ওয়েব ডেস্ক: ২০১৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর। টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। ডাবরানের কিংসমেডে খেলা চলছে ভারত বনাম ইংল্যান্ডের। প্রথমে ব্যাট করে ১৮ ওভারের শেষে ভারত তিন উইকেটে ১৫৯। ক্রিজে যুবরাজ সিং ও মহেন্দ্র সিং ধোনি। ১ রান নিয়ে যুবরাজকে দিয়ে দেন ধোনি। ফ্লিনটফকে পরপর দুটি চার মারেন যুবি। তারপর ১ রান নেন। ওভারের শেষ তর্কে জড়িয়ে পড়েন যুবরাজ ও ইংল্যান্ড অধিনায়ক ফ্লিনটফ।

১৯তম ওভারে ইংল্যান্ড পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড যখন বল করতে আসেন, ভারত তখন ৩ উইকেটে ১৭১। তারপরই তৈরি হয় সেই ইতিহাস। ব্রডকে ৬ বলে ৬টি ছক্কা মারেন পঞ্জাব তনয়। মাঠের প্রায় সব দিকেই স্ট্রোক করেছিলেন তিনি। টি টুয়েন্টি ক্রিকেটে যুবিই একমাত্র ব্যাটসম্যান যার এই কৃতিত্ব আছে। তিনি বিশ্বের দ্বিতীয় ক্রিকেটার, যানি এই কাণ্ড ঘটান। সে বছরই বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৬ বলে ৬টি ছয় মেরেছিলেন হার্সেল গিবস। সেটি ছিল ওয়ান ডে। আরও একটা কীর্তি যুবরাজের দখলে। গিবসের উল্টোদিকের বোলারটি ছিলেন স্পিনার। কিন্তু ব্রড ছিলেন পেসার।

ছয় মারতে মারতেই ১২ বলে ৫০ করে ফেলেন যুবরাজ। টি টুয়েন্টিতে সবচেয়ে কম বলে অর্ধ রানের রেকর্ডটি এখনও তাঁরই দখলে। সেই ম্যাচে শেষ অবধি ১৬ বলে ৫৮ রান করেন যুবরাজ। ভারত করে ২১৮। ভারত জেতে ১৮ রানে।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬ বলে ৬টি ছয় মারার রেকর্ড প্রথম করেন স্যর গারফিল্ড সোবার্স। ১৯৬৮ সালে। দ্বিতীয়বার এই কাজটি যিনি করেন, তিনি এই মুহূর্তে ভারতীয় দলের কোচ। রবি শাস্ত্রী ১৯৮৫ সালে রঞ্জি ট্রফিতে বরোদার বিরুদ্ধে এই কীর্তি অর্জন করেন। তারপর আরও তিন ক্রিকেটার ৬ বলে ৬টি ছয় মেরেছেন।

যুবরাজের রেকর্ডের ম্যাচটির আরও একটি গুরুত্ব আছে। ওই ম্যাচেই প্রথম ভারতীয় দলের জার্সি গায়ে নেমেছিলেন রোহিত শর্মা। যিনি বর্তমানে ভারতের একদিনের দলের সহ অধিনায়ক।

দেখুন ভিডিওটি:

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন