christchurch mosque attack bangladesh
আতঙ্কের ছাপ বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের মধ্যে।

ওয়েবডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের মসজিদে জঙ্গি হামলার ঘটনার পরেই সফর বাতিল করে দেশে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ঘটনাস্থল থেকে মাত্র ‘৫০ গজ দূরে’ থেকে গোটা ঘটনার কার্যত প্রত্যক্ষদর্শী তামিম, মুশফিকুররা। এর পর তাঁদের ক্রিকেটে যে মন বসবে না, সেটা আয়োজক নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড বুঝতেই পেরেছিল। তাই সিরিজ বাতিলের প্রস্তাবে তারাও আর অরাজি হয়নি।

কিন্তু এটা প্রথম নয়। এর আগে একাধিকবার সন্ত্রাসবাদ থাবা বসিয়েছে ক্রিকেটে। যার ফলে মাঝপথেই বাতিল করতে হয়েছে ক্রিকেট সিরিজ। দেখে নিন অতীতের এমনই কিছু ঘটনা।

মার্চ ১৯৯৬– এলটিটিই জঙ্গিদের দাপটে তখন জর্জরিত শ্রীলঙ্কা। মাঝেমধ্যেই জঙ্গি হামলা হয় সে দেশে। এই পরিস্থিতি দেখে বিশ্বকাপের ম্যাচ খেলতে দ্বীপরাষ্ট্রে গেল না অস্ট্রেলিয়া এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওয়াকওভার পেয়ে গেল শ্রীলঙ্কা। তবে সেই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কার পাশে দাঁড়ানোর জন্য আজহারুদ্দিনের নেতৃত্বে ভারত ও পাকিস্তানের যৌথ দল একটি প্রীতি ম্যাচ খেলে এল শ্রীলঙ্কায়।

মে ২০০২– ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল পাকিস্তানের করাচি। নিউজিল্যান্ড টিম হোটেলের পাশেই ঘটা এই বিস্ফোরণের জেরে সফর বাতিল করে দেশে ফিরল নিউজিল্যান্ড দল।

সেপ্টেম্বর ২০০২– পাকিস্তানে সফর করতে সাহস পেল না অস্ট্রেলিয়া। পরিবর্তে কলম্বো এবং শারজায় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ খেলল তারা।

আরও পড়ুন ভাগ্যের জোরে বেঁচে গেলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা

জুলাই ২০০৬– আবার শ্রীলঙ্কা। আবার এলটিটিই। ভারত-শ্রীলঙ্কা-দক্ষিণ আফ্রিকাকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু হওয়ার আগেই বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কলম্বো। নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে সফর বাতিল করে ফিরে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলার জন্য দেশে থেকে গিয়েছিল ভারত।

এপ্রিল ২০০৮– ইসলামাবাদে জঙ্গি হামলার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তান সফর বাতিল করল অস্ট্রেলিয়া।

সেপ্টেম্বর ২০০৮– পাকিস্তানে নির্ধারিত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এক বছরের জন্য পিছিয়ে দিল আইসিসি।

নভেম্বর ২০০৮– মুম্বইয়ে ২৬/১১ জঙ্গি হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ভারত সফর বাতিল করে ফিরে গেল ইংল্যান্ড। তবে নিরাপত্তার আশ্বাস পেয়ে ফের ভারতে আসার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। তবে মুম্বই এবং অমদাবাদের পরিবর্তে দু’টি টেস্ট আয়োজিত হয় চেন্নাই এবং মোহালিতে।

শ্রীলঙ্কা দলকে উদ্ধার করতে ক্রিকেট মাঠে নেমেছিল হেলিকপ্টার। মার্চ ২০০৯,।

মার্চ ২০০৯– ক্রিকেট ইতিহাসে সব থেকে ভয়ংকর জঙ্গি হামলা। এই প্রথম বার জঙ্গি হামলার লক্ষ্যবস্তু হলেন ক্রিকেটাররা। লাহোরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামের কাছেই শ্রীলঙ্কার টিম বাস লক্ষ্য করে হামলা চালাল বারো জন জঙ্গি। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় ছয় পুলিশকর্মী এবং দুই সাধারণ নাগরিকের। গুলি লেগে কমবেশি আহত হলেন শ্রীলঙ্কার ছ’জন ক্রিকেটার। এই ঘটনার পরেই পাকিস্তান থেকে সেই যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সরে গেল, এখনও তা ফেরেনি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here