হায়দরাবাদ: কয়েক দিন ধরে ফেসবুকে একটা জোক খুব ঘুরছে। পাকিস্তানের সেনা ভারতীয় সেনাকে বলছে, “জনাব হিন্দুস্তানে কী চলছে”, প্রত্যুত্তরে এই ভারতীয় সেনা বলছে, “জনাব হিন্দুস্তানে শুধু কাটাপ্পা আর উথাপ্পা চলছে”। গত কয়েকটি ম্যাচের মতো রবিবারও রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছিলেন রবিন উথাপ্পা। হায়দরাবাদবাসীদের তখন চিন্তা, ওয়ার্নারের ইনিংস যেন উথাপ্পায় চাপা না পড়ে যায়। তাদের স্বস্তি দিয়ে অবশ্য আউট হলেন উথাপ্পা। সেই সঙ্গে থেমে গেল কেকেআরের বিজয়রথ।

রবিবার ম্যাচে এক জনই রাজ করে গেলেন। ডেভিড ওয়ার্নার। ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখানো শুরু করেন তিনি। তাঁর দাপটের সামনে কেকেআরের বোলারদের তখন নাকানিচোবানি অবস্থা। একটা করে বল আসছে, গিয়ে পড়ছে মাঠের বাইরে। অপর ওপেনার শিখর ধাওয়ানের তখন একটাই কাজ। স্ট্রাইকটা ওয়ার্নারকে দিয়ে যাওয়া। দু’শো স্ট্রাইক রেট নিয়ে মাত্র ২৫ বলে ৫০ আসে ওয়ার্নারের। হায়দরাবাদের রান তখন পাঁচ ওভারে ৬৭।

এর পর আরও বিধ্বংসী রূপ ধারণ করেন তিনি। দ্বাদশ ওভারে দলের স্কোর যখন ১২৬, শতরানে পৌঁছে যান তিনি। ধাওয়ানের রান তখন মাত্র ২০। ওয়ার্নার আউট হতে অবশ্য হায়দরাবাদের রান রেটে কিছুটা ব্রেক কষে কেকেআর। এক সময় যে রান মনে হচ্ছিল ২৩০ পেরিয়ে যাবে সেটাই ২০৯-তে থেমে যায়।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই নারিন এবং গম্ভীরকে হারালেও মনীশ পাণ্ডেকে সঙ্গে নিয়ে দলের আশা জিইয়ে রেখেছিলেন উথাপ্পা। আগের কয়েকটি ম্যাচের মতো এ দিনও শুরু থেকে তাণ্ডব শুরু করেন তিনি। কিন্তু পঁচিশ বলে অর্ধশতরান করার একটু পরেই থেমে যায় উথাপ্পার ইনিংস। তিনি ফিরতেই অবশ্য কেকেআরের ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে যায়।

ম্যাচের শেষ কয়েকটি ওভারে আরও মুষড়ে পড়ে কেকেআর। রানও বেশি ওঠেনি। কুড়ি ওভারে মাত্র ১৬১ রানেই শেষ হয় ইনিংস। ৪৮ রানে হার অর্থাৎ খুবই বড়ো অঙ্কের হার। এর ফলে নেট রানরেট কিছুটা ধাক্কা খেলেও, লিগ শীর্ষেই থাকল কলকাতা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here