প্লে-অফের একটা স্পটের জন্য লড়াই এ বার চার দলের

0

মুম্বই: ১৬২-৫ (ডি কক ৬৯ অপরাজিত, রোহিত ২৪, খালিল ৩-৪২) (সুপার ওভারে ৯-০)

হায়দরাবাদ: ১৬২-৬ (মণীশ ৭১ অপরাজিত, নবী ৩১ অপরাজিত, বুমরাহ ২-৩১) (সুপার ওভারে ৮-২)

মুম্বই: কুইন্টন ডি ককের মতো এক মারকুটে ক্রিকেটার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ব্যাট করে গিয়েও ৭০-এর গণ্ডি পেরোতে পারলেন না। কেকেআর ম্যাচে ৩৪ বলে ৯১ করা হার্দিক পাণ্ড্যও কিছু করতে পারলেন না বিশেষ। এতেই বোঝা যায় মুম্বইয়ের পিচটা বেশ স্লো ছিল। আর এই পিচেই জমে উঠল মুম্বই-হায়দরাবাদ ম্যাচ। সুপারে যাওয়া সেই ম্যাচ জিতে প্লে-অফে জায়গা করে নিল মুম্বই।

শেষ দিকে জমে উঠেছে আইপিএল। প্লে-অফে প্রথম দু’টি দল উঠে গেলেও, এখনও পরের দু’টি জায়গার জন্য বেশ কয়েক জন দাবিদার রয়েছে। সেই জায়গার অন্যতম দুই দাবিদারের মধ্যে এ দিন লড়াই, তাই সেটা যে বেশ জমে উঠবে, তা বলাই বাহুল্য।

প্রথমে ব্যাট করলেও কেমন যেন নিস্প্রভ ছিল মুম্বইয়ের ব্যাটিং। চালিয়ে খেলার তাগিদ কোনো ব্যাটসম্যানই দেখাতে পারেননি। রোহিত, সূর্যকুমার যাদবরা, শুরু করেই বড়ো স্কোর করতে ব্যর্থ। তেমনই হার্দিক পাণ্ড্যও। এই পরিস্থিতিতেই গুরুত্ব পেয়ে গিয়েছে ডি ককের ওই মন্থর ইনিংসটা। কারণ তিনি না খেললে হয়তো এই স্কোরেও পৌঁছতে পারত না মুম্বই।

১৬২-এর লক্ষ্যমাত্রা খুব একটা বেশি নয়। আর সেটা তাড়া করতে নেমে প্রথম পাঁচ ওভারের মধ্যে কোনো দল যদি ৫০ পেরিয়ে যায় তা হলে তো আরও সমস্যা হওয়ার কথাই নয়। কিন্তু দুর্দান্ত শুরু করেও যে রান তাড়া করায় ধাক্কা খেল হায়দরাবাদ।

ঋদ্ধিমান সাহাকে দিয়ে নির্দিষ্ট কারণেই ওপেন করাচ্ছে হায়দরাবাদ, এবং তিনিও সেটা অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন। শুরুতেই মারকাটারি মেজাজে ব্যাট করছেন তিনি। কিন্তু তার পর বেশি এগোতে পারছেন না। যার ফলে আগের পঞ্জাব ম্যাচে ২৮-এর পর এ দিন ২৫-এই থেমে গেল তাঁর ইনিংস। এর পর হায়দরাবাদের খোঁড়ানো শুরু। ৫ ওভারে ৫৫ থেকে ১৫ ওভারে ১০৫-এ পৌঁছল তারা।

তার পরের পাঁচ ওভারে কাজটা খুবই কষ্টকর ছিল। তবুও সেট হয়ে যাওয়া মনীশ পাণ্ডে যখন ছিলেন হায়দরাবাদের আশা ছিল। আর হায়দরাবাদ লড়ছিলও বটে! এক্কেবারে শেষ ওভার পর্যন্তও আশা ছিল তাদের। শেষ বলে ৭ রান দরকারি ছিল, এই অবস্থায় ছয় মেরে ম্যাচ সুপার ওভারে নিয়ে যান পাণ্ডে। সুপার ওভারে অবশ্য আটকে যায় হায়দরবাদ। ছ’বলে মাত্র ৮ তোলে তারা। খুব সহজেই এই রান টপকে যায় মুম্বই।

এই জয়ের পর মুম্বই প্লে-অফে তাদের জায়গা পাকা করে নিল। এখন শেষ জায়গাটির জন্যই লড়াই। কলকাতা, হায়দরাবাদ, পঞ্জাব না রাজস্থান, কে সেই জায়গা দখল করে সেটাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here