ড্র-এর পথে টেস্ট, নাটকীয় কিছু না হলে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফি ভাগাভাগি হওয়ার পথে

    আরও পড়ুন

    ভারত: ২১৭ এবং ৬৪-২ (রোহিত ৩০, পুজারা ১২ অপরাজিত, জেমিসন ২-১৭)

    নিউজিল্যান্ড: ২৪৯ (কনওয়ে ৫৪, উইলিয়ামসন ৪৯, শামি ৪-৭৬)

    Loading videos...

    খবরঅনলাইন ডেস্ক: নাটকীয় কিছু না হলে অমীমাংসিতই থাকতে চলেছে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। তবে দিনের শেষে খেলার পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে যে বুধবার টেস্টের শেষ দিন নিউজিল্যান্ডের বোলাররা আচমকা জ্বলে উঠলে বিপদে পড়তে পারে ভারত।

    - Advertisement -

    নিউজিল্যান্ডকে কম রানের মধ্যে আটকে রাখতে পারলে ভারতের জয়ের ক্ষীণ একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়ে যেতেই পারত। সেই লক্ষ্য নিয়েই এ দিন শুরু থেকেই কিউয়ি ব্যাটসম্যানদের ওপরে ঝাঁপিয়ে পড়েন ভারতীয় বোলাররা।

    প্রথম ধাক্কা মহম্মদ শামির

    শুরু থেকেই এ দিন বার বার ভারতীয় বোলারদের সামনে অস্বস্তিতে পড়ছিলেন নিউজিল্যান্ডের দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেলর এবং কেন উইলিয়ামসন। ভারতের হয়ে কিউয়ি শিবিরে প্রথম ধাক্কাটা দেন মহম্মদ শামি। দলের স্কোর ১১৭ থাকাকালীনই শুভমন গিলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান টেলর।

    কিছুক্ষণের মধ্যে আবার উইকেট পতন নিউজিল্যান্ডের। ইশান্ত শর্মার বলে দ্বিতীয় স্লিপে রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান হেনরি নিকোলস। আবার এর কিছুক্ষণ পরেই মহম্মদ শামির বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন শেষ টেস্ট খেলতে নামা বিজে ওয়াটলিং। ১৩৫ রানের মাথাতেই পাঁচ উইকেট খুইয়ে বিপাকে পড়ে নিউজিল্যান্ড।

    মধ্যাহ্নভোজনের পরেই ফের ধাক্কা দেন শামি। এ বার উইকেটের সামনে কলিন দে গ্র্যান্ডহোমের পা পেয়ে যান তিনি। এর পর উইলিয়ামসনকে সঙ্গে নিয়ে কিউয়ি ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের হয়ে পাঁচ উইকেট নেওয়া কাইল জেমিসন। দ্রুতগতিতে রান তোলার চেষ্টা করেন তিনি।

    শামির শিকার জেমিসন

    দুর্ধর্ষ শামি।

    এই জুটি ভাঙতেও হস্তক্ষেপ করেন শামি। তাঁর দেওয়া বাউন্সার পুল করেছিলেন জেমিসন। লং লেগে বুমরাহ ক্যাচ ধরে নেন। যদিও এর পরেও উইকেট কামড়ে পড়ে ছিলেন উইলিয়ামসন। কিন্তু অল্পের জন্য অর্ধশতরান হাতছাড়া করেন কেন। তবে ইশান্ত শর্মার বলে তিনি যখন আউট হলেন, ততক্ষণে ভারতের স্কোর ছাপিয়ে গিয়েছে কিউয়িরা।

    এর পর রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে রাহানের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ওয়াগনর। কিছুক্ষণের মধ্যেই শেষ উইকেটটি পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড। দলের স্কোর যখন ২৪৯, তখনই নিউজিল্যান্ডের শেষ উইকেটটি ফেলে দেন জাদেজা। আউট হন টিম সাউদি।

    পিছিয়ে থেকে শুরু

    ৩২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে ভারত। রানের গতি বাড়িয়ে নিউজিল্যান্ডের কাছে কোনো চ্যালেঞ্জ ভারত ছুড়ে দেবে কি না, সেই নিয়ে একটা জল্পনা ছিল। কিন্তু আগ্রাসী বলে সাবধানী ভাবেই ইনিংস শুরু করে রোহিত শর্মা এবং শুভমন গিল।

    প্রথম দশ ওভার বেশ ভালো ভাবেই সামলেছিলেন দুই ওপেনার। কিন্তু একাদশ ওভারের দ্বিতীয় বলেই জেমিসনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান শুভমন। এর পরের ১৬ ওভার পিচ আঁকড়ে কার্যত পড়েছিলেন রোহিত এবং চেতেশ্বর। রানের গতি বাড়ানোর কোনো তাগিদ ছিল না কারও। তবে রোহিত ক্রমশ সেট হয়ে যাচ্ছিলেন ক্রিজে।

    ২৭তম ওভারে নিউজিল্যান্ডের হয়ে ধাক্কা দেন সেই জেমিসনই। এ বার রোহিতের উইকেট তুলে নেন তিনি। এর পর ভারতের তরফে আর কোনো অঘটন ঘটেনি। দিনের শেষে অপরাজিত রয়েছেন পুজারা এবং বিরাট কোহলি।

    আরও পড়ুন: কোপা আমেরিকা আপডেট: ফের এক গোলেই ম্যাচ জিতল আর্জেন্তিনা

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    - Advertisement -

    আপডেট খবর