নববর্ষের প্রাক্কালে দুই বাঙালির অবদানে কলকাতা বধ

0
779
shakib al hasan

কলকাতা ১৩৮-৮ (লিন ৪৯, কার্তিক ২৯, ভুবনেশ্বর ৩-২৬)

হায়দরাবাদ ১৩৯-৫ (উইলিয়ামসন ৫০, শাকিব ২৭, নারিন ২-১৭)

কলকাতা: একটা দল নামে কলকাতা, কিন্তু দলে কোনো বাঙালি নেই, অন্য দলের নামের সঙ্গে কলকাতার কোনো সম্পর্কই নেই, কিন্তু সেই দলের মূল দুই স্তম্ভ বাঙালি। নববর্ষের প্রাক্কালে তাই কলকাতার দলকে ইডেনে হারিয়ে দিয়ে গেল বাঙালির দল। সেই সঙ্গে একটা নৈতিক বার্তাও যেন ভেসে উঠল কোথাও।

ইডেনে এই প্রথম বার কলকাতাকে হারাল হায়দরাবাদ। এই জয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে গেলেন দুই বাঙালি ঋদ্ধিমান এবং শাকিব-আল-হাসান। প্রথমে হায়দরাবাদ যখন বোলিং করছিল তখন দু’টি গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচ নেন ঋদ্ধি, এবং ব্যাট হাতে ওপেন করতে নেমে ১৫ বলে ২৪-এর একটা ঝোড়ো খেলে যান তিনি। ওই ইনিংসটা না খেললে হায়দরাবাদের যে জিততে সমস্যা হত সেটা স্কোরবোর্ডটা দেখেই বোঝা যাবে।

অন্য দিকে বল হাতে ৪ ওভারে মাত্র ২১ রান দিয়ে দুই উইকেট নেওয়ার পর গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ব্যাট হাতে অবদান রেখে যান শাকিব। একটা সময়ে যখন মনে হচ্ছিল দ্রুত উইকেট হারিয়ে ম্যাচ খোয়াতে বসেছে হায়দরাবাদ, ঠিক তখনই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ একটা জুটি তৈরি করেন। উইলিয়ামসন তাঁর অসাধারণ দক্ষতায় ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন নিজের দলকে। তাড়াহুড়ো না করেও যে টি ২০-তে সফল হওয়া যায়, তার উদাহরণ দিয়ে অর্ধশতরান করে যান তিনি।

তবে হায়দরাবাদের এ দিনের জয়ে আরও এক জনের কথা না বললে মারাত্মক ভুল হবে। তিনি প্রাক্তন নাইট ইউসুফ পাঠান। শেষ বেলায় ৭ বলে ১৭ রানের তাঁর ঝোড়ো ইনিংসের সুবাদেই শেষ ওভার শুরু হওয়ার আগেই ম্যাচ পকেটে পুরে নেয় এই দক্ষিণী দলটি।

শনিবার প্রথমে ব্যাট করলেও এ দিন শুরু থেকেই বেশ চাপেই ছিলেন কেকেআরের ব্যাটসম্যানরা। আইপিএলের সেরা বোলিং লাইনআপের সামনে বিশেষ হাত খুলতে পারেননি তাঁরা। ভুবনেশ্বর-স্ট্যানলেক-শাকিবদের সাঁড়াশি চাপে সব সময়েই ব্যাকফুটে ছিল কলকাতা।

সম্ভবত সেরা বোলিং লাইনআপের মুখোমুখি হওয়ার জন্য এ দিন সুনীল নারিনকে দিয়ে ওপেন করায়নি কেকেআর। কিন্তু তাঁকে যে জায়গায় নামানো হয় সেটাও অনেক প্রশ্ন চিহ্ন তুলে দিয়ে যেতে পারে। কারণ নারিনের মূল শক্তি প্রথম ছ’ওভারে, যখন ফিল্ডিং-এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকে। এক বার ফিল্ডিং ছড়িয়ে পড়লেই আটকে যান তিনি। তাই শুবমান গিল, রাসেলের মতো ব্যাটসম্যানরা থাকলেও কেন নারিনকে চার নম্বরে নামানো হল সেটা প্রশ্ন তৈরি করে দিয়ে যেতে পারে। কেকেআরের হয়ে একমাত্র ক্রিস লিন এ দিন ব্যাট হাতে উল্লেখযোগ্য অবদান দিয়ে যান।

এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে আরও একটা নৈতিক বার্তাও যেন চলে গেল কেকেআর কর্তৃপক্ষের কাছে। আইপিএল নিলামে যে বাঙালি ক্রিকেটারদের প্রতি এত অনীহা দেখিয়েছিল শাহরুখের দল, শনিবার এমন একটি দলের কাছে তারা হারল যেখানে গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ দুই বাঙালি।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here