Connect with us

ক্রিকেট

আট বছরে পঞ্চম বার, মুম্বইকে ফের একবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন করে নায়ক রোহিত শর্মা

২০১৩-তে মুম্বইয়ের অধিনায়কত্বের ব্যাটন হাতে পান রোহিত। সেই থেকে পরের আট বছরে পাঁচবার দলকে চ্যাম্পিয়ন করলেন তিনি।

Published

on

দিল্লি: ১৫৬-৭ (শ্রেয়স ৬৫ অপরাজিত, পন্থ ৫৬, বোল্ট ৩-৩০)

মুম্বই: ১৫৭-৫ (রোহিত ৬৮, ঈশান ৩৩ অপরাজিত, নোর্কিয়া ২-২৫)

Loading videos...

খবরঅনলাইন ডেস্ক: জ্যোতি বসুর ব্যাপারে এক সময়ে বলা হত, ‘গ্রেটেস্ট প্রাইম মিনিস্টার ইন্ডিয়া নেভার হ্যাড।’ শেন ওয়ার্নকে বলা হয়, ‘গ্রেটেস্ট ক্যাপ্টেন অস্ট্রেলিয়া নেভার হ্যাড।’ ঠিক তেমনটা কি রোহিত শর্মার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে?

শেন ওয়ার্নের ভাগ্যের থেকে অবশ্য রোহিতের ভাগ্য ভালো। সহ-অধিনায়ক হওয়ার সুবাদে তিনি ভারতকে বেশ কয়েকটি টুর্নামেন্টে নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং ফলও পাওয়া গিয়েছে হাতেনাতে। কিন্তু পূর্ণ সময়ের অধিনায়ক হওয়ার সৌভাগ্য তাঁর কোনো দিনও হবে না। কারণ বয়স। বিরাট কোহলির থেকে অন্তত দু’ বছরের বড়ো তিনি।

অথচ রোহিতের রেকর্ড দেখুন। ২০১৩-তে মুম্বইয়ের অধিনায়কত্বের ব্যাটন হাতে পান রোহিত। সেই থেকে পরের আট বছরে পাঁচ বার দলকে চ্যাম্পিয়ন করলেন তিনি। এর মধ্যে পর পর দু’ বছর চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজির তৈরি করল মুম্বই।

নেতৃত্ব তো বটেই, ফাইনালে নিজের দলের ব্যাটিংকে যে ভাবে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন তা এক কথায় অনবদ্য। তবে প্রথমে এক্কেবারে ম্যাচের শুরু থেকেই বলা যাক।

দুবাইয়ের পিচে প্রথমে ব্যাট করা দল বরাবই বাড়তি সুবিধা পেয়েছে। ঠিক সেই কারণেই ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লির অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার। কিন্তু সেই সিদ্ধান্তটা দিল্লির কাছে বুমেরাং হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল যখন ম্যাচের প্রথম চার ওভারের মধ্যেই তিনটে উইকেট হারায় তারা।

ফাইনালের প্রথম ওভারের একদম প্রথম বল থেকেই নাটকের শুরু। দুরন্ত আউটসুইংয়ে মার্কাস স্টয়নিসকে ড্রেসিং রুমের পথ দেখান ট্রেন্ট বোল্ট। গত সপ্তাহে প্লে-অফের ম্যাচে চোট পেয়েছিলেন বোল্ট। এ দিন তাঁকে দেখে অবশ্য মনে হয়নি যে তাঁর আদৌ কোনো চোট রয়েছে। ঠিক দু’ ওভার পর ফের চমক দেন বোল্ট।

তৃতীয় ওভারেই অজিঙ্ক রাহানেকে ফিরিয়ে দেন বোল্ট। চলতি আইপিএলটা ঠিক মনের মতো গেল না রাহানের। প্রথমত তিনি বেশি সুযোগ পাননি। যা সুযোগ পেয়েছেন, তার মধ্যে একটা ম্যাচ ছাড়া সব ম্যাচেই ব্যর্থ হয়েছেন। এর পরের ওভারে শিখর ধাওয়ানকে ফেরান জয়ন্ত যাদব।

রাহুল চাহরের বদলে এ দিন জয়ন্তকে খেলিয়েছে মুম্বই। সেই সিদ্ধান্ত মাস্টারস্ট্রোক হিসেবে প্রমাণিত হয়। তবে পঞ্চম ওভার থেকে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে দিল্লি। সৌজন্যে অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার এবং ঋষভ পন্থ।

আইপিএলে রানের মধ্যে এক্কেবারেই ছিলেন না ঋষভ পন্থ। কিন্তু তাঁর ব্যাটই এ দিন জ্বলে উঠতে শুরু করে। মুম্বইয়ের বোলারদের দাপটে নড়ে যাওয়া দিল্লির ব্যাটিংকে থিতু করার দায়িত্ব দেন ঋষভ আর শ্রেয়স। প্রথম দিকে বেশি ঝুঁকি নেননি দু’ জনে। কিন্তু দশম ওভারে প্রথম বার ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসে নিজের আসল ফর্মের ঝলক দেখান পন্থ।

দশম ওভারের শেষে দিল্লির স্কোর পৌঁছে যায় তিন উইকেটে ৭৬-এ। এর পর থেকে আরও বেশি আগ্রাসী হতে শুরু করেন দু’ জনে। এই টুর্নামেন্টে ভালো রান করলেও শেষ পাঁচটা ম্যাচে ফর্মে ছিলেন না শ্রেয়স। কিন্তু মোক্ষম সময়ে এসে ফের জ্বলে উঠতে শুরু করেছে তাঁর ব্যাটও।

শ্রেয়স আর পন্থের ব্যাটে ভর করেই ১৪তম ওভারের প্রথম বলে একশো পেরিয়ে যায় দিল্লি। তার পরের ওভারেই অর্ধশতরান করে ফেলেন পন্থ। টুর্নামেন্টে প্রথম বার ৫০-এর গণ্ডি পেরোন তিনি। বার বার ব্যর্থ হওয়ার পর অনেকটাই চাপে ছিলেন তিনি।

যদিও ওই ওভারেই আউট হয়ে যান পন্থ। পুল মারতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে ধরে পড়েন তিনি। ১৫ ওভারে দিল্লির স্কোর গিয়ে দাঁড়ায় চার উইকেটে ১১৮। এর পর আরও আগ্রাসী হয়ে ওঠে দিল্লি। ছয় নম্বরে নামা শিমরান হেটমেয়ার শুরু থেকেই আগ্রাসী ছিলেন। ১৭তম ওভারে নিজের পঞ্চাশ পেরিয়ে যান শ্রেয়স আইয়ার।

তবে এর পর থেকে মুম্বইয়ের বোলাররা চাপ সৃষ্টি করতে শুরু করে। শেষের পাঁচ ওভারে যতটা আগ্রাসী হওয়া উচিত ছিল দিল্লির, সেটা সম্ভব হয়নি। আর সেই কারণে ১৫৬-তেই আটকে যায় দিল্লি। যদিও ফাইনালের পক্ষে এটা যথেষ্ট ভালো স্কোরই।

শুরু থেকেই আগ্রাসী হওয়ার পরিকল্পনা সম্ভবত করেছিল মুম্বই। আর সেই কারণে, রান তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে ছক্কা হাঁকান রোহিত শর্মা। আরও বেশি আগ্রাসী হয়ে ওঠেন কুইন্টন ডে কক। চাপমুক্ত হতে শুরু থেকেই ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে আস্থা রাখেন দু’ জনে। প্রথম তিন ওভারের মধ্যেই ৩৩ রান করে ফেলে মুম্বই।

পঞ্চম ওভারের প্রথম বলে আউট হন ডে কক। তবে ততক্ষণে স্কোরবোর্ডে ৪৫ উঠে গিয়েছে। তাঁকে ফেরান মার্কাস স্টয়নিস। যদিও তাতে বিন্দুমাত্র প্রভাব পড়েনি মুম্বইয়ের। ডে ককের ছেড়ে যাওয়া জায়গা থেকেই শুরু করেন সূর্যকুমার যাদব। প্রথম দুই বলেই একটি চার আর একটি ছক্কা হাঁকান তিনি। প্রথম ছয় ওভারে মুম্বইয়ের স্কোর চলে যায় ৬১।

পাওয়ারপ্লেতে এই পরিমাণ রান তোলার পর হিসেব অনেকটাই সহজ হয়ে আসে মুম্বইয়ের কাছে। সেই কারণে আর বাড়তি ঝুঁকি নেওয়ার প্রয়োজন ছিল না মুম্বইয়ের। তারা নেয়নি। ১১তম ওভারে সূর্যকুমার যাদব যখন আউট হন, তখন স্কোরবোর্ডে উঠে গিয়েছে ৯০। তবুও মুম্বইকে টলানো যায়নি।

রোহিতের কাছে এই ম্যাচের গুরুত্ব আরও একটা কারণে ছিল। নিজের দুশোতম আইপিএল এ দিন খেলছেন তিনি। তা সেই ম্যাচটা এর থেকে ভালো আর কী ভাবেই বা স্মরণীয় হত তাঁর কাছে! দুরন্ত একটি অর্ধশতরান করে ফেলেন তিনি।

উলটো দিকে ততক্ষণে জমে গিয়েছেন ঈশান কিষাণ। বেশি কোনো ঝুঁকি না নিয়েই নিজেদের ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন তাঁরা। তবে ১৭তম ওভারে তাল কেটে যায়। ওই ওভারের প্রথম বলে এনরিকে নোর্কিয়ার বাউন্সার সামলাতে না পেরে ড্রেসিং রুমের পথ দেখেন রোহিত।

এর পরেও খানিক নাটক অপেক্ষা ছিল। কারণ কার্যত বিনা কারণেই আউট হয়ে যায় কায়রন পোলার্ড। আবার জয়ের জন্য যখন মাত্র এক রান দরকার, তখন ফিরে যান হার্দিক পাণ্ড্য। তবে ১৯তম ওভারে জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে যায় মুম্বই। আরও একবার দলকে চ্যাম্পিয়ন করে রোহিত।

শুধুমাত্র আইপিএলের পারফরম্যান্স যদি দেখা হয়, তা হলে কিন্তু বিরাট কোহলিকে বার বার মাত করেছেন রোহিত শর্মা। এখনও করে চলেছেন। আট বছর ধরে নেতৃত্ব দিয়ে একটা দলকে পাঁচ বার চ্যাম্পিয়ন করা তো চাট্টিখানি কথা নয়।

স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করবে এ বার ভারতের সীমিত ওভারের ম্যাচগুলিতে অধিনায়কের দায়িত্ব রোহিতকে দেওয়া উচিত নয় কি?

ক্রিকেট

IPL 2021: কাজে এল না সঞ্জু স্যামসনের মহাকাব্যিক শতরান, পঞ্জাবের কাছে হারল রাজস্থান

টানটান রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ

Published

on

পঞ্জাব: ২২১-৬ (রাহুল ৯১, হুডা ৬৪, সাকারিয়া ৩-৩১)

রাজস্থান: ২১৭-৭ (সঞ্জু ১১৯, পরাগ ২৫, অর্শদীপ ৩-৩৫)

Loading videos...

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দুই উইকেটকিপার-অধিনায়কের লড়াই ছিল। দু’জনেই দুরন্ত ব্যাট করলেন। একজন শতরানের কাছাকাছি গিয়ে আউট হয়ে গেলেন তো অন্য জন শতরান করেই ফেললেন। শেষে কেএল রাহুলের পঞ্জাব কিংসের কাছে হেরে গেল সঞ্জু স্যামসনের রাজস্থান রয়্যালস।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজে কী তথৈবচ ফর্মে ছিলেন কেএল রাহুল। তাই পঞ্জাব কিংস তাদের অধিনায়কের ফর্ম নিয়ে কিছুটা চাপে তো ছিলই। কিন্তু বেশ কয়েক বছর ধরে আইপিএলের শুরুতে যে ভাবে দুরন্ত ফর্মে রাহুল শুরু করেন, সেটাই এ দিন মুম্বইয়ে করে দেখালেন। কোথায় তাঁর অফ-ফর্ম! প্রথম কয়েকটি ওভার দেখে খেলে ফেলার পরেই তাঁর ব্যাট থেকে রানের ফুলঝুরি।

রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে এ দিন অভিষেক করলেন দুই বোলার, সৌরাষ্ট্রের চেতন সাকারিয়া এবং বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমন। দুই বাঁ হাতি বোলারই প্রথম দিকে কিছুটা চাপে রেখেছিলেন রাহুল এবং পঞ্জাবের অপর ওপেনার ময়াঙ্ক অগ্রবালকে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যে অফফর্মের কবলে ময়াঙ্ক পড়েছিলেন, এ দিনও সেখান থেকে বেরোতে পারেননি। তাই তৃতীয় ওভারেই আউট হয়ে যান তিনি।

পঞ্জাবে এসে নতুন জীবন পেয়েছেন ক্রিস গেল। ওপেনারের বদলে তিনি এখন তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামেন। এ দিনও সেটাই হল। আর শুরু থেকেই বেশ আগ্রাসী ছিলেন তিনি। ৪০ রানের দুরন্ত একটি ইনিংস খেলে ড্রেসিং রুমে যখন গেল ফিরে যান ততক্ষণে তাঁর স্ট্রাইক রেট পৌঁছে গিয়েছে ১৪২-এ। তাঁর এই সংক্ষিপ্ত ইনিংসটি চারটে চার এবং দু’টি ছয়ে সাজানো ছিল।

তবে এ দিন সব নজর কেড়ে নিয়েছেন দীপক হুডা। হরিয়ানার এই মারকুটে ব্যাটসম্যান আইপিএলের ময়দানে মাঝেমধ্যেই জ্বলে ওঠেন। তবে এ দিন তিনি যা খেললেন, সেই রকম খেলতে আগে খুব একটা দেখা যায়নি। শুরু থেকেই রাজস্থানের বোলারদের মাথায় চেপে বসেছিলেন তিনি। একের পর এক ছক্কা হাঁকিয়ে বিপক্ষের ছন্দটাই নষ্ট করে দেন তিনি। কার্যত কোনো সময় না নিয়েই অর্ধশতরান পূর্ণ করে ফেলেন তিনি।

তাঁর ৬৪ রানের ইনিংসটি এসেছে মাত্র ২৮ বলে। স্ট্রাইক রেট ছিল ২২৮। চলতি আইপিএলের দ্রুততম পঞ্চাশ রানের মালিকও হয়ে গেলেন হুডা। তাঁর আউট হয়ে যাওয়ার পর নজর ছিল রাহুলের ওপরে, আরও একটা শতরান তিনি করতে পারেন কি না, সেটাই ছিল দেখার। কিন্তু অল্পের জন্য তা হয়নি। শতরান থেকে নয় রান দূরে থেকেই শেষ ওভারে আউট হয়ে যান রাহুল।

একেই পাহাড়প্রমাণ রান, তার পর বিপক্ষের শক্তিশালী বোলিং লাইনআপ, রাজস্থানের পক্ষে রানটা তারা করা খুবই চাপের ছিল। সবার নজর ছিল মহম্মদ শামির ওপরে। সুস্থ হয়ে ফিরে সেই শামিই কিন্তু রাজস্থানকে প্রথম ধাক্কাটা দেন। প্রথম ওভারেই ওপেনার বেন স্টোক্সকে ফিরিয়ে দেন তিনি।

রাজস্থান কিন্তু রান তাড়া করার চেষ্টা করেই যাচ্ছিল। শুরু থেকেই দলের রানের গতি বাড়িয়ে দিয়েছিলেন মনন ভোহরা। অন্যদিকে, অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসনও ধীরে ধীরে নিজের ছন্দে আসছিলেন। তিনি তারা উইকেটও হারিয়ে ফেলছিল বার বার।

অষ্টম ওভারের মধ্যে তিনটে উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। যদিও তখনও রানরেট ছিল দশে। এখান থেকে ম্যাচে ফিরে আসার চেষ্টা করতে শুরু করে রাজস্থান। স্যামসন তো ছিলনই, সেই সঙ্গে রানের গতি বাড়াতে শুরু করেন শিবম দুবেই। দুবে এবং স্যামসনের মধ্যে দুরন্ত একটি জুটি শেষ হয় ১৩তম ওভারে। ততক্ষণে অর্ধশতরান পেরিয়ে গিয়েছেন স্যামসন।

১৪ ওভারের পর থেকে ম্যাচের রাশ পুরোপুরি নিজেদের দিকে নিয়ে চলে আসেন রাজস্থান। ক্রিজে ততক্ষণে জমে গিয়েছেন স্যামসন। কিন্তু ছয় নম্বর নামা অসমের রিয়ান পরাগ পর পর ছক্কা মেরে ম্যাচের পরিস্থিতি রাজস্থানের জন্য অনেকটাই শহর করে দেন। ১৭তম ওভার যখন শুরু হচ্ছে তখন রাজস্থানের দরকার ৪৮, আহামরি কিন্তু বেশি নয়। তবে ওই ওভারের দ্বিতীয় বলেই পরাগকে ফিরিয়ে দিয়ে পঞ্জাবকে ফের ম্যাচে নিয়ে আসেন শামি।

যদিও স্যামসনের দাপটের কাছে পঞ্জাবের বোলাররা ম্লান হয়ে যাচ্ছিলেন। ১৮তম ওভারে স্যামসন যখন শতরান করেন, রাজস্থানের তখন দরকার ১৫ বলে ২৬। পরিস্থিতি অনেকটাই সহজ হয়ে এসেছে তাদের জন্য। কিন্তু এখানে কিছুটা চাপা বোলিং করে পঞ্জাব। এর ফলে শেষ ওভারে তাদের প্রয়োজনীয়তা এসে দাঁড়ায় ১৩ রানে।

অর্শদীপ সিংহ বল করতে আসেন প্রথম তিনটে বলে মাত্র ২ রান দিলেও চতুর্থ বলেই তাঁকে ছক্কা হাঁকিয়ে দেন স্যামসন। কিন্তু দলকে বৈতরণী পার করিয়ে দিতে পারেননি তিনি। লক্ষ্যামাত্রার থেকে চার রান দূরেই থেমেই গেল রাজস্থান।

Continue Reading

ক্রিকেট

IPL 2021: সাড়ে ৭টায় খেলা শুরু হওয়া নিয়ে তীব্র অসন্তুষ্ট মহেন্দ্র সিংহ ধোনি

চেন্নাই সুপারকিংস অধিনায়কের মতে এই সময়ের পরিবর্তনই ম্যাচের নির্ধারক হয়ে উঠছে।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গত বছর থেকে আইপিএলে খেলা শুরুর সময়টা কিছুটা পালটে গিয়েছে। রাত ৮টার বদলে শুরু হচ্ছে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। রাত ৮টায় শুরু হলে অধিকাংশ ম্যাচই মাঝরাত পর্যন্ত গড়িয়ে যাওয়াযর কারণে এই অদলবদল করা হয়েছে।

তবে এই সিদ্ধান্তে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। চেন্নাই সুপারকিংস অধিনায়কের মতে এই সময়ের পরিবর্তনই ম্যাচের নির্ধারক হয়ে উঠছে।

Loading videos...

দিল্লি ক্যাপিটালসের কাছে ৭ উইকেটে হারের পরেই ধোনি যুক্তি দিয়ে জানালেন, “৮টায় খেলা শুরু হলে শিশির ততক্ষণে মাঠে পড়ে যেত। তাই দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামা দল কোনো বাড়তি সুবিধা পেত না। তবে ৭.৩০ টায় শুরু হওয়ায় যে কোনো এক দল ৩০-৪০ মিনিট একদম শুকনো পরিবেশে ব্যাট করার সুবিধা পায়। এটা তফাত গড়ে দিতে পারে।”

ধোনির কথায়, “এমনিতে শিশিরের কারণে প্রথমে ব্যাট করা দল সব সময় ১৫-২০ রান অতিরিক্ত তুলে রাখতে চায়। তবে এটা ৮টার সময় ম্যাচ শুরু করার সময়। ৭.৩০ ম্যাচ শুরু হলে প্রতিপক্ষ সব সময় আধঘন্টার সুবিধা পেয়ে যাবেই। দ্বিতীয় ইনিংসে বল যে ভাবে সুন্দরভাবে ব্যাটে আসবে, প্ৰথমে ব্যাটিংয়ে সেটা মোটেও হবে না। তাই অতিরিক্ত ১৫-২০ রান করার সঙ্গেই বল হাতে শুরুতেই কয়েকটা উইকেট তুলে নিতে হবে প্রতিপক্ষের। তাহলেই ব্যাপারটা সমান-সমান হবে।” এমনই বলেন ধোনি।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

IPL 2021: নীতীশ-রাহুলের ব্যাটে ভর করে হায়দরাবাদকে হারাল কেকেআর

Continue Reading

ক্রিকেট

IPL 2021: নীতীশ-রাহুলের ব্যাটে ভর করে হায়দরাবাদকে হারাল কেকেআর

হায়দরাবাদের ওপরে দাপট বজায় রাখল কেকেআর

Published

on

কেকেআর: ১৮৭-৬ (নীতীশ ৮০, রাহুল ৫৩, রশিদ ২-২৪)

হায়দরাবাদ: ১৭৭-৫ (মনীশ ৬১ অপরাজিত, বেয়ারস্টো ৫৫, প্রসীদ ২-৩৫)

Loading videos...

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ফের একবার কলকাতা নাইটরাইডার্সের কাছে হেরে গেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ওইন মর্গ্যানের দলের এই জয়ের পেছনে মুখ্য ভূমিকা রেখে গেলেন দুই ব্যাটসম্যান নীতীশ রানা এবং রাহুল ত্রিপাঠি।

গত মরশুমের আইপিএলে মাত্র এক বার ওপেনিং জুটি পঞ্চাশ পেরিয়েছিল। তবে সে বার ওপেনিং নিয়ে নানা রকম পরীক্ষানিরীক্ষা চালিয়েছিল কেকেআর টিম ম্যানেজমেন্ট। শুধুমাত্র শুভমন গিলের জায়গাই পাকা ছিল। তাঁর বিপরীতের ব্যাটসম্যানদের মাঝেমধ্যেই বদলে ফেলা হত। তবে এই মরশুমের প্রথম ম্যাচেই মনে হল পরিকল্পনা একদম ঠিকঠাক ভাবেই নিয়েছে কেকেআর। তাই গিলের সঙ্গী করা করা হল নীতীশ রানাকে। আর সেই সিদ্ধান্ত শুরুতেই লেগে গেল।

অস্ট্রেলিয়া সফরের সুবাদে টি নটরাজন এখন ঘরে ঘরে পরিচিত নাম। সেই নটরাজন এবং ভুবনেশ্বর কুমার-সন্দীপ শর্মা সম্বিলিত পেস আক্রমণের বিরুদ্ধে কেকেআরের হয়ে দুরন্ত শুরু করেন শুভমন এবং নীতীশ। অস্ট্রেলিয়ায় দুরন্ত পারফর্ম করলেও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে ফর্ম খুইয়েছিলেন শুভমন। এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে তিনি ফর্মে ফেরার চেষ্টা করলেন। অন্য দিকে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন নীতীশ।

কোনো উইকেট না হারিয়ে ষষ্ঠ ওভারেই পঞ্চাশ পেরিয়ে যায় কেকেআর। তবে এর ঠিক পরেই ড্রেসিং রুমে ফেরেন শুভমন। যদিও এতে বিচলিত হননি নীতীশ। বরং তিন নম্বরে নামা রাহুল ত্রিপাঠীকে সঙ্গে নিয়ে দলের স্কোরকে আরও এগিয়ে যেতে থাকেন তিনি। হায়দরাবাদের প্রধান তুরুপের তাস রশিদ খানকেও দুর্দান্ত ভাবে সামলে দেন রাহুল-নীতীশ। একটা সময় মনে হচ্ছিল অবলীলায় দু’শো পেরিয়ে যাবে কেকেআর। শতরানের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন নীতীশ।

ঝোড়ো ইনিংসের মধ্যে দিয়ে পঞ্চাশ পেরিয়ে যান রাহুল। কিন্তু এর পরেই তিনি আউট হয়ে যান। ১৬তম ওভারে নটরাজনের বলে রাহুল ফিরতেই ভেঙে পড়ে কেকেআরের ইনিংস। পরের ওভারেই রশিদের বলে শিকার হন আন্দ্রে রাসে। ১৮তম ওভারে পর পর দু’বলে নীতীশ এবং অধিনায়ক ওইন মর্গ্যানকে ফিরিয়ে কেকেআরকে মোক্ষম ধাক্কা দেন আফগানিস্তানের মহম্মদ নবী।

শেষের কয়েকটি ওভারে হায়দরাবাদের চাপা বোলিংয়ের জেরে কেকেআরের ইনিংসে অনেকটাই ধাক্কা খেয়ে যায়। তবে শেষ ওভারে প্রাক্তন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিকের সংক্ষিপ্ত ঝোড়ো ইনিংসের জেরে ১৯০-এর কাছাকাছি পৌঁছে যায় কেকেআর।

ভারতীয় দলে জায়গা খোয়ানোর পর ঋদ্ধিমান সাহা কেমন খেলেন, সেই দিকে নজর ছিল সবার। গত আইপিএলে একদম শেষ মুহূর্তে মাত্র চারটে ম্যাচ খেললেও দুরন্ত খেলেছিলেন ঋদ্ধি। সে কারণে এ বার প্রথম ম্যাচ থেকেই দলে রয়েছেন তিনি। প্রথম ওভারের হরভজন সিংহের বলকে তুলে গ্যালারিতেও ফেলে দেন ঋদ্ধি। কিন্তু তার পরেই ব্রেক লেগে যায় তাঁর ইনিংসে। শাকিব আল হাসানের বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি। ততক্ষণে ড্রেসিং রুমে ফিরে গিয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নারও।

এগারো রানের মাথায় দু’টো উইকেট খুইয়ে আচমকা বিপদে পড়ে যায় হায়দরাবাদ। সেই বিপদ থেকে দলকে রক্ষা করার দায়িত্ব এসে পড়ে মনীশ পাণ্ডে এবং জনি বেয়ারস্টোর ওপরে। ভারতের বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের দু’টি সিরিজে দুরন্ত ফর্মে ছিলেন বেয়ারস্টো। সেই ফর্ম এই ম্যাচেও নিয়ে আসেন তিনি। ধীরে ধীরে রানের গতি বাড়তে শুরু করে।

সিভি বরুণকে খেলানোর জন্য এ দিন সুনীল নারিনকে নামায়নি কেকেআর। সম্ভবত সেই কারণে বাড়তি একটা সুবিধা পেয়ে গিয়েছিলেন বেয়ারস্টো এবং মনীশ পাণ্ডে। কেকেআর বোলারদের বিরুদ্ধে দাপট বাড়াতে থাকেন দু’জন। বরুণের বিরুদ্ধেও দুরন্ত গতিতে রান করতে শুরু করেন। ক্রমশ নিজেদের নাগালের মধ্যে আস্কিং রেটকে নিয়ে আসেন দু’জন। দুরন্ত একটি অর্ধশতরান পেরিয়ে যান বেয়ারস্টো।

তবে খুব বাজে সময়ে আউট হয়ে যান বেয়ারস্টো, ১৩তম ওভারের শেষ বলে। তাঁর উইকেট তোলেন প্যাট কামিন্স। ততক্ষণে সবে ১০০ পেরিয়েছে হায়দরাবাদ।

বেয়ারস্টো আউট হয়ে যাওয়ার পর লড়াইয়ে বেশ কিছুটা পিছিয়ে পড়তে থাকে হায়দরাবাদ। আস্কিং রেটি ক্রমশ চড়তে থাকে। বরুণ, হরভজন, প্রসীদ কৃষ্ণ, কামিন্সদের চাপা বোলিংয়ের জেরে প্রবল চাপে পড়তে শুরু করে দক্ষিণের এই দলটা। কিন্তু যতক্ষণ মনীশ ছিলেন, ততক্ষণ ভরসা ছিল হায়দরাবাদের।

কিন্তু মনীশ সঙ্গী পাননি। মহম্মদ নবী বোলিংয়ে বেশি দক্ষ হলেও ব্যাটিংয়ে এখনও উল্লেখযোগ্য কোনো ইনিংসে হায়দরাবাদের হয়ে খেলতে পারেননি। এ দিনও ব্যর্থ হলেন তিনি। নবীর পর বিজয় শঙ্কর নামেন। মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবে বেশ নামডাক রয়েছে তাঁর। তিনিও ব্যর্থ হন। শেষ দুই ওভারে হায়দরাবাদের আস্কিং রেট উঠে যায় ১৯-এ। ম্যাচের ফলাফল কার্যত নিশ্চিতই ছিল।

তবে শেষ মুহূর্তে কাশ্মীরের তরুণ ক্রিকেটার আব্দুল সামাদ কিছুটা চেষ্টা করছিলেন জয়ের কাছাকাছি দলকে নিয়ে যাওয়ার জন্য। তাঁর সংক্ষিপ্ত মারকাটারি ব্যাটিং দেখে মনে হচ্ছিল নবীরও আগে তাঁকে নামালে অন্য রকম ফলাফল হয়ে পারত হায়দরাবাদের জন্য।

যাই হোক, আইপিএলে এমনিতেই হায়দরাবাদের ওপরে বরাবরই দাপট থাকে কেকেআরের। সেটা এই ম্যাচেও বজায় থাকল।

আরও পড়ুন:  IPL 2021: পৃথ্বী-ধাওয়ানের দাপটে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল চেন্নাই

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ28 mins ago

অভিবাসী শিশুদের অবস্থা জানাতে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

রাজ্য2 hours ago

Bengal Polls 2021: শুভেন্দু অধিকারীকে সতর্ক করল নির্বাচন কমিশন

রাজ্য2 hours ago

নজরে বিধানসভা/বরানগর: দেখে নিন ইতিহাস এবং সাম্প্রতিক তথ্য

দার্জিলিং3 hours ago

Bengal Polls 2021: এনআরসি নিয়ে বড়ো ঘোষণা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের

হাওড়া3 hours ago

বালিতে প্রচণ্ড শব্দে ভাঙল বাসের কাচ, পাথর না গুলি? চলছে তদন্ত

রাজ্য3 hours ago

Bengal Polls 2021: মুখে কালো মাস্ক, সঙ্গী রঙ-তুলি, গান্ধী মূর্তির পাদদেশে সাড়ে তিন ঘণ্টার ধরনা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

দেশ3 hours ago

UP Panchayat Polls: শেষ মুহূর্তে ভোটার তালিকায় নাম বাদ! ক্ষোভ চরমে

রাজ্য4 hours ago

Bengal Polls 2021: শীতলকুচি নিয়ে মন্তব্যের জেরে এ বার দিলীপ ঘোষকে নোটিশ নির্বাচন কমিশনের

ধর্মকর্ম2 days ago

অন্নপূর্ণাপুজো: উত্তর কলকাতার পালবাড়ি ও বালিগঞ্জের ঘোষবাড়িতে চলছে জোর প্রস্তুতি

ভিডিও2 days ago

Bengal Polls 2021: বিধাননগরে মুখোমুখি টক্কর সুজিত বসু-সব্যসাচী দত্তর, ময়দানে জোট প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রবন্ধ1 day ago

First Man In Space: ইউরি গাগারিনের মহাকাশ বিজয়ের ৬০ বছর আজ, জেনে নিন কিছু আকর্ষণীয় তথ্য

রাজ্য3 days ago

Bengal Polls 2021: কোচবিহারে ৩ দিনের জন্য রাজনীতিবিদদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করল নির্বাচন কমিশন

ক্রিকেট19 hours ago

IPL 2021: কাজে এল না সঞ্জু স্যামসনের মহাকাব্যিক শতরান, পঞ্জাবের কাছে হারল রাজস্থান

দেশ1 day ago

Kumbh Mela 2021: করোনাবিধিকে শিকেয় তুলে এক লক্ষ মানুষের সমাগম, আজ কুম্ভের প্রথম শাহি স্নান হরিদ্বারে

Rahul Gandhi at Maldah rally
রাজ্য2 days ago

Bengal Polls 2021: পঞ্চম দফার ভোটের আগে রাজ্যে আসছেন রাহুল গান্ধী

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: নমুনা পরীক্ষার সঙ্গেই তাল মিলিয়ে বাড়ল বাংলার দৈনিক করোনা সংক্রমণ

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে