vidharbha

বিদর্ভ ২৮৫-১ (ফজল ১৪২, রামস্বামী ১১৭ অপরাজিত, দিন্দা ১-৬২)

কল্যাণী: ঘরোয়া টিম যাতে বাড়তি সুবিধা না পায় তা নিশ্চিত করার জন্য রাঁচি থেকে পিচ কিউরেটর পাঠানো হয়েছে। তাঁর তত্ত্বাবধানে এমন একটা পিচ তৈরি হল যেখানে সারা দিন দাপট দেখিয়ে গেলেন বিদর্ভের দুই ওপেনার। পাটা ব্যাটিং সহায়ক পিচে ৭২ ওভার পর্যন্ত বিপক্ষের কোনো উইকেটই ফেলতে পারেননি বঙ্গ বোলাররা।

গ্রুপ টেবিলে দুই এবং তিন নম্বরের লড়াই। লড়াই ১৪ পয়েন্ট পাওয়া বিদর্ভের সঙ্গে ১৩ পয়েন্টে থাকা বাংলার। খেলা শুরুর আধ ঘণ্টা আগেই লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়ে বাংলা, যখন তারা টসটি হেরে যায়। মহম্মদ শামি না থাকায় বাংলার বোলিং বিভাগ কিছুটা দুর্বল। বাড়তি চাপ ছিল অশোক দিন্দার ওপরে। কিন্তু এই মরসুমে দাপট দেখানো নৈশনপুর এক্সপ্রেস এ দিন পুরোপুরি ব্যর্থ। তবে দিনের শেষে একটি মাত্র উইকেট তাঁর দখলেই গিয়েছে।

বাংলার নিষ্প্রভ বোলিংকে কাজে লাগিয়ে ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখিয়েছেন দুই ওপেনার ফৈয়জ ফজল এবং সঞ্জয় রামস্বামী। এক দিকে বছর দেড়েক আগে ভারতের হয়ে কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা থাকা ফৈয়জ, তো অন্য দিকে এই মরসুমে বিদর্ভের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী সঞ্জয়। এই দুই ব্যাটসম্যানের বিরুদ্ধে বাড়তি সতর্ক থাকা উচিত ছিল বাংলা বোলারদের। কিন্তু বাংলার ঢিলেঢালা বোলিংকে কাজে লাগিয়ে শতরান করে গেলেন দু’জনেই।

৭৩তম ওভারে ফৈয়জকে যখন ফিরিয়ে দেন দিন্দা, স্কোরবোর্ডে তখন ২৫৯। তিন নম্বরে নেমেছেন এক কালে মুম্বইয়ের হয়ে ঘরোয়া মরসুমে দাপিয়ে বাড়ানো ওয়াসিম জাফর। এখন দেখার বাংলার ওপরে ঠিক কতটা রানের পাহাড় চাপায় বিদর্ভ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here