akhtar-pakistan

ওয়েবডেস্ক: ক্রিকেটের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার তিনি। এক সময় ব্যাটসম্যানদের রাতের ঘুম কেড়ে নিতেন। তিনি ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’। হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন। কথা হচ্ছে প্রাক্তন পাকিস্তানি বোলার শোয়েব আখতারকে নিয়ে। নিজের দেশের হয়ে ক্রিকেটের মঞ্চে অনেক ইতিহাসেরই সাক্ষী তিনি। কিন্তু আজকের তারিখেও এক অনন্য কৃতিত্ব স্থাপন করেছিলেন স্পিড স্টার। আজ থেকে ষোলো বছর আগে প্রথম বোলার হিসাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০ মাইল/ঘণ্টা স্পিডে বল করেছিলেন তিনি। তবে এই রেকর্ডের সত্যতা অবশ্য মানতে চায় না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা আইসিসি।

২০০২ সালে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে একদিনের সিরিজে মুখোমুখি হয়েছিল পাকিস্তান। সিরিজের তৃতীয় এবং শেষ ম্যাচে  লাহরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে নিউজিল্যান্ড। সেই ইনিংস চলাকালীন প্রাক্তন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার ক্রেগ ম্যাকমিলনকে ১০০.০৪ মাইল/ঘণ্টা স্পিডে বল করেন। যা রেকর্ড হয় সিরিজের অন্যতম এক স্পনসর ‘সাইবার নেটের’ স্পিড গান অপারেটরে। এর সত্যতা স্বীকার করে তৎকালীন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের মিডিয়া ম্যানেজার খালিদ বাট এক বিজ্ঞপ্তিতে তা জানান।

তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা আইসিসি তা মানতে রাজি হয়নি। তৎকালীন আইসিসির মুখপাত্র ডেভিড ক্লার্ক জানান, “আমরা এই ঘটনাকে মানি না। আমরা সেই রকম কোনো প্রযুক্তি ব্যবহার করিনি। এবং আমরা এই রকম কোনো ঘটনাকে রেকর্ড বলে গণ্য করিনি”।

কিন্তু সাইবার নেট পরে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, “সিরিজের সব ক’টি ম্যাচে ‘স্পিড রাডার গান’ ব্যবহার করা হয়। এটা একদম সঠিক তথ্য যে সিরিজের শেষ ম্যাচে শোয়েব এই কৃতিত্ব স্থাপন করেন।”

প্রথম বারের জন্য আইসিসি না মানলেও, দ্বিতীয় বার অবশ্য তাদের মানা না ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। ঠিক এক বছর পর ২০০৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফের ১০০ মাইল স্পিডে বল করে ক্রিকেট বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেন শোয়েব আখতার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here