kohli and dhoni

তিরুঅনন্তপুরম: মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ক্ষমতার ওপরে প্রশ্ন তুলে দিয়ে গিয়েছে রাজকোটের টি-২০ ম্যাচ। বলাবলি শুরু হয়ে গিয়েছে, টি-২০ থেকে ধোনির অবসর নেওয়া উচিত কি উচিত নয়। প্রাক্তনের এই ‘দুর্দিনে’ কিন্তু তাঁর পাশে আগের মতোই দাঁড়াচ্ছেন বর্তমান। পরিষ্কার ভাবে জানিয়ে দিলেন যত দিন ফিট থাকবেন তত দিন খেলবেন ধোনি।

নিউজিল্যান্ডকে টি-২০ সিরিজে হারিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে বসেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সেখানে ধোনিকে নিয়ে প্রশ্নের বাউন্সার সামলাতে হয় তাঁকে। সেই সব বাউন্সারকে স্টেপ আউট করে মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেন বিরাট। তিনি বলেন, “আমি বুঝতে পারছি কেন লোকে ধোনির ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে। আমি যদি ব্যাটসম্যান হিসেবে পর পর তিনটে ইনিংসে ব্যর্থ হই, কেউ প্রশ্ন তুলবে না। কারণ আমি এখনও ৩৫-এ পৌঁছোইনি। ধোনি পুরো ফিট, সব পরীক্ষায় পাশ করছে। মাঠে তাঁর কৌশলে দলকে সাহায্য করছে। শ্রীলঙ্কা এবং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যথেষ্ট সফলও হয়েছে।”

আরও অনেকে ব্যর্থ হয়েছে, তবুও ধোনিকেই টার্গেট করা হচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিরাট। তাঁর কথায়, “এই সিরিজে ও সে ভাবে ব্যাটিং-এর সুযোগই তো পায়নি। হার্দিক পাণ্ড্যও তো ওই ম্যাচে রান পায়নি। তবুও মাত্র এক জনকে যে ভাবে টার্গেট করা হচ্ছে, সেটা ঠিক নয়।”

রাজকোটের ম্যাচে ৪৯ করলেও অসংখ্য ডট বল খেলেন ধোনি। তার পর থেকেই তাঁর সমালোচনা শুরু হয়। টি-২০ থেকে তাঁর অবসর নেওয়া উচিত বলে মনে করেন অনেকে।

বিরাট বলে যান, “ধোনি যখন ব্যাট করতে আসে, তখন আস্কিং রেট সাড়ে ৮ থেকে সাড়ে ৯-এর কাছাকাছি চলে যায়। পিচও ঠিকঠাক থাকে না। ওপরের দিকের সেট হয়ে যাওয়া ব্যাটসম্যানরা বলকে মারতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, পরের দিকের ব্যাটসম্যানের থেকে।”

এর পর ক্রিকেটভক্তদের প্রতি বিরাটের আবেদন, “মানুষের উচিত আর একটু ধৈর্য দেখানো। নিজের ক্রিকেট খুব ভালো বোঝে ধোনি। কবে অবসর নেবে সেটা ওই সিদ্ধান্ত নেবে। অন্য কারও কোনো অধিকার নেই তাঁর অবসরের দিনক্ষণ ঠিক করে দেওয়ার।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here