virat-anushka marriage

ওয়েবডেস্ক: ২০১৫-এর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের কথা মনে পড়ে? ওই ম্যাচে মাত্র ১ রানে আউট হয়ে গিয়েছিলেন বিরাট। ভারতবাসীকে হতাশায় ডুবিয়ে বিরাট ফিরে যাওয়ার পরে গ্যালারির দিতে তাক করে ক্যামেরা। দেখা যায় বাকিদের মতোই হতাশ অনুষ্কা শর্মা। ব্যাস, শুরু হয়ে যায় টুইটারে অনুষ্কাকে ট্রলিং। অনুষ্কাই নাকি বিরাটের মনঃসংযোগের ব্যাঘাত ঘটিয়েছেন, এই মর্মে বিদ্রূপাত্মক টুইটে ভরে যায়।

পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছোয় যে আসরে নামতে হয় স্বয়ং বিরাটকে। তাঁর ব্যর্থতার জন্য অহেতুক অনুষ্কাকে দায়ী করা হচ্ছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। কিন্তু সে দিন যাঁরা অনুষ্কাকে ট্রোল করেছিলেন, তাঁরা জানলে হয়তো অবাক হবেন যে অনুষ্কার সঙ্গে প্রেম শুরু করার পর বিরাটের গ্রাফ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী।

২০১৩-তে একটি বিজ্ঞাপনে শুট করতে গিয়ে প্রথম দেখা হয় বিরুষ্কার। তার পরের বছর থেকে প্রেম শুরু দু’জনের। ২০১১-তে টেস্ট অভিষেক করা বিরাট শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দিল্লি টেস্টে তাঁর কুড়িতম শতরানটি করেন। অনুষ্কা তাঁর জীবনে আসার আগে বিরাটের শতরানের সংখ্যা ছিল মাত্র তিন। অনুষ্কার সঙ্গে প্রেম শুরু করার পরে আপাতত আরও ১৭টি শতরান করে ফেলেছেন ভারত অধিনায়ক। অর্থাৎ অনুষ্কা তাঁর জীবনে আসার আগের তিন বছরে তিনটে এবং পরের তিন বছরে ১৭ শতরান এসেছে বিরাটের ব্যাট থেকে।

এ বার আসা যাক একদিনের ম্যাচের কথায়। একদিনের ম্যাচে বিরাটের ৩২টি শতরানের মধ্যে ১৯টি শতরানই বিরাট করেছেন অনুষ্কার সঙ্গে দেখা করার পরে। বিরাটের একদিনের ম্যাচে অভিষেক হয় ২০০৮-এ। অর্থাৎ ‘সিঙ্গল’ বিরাট প্রথম ছ’বছরে করেছিলেন ১৩টি শতরান এবং ‘কমিটেড’ বিরাট পরের তিন বছরে করেছেন ১৯টি। এর থেকেই প্রমাণ হয় বিরাটের ‘লেডি লাক’ সত্যিই দারুণ।

শুধু ব্যাটসম্যান বিরাট নয়, অধিনায়ক বিরাটের রেকর্ডও যথেষ্ট ঈর্ষণীয়। অধিনায়ক হওয়ার পরে এখনও কোনো সিরিজ হারেননি বিরাট। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজ জয়ের পরে রিকি পন্টিং-এর টানা ন’টা সিরিজ জয়ের রেকর্ড ছুঁয়েছেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকায় যদি টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরতে পারেন তা হলে প্রথম অধিনায়ক হিসেবে টানা দশটা টেস্ট সিরিজ জয়ের রেকর্ড করবেন তিনি।

এখন তো যখনই ব্যাট করতে নামেন তখনই কোনো না কোনো রেকর্ড ভাঙেন বিরাট। সুতরাং এর থেকেই প্রমাণিত অনুষ্কা, বিরাটের ক্রিকেটের প্রতি মনঃসংযোগ তো কমাননি বরং তাঁকে ক্রিকেটের প্রতি আরও মনযোগী করে তুলেছেন। ভারতবাসীর তাই আশা এই বিরুষ্কার ইনিংস চলুক জন্ম-জন্মান্তর এবং দেশকে আরও অনেক গৌরব এনে দিক বিরাট।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here