dhoni

ওয়েবডেস্ক: মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তিনি। সাফল্য সম্বন্ধে যদি জানতে হয় তাহলে ধোনির ক্রিকেট কেরিয়ার দেখলেই যথেষ্ট। দেশকে টি-২০, একদিনের বিশ্বকাপ এবং চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মুকুট এনে দিয়েছেন। ‘ক্যাপ্টেন কুল’ চাপের মুখ থেকে দেশকে উতরে দিয়েছেন বহু ম্যাচ। কিন্তু সেই মাহি এখন রয়েছেন খুব চাপে। এখন সব থেকে বড়ো প্রশ্ন ২০১৯ বিশ্বকাপে তিনি কি দলে জায়গা করে নিতে পারবেন? কারণ বর্তমানে তাঁর ফর্ম কিন্তু রীতিমতো চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সদ্য শেষ হওয়া ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে হেরেছে ভারত। কিন্তু তারপরেই তাঁকে নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। কেরিয়ারে যে কোনো ক্রীড়াবিদ যত ভালোই হন না কেন, জাতীয় দলের জার্সিতে ব্যর্থ হলে তাঁকে নিয়ে কথা উঠবেই। তা সে ধোনি হোক কিংবা অন্য যে কেউ। অতীতে এমন উদাহরণ যে কোনো ক্রীড়াতেই প্রচুর রয়েছে। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে ডাহা ফেল হয়েছেন ধোনি। তিন ম্যাচে মাত্র ৭৯ রান। স্ট্রাইক রেট ৬৩। শুধু তাই নয়, ম্যাচ চলাকালীন দর্শকদের থেকে বিদ্রুপও শুনতে হয়েছে তাঁকে।

ধোনির ক্রমাগত এই খারাপ ফর্ম কিন্তু গত বছর থেকেই লক্ষ করা যাচ্ছে। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর থেকে। অন্তত পরিসংখ্যানই তা বলে দিচ্ছে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি পর্যন্ত ২৫১ ইনিংসে ধোনির রান ৯৩৪২। কিন্তু তার পর থেকে ২৩ ইনিংসে মাত্র ৭০৪ রান।

আরও পড়ুন : অস্ট্রেলিয়া সফরেও অনিশ্চিত হয়ে গেলেন ঋদ্ধিমান

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি পর্যন্ত ভারতের প্রথম ইনিংস ব্যাটিং যদি দেখা হয় তাহলে, ১২৭ ইনিংসয়ে ধোনির সংগ্রহ ৫২২৩ রান। তার পর থেকে ১৪ ইনিংসে মাত্র ৪৬২ রান।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি পর্যন্ত ভারতের দ্বিতীয় ইনিংস ব্যাটিং লক্ষ করলে ধোনি ১২৪ ইনিংসে করেছেন ৪১১৯ রান। কিন্তু তারপর মাত্র ৯ ইনিংসয়ে ২৪২ রান।

তবে ধোনির এই ফর্ম নিয়ে সবথেকে কার্যকর কথা কিন্তু বলেছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। তাঁর বক্তব্য, “মাহিকে যদি পরবর্তী বিশ্বকাপ খেলতে হয়, তাহলে ওকে এমন জায়গায় ব্যাট করতে হবে যেখান থেকে ও রান পাবে। যদি তা ২৪-২৫ ওভার হয় তাহলে একটা ইনিংস গড়তে হবে। এই মুহূর্তে যা ও পারছে না। গত এক বছর ধরেই যা চলে আসছে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here