যাটিংয়ে শুরুটা ভালোই করে তারা। সৌজন্যে ধাওয়ান এবং ঘরের ছেলে ঋদ্ধিমান সাহা। প্রথম উইকেটে পঞ্চাশ রানের পার্টনারশিপ এই জুটির। তবে সপ্তম ওভারে ধাওয়ানকে আউট করে প্রথম ধাক্কা দেন নাইটদের অন্যতম সেরা স্পিনার কুলদীপ যাদব। প্রথম উইকেটের রেশ কাটতে না কাটতে ফের উইকেট। নতুন আসা অধিনায়ক উইলিয়ামসনকে একই ওভারে ফিরিয়ে দেন কুলদীপ। এরপরে শাকিব নিয়ে এগানোর চেষ্টা করলেও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সাহা। ওপর স্পিনার চাওলার কাছে আউট হন সাহা। চতুর্থ উইকেটে কিছুটা রান যোগের চেষ্টা করেন শাকিব এবং নতুন আসা দীপক হুড্ডা। রান আউট করে শাকিবকে ফিরিয়ে দেন কুলদীপ। একসময় মনে হচ্ছিল পাঠান, ব্রেথওয়েট, হুডাদের উইকেটে হারিয়ে দেড়শোর গণ্ডি টপকাতে হিমসিম খেয়ে যাবে হায়দরাবাদ। কিন্তু বোলিংয়ের সঙ্গে ব্যাটিংয়েও নিজের ছাপ রাখলেন রাশিদ খান। শেষদিকে তাঁর ১০ বলে দুর্দান্ত ৩৪-য়ে ভর করে ১৭৪/৭ ইনিংস শেষ করে হায়দরাবাদ।

বড়ো টার্গেটকে মাথায় রেখে শুরু থেকেই ব্যাটিং বিপ্লব কেকেআরের। সৌজন্যে লিন এবং নারিন। তবে চতুর্থ ওভারে নারিনকে আউট করে কেকেআরকে প্রথম ধাক্কা দেয় কল। উইকেট হারিয়েও রানের গতি কমেনি কলকাতার। নতুন আসা রানা কে নিয়ে এগোতে থাকেন লিন। তবে নবম ওভারে নিজের ভুলে কারণে রান আউট নীতীশ রানা। এর রেশ কাটতে না কাটতে ফের উইকেট। উত্থাপা এদিনও ফেল। যখন মনে হচ্ছিল ম্যাচ প্রায় পকেটে তখন প্রবল ভাবে ম্যাচে ফিরে আসে হায়দরাবাদ। সৌজন্যে রাশিদ খান। প্রথম ইনিংসয়ে ব্যাটিং এবং দ্বিতীয় ইনিংসয়ে বোলিং-এ চমক তাঁর। দুই বড়ো খেলোয়াড় কার্তিক এবং রাসেলকে ফিরিয়ে দিয়ে একার হাতেই ম্যাচ ঘুরিয়ে দেন তিনি। এই ধাক্কার রেশ অবশ্য আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি কলকাতা। শেষদিকে গিল, চাওলারা কিছুটা চেষ্টা করলেও, ১৩ রানে ম্যাচ হেরে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন ঘরের মাঠেই শেষ করল কলকাতা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here