ডং-নাটকেই ফের পুরোনো কাজিয়া ভেসে উঠছে ইস্টবেঙ্গলে

0

মাঝের সময়টা এক বছরের কিছুটা বেশি। ইস্টবেঙ্গলের কর্তা-সমর্থকদের এক সময়ের নয়নের মণি ডু ডং এখন তাঁদের চোখের বালি। কোচ ট্রেভর জেমস মরগ্যানের পছন্দের তালিকায় না থাকায় এ বারের চলতি আই লিগের জন্য আর রাখা হচ্ছে না ডু ডংকে। সেইমতো ডং ও তার এজেন্টের সঙ্গে চূড়ান্ত কথা বলে ছাড়পত্র ধরিয়ে দেওয়ার কথা ছিল মঙ্গলবারই। কিন্তু তাঁকে রিলিজের আগেই অন্য নাটক। হঠাৎই লাল-হলুদ ক্লাব কর্তাদের এক পক্ষ ডংয়ের প্রতি নরম মনোভাব দেখাতে শুরু করেছেন। শেষ পর্যন্ত তাতে ডংয়ের লাল-হলুদ জার্সিতে নামা আর না হলেও নাটকের শেষাঙ্ক লম্বা হওয়ারই সম্ভাবনা।

সূত্রের খবর, এক বছরের টাকা অগ্রিম চেয়েছেন ডং। ক্লাবও জরিমানা বাবদ তাঁকে টাকা দিতে রাজি হলেও, এক বছরের টাকার বোঝা টানতে রাজি নন ক্লাবসচিব কল্যাণ মজুমদার। তাঁর মতে, ডংকে পুরো বছরের টাকা জরিমানা হিসেবে দেওয়া ও তার পরে ফের নতুন বিদেশিকে দলে নেওয়ায় আখেরে ক্লাবের কোষাগারে বাড়তি চাপ পড়বে। কিন্তু তাঁর এ হেন অবস্থানের পিছনে ভেসে আসছে অন্য তরজা। ক্লাবের কোচের পদে ট্রেভর মরগ্যানকে দ্বিতীয় বারের জন্য বসাতে একদমই রাজি ছিলেন না তিনি। তার উপরে ডংয়ের বদলে ইস্টবেঙ্গলে খেলে যাওয়া, বলা ভালো ব্যর্থ হওয়া অস্ট্রেলিয়ান বরিসিচকে ফের ফেরাতে চাইছেন ব্রিটিশ কোচ। সেই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একদমই খাপ খাইয়ে নিতে পারছেন না ক্লাবের এই অন্যতম কর্তা। বরং মরগ্যানকে পালটা খোঁচা দেওয়ার সুযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি জানান, ডংকে ঠিক কোথায় খেলালে ও কার্যকর ভূমিকা নিতে পারে তা বরদলৈ ট্রফিতে দেখিয়ে দিয়েছেন অ্যাকাডেমির কোচ রঞ্জন চৌধুরী।

ফুটবলসচিব সন্তোষ ভট্টাচার্য ও ইউবি গ্রুপের প্রতিনিধি পুরো বছরের টাকা দিয়ে ডংয়ের সঙ্গে গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মঞ্চ তৈরি করে ফেললেও তা যেন হঠাৎই থমকে গিয়েছে এ দিনের ঘটনাপ্রবাহে। যদিও ফুটবলসচিব আত্মবিশ্বাসী কন্ঠে দাবি করছেন, বৃহস্পতিবারের মধ্যে সমস্ত রকম অসুবিধা কেটে যাবে ও ডংকে রিলিজ করে দেওয়া সম্ভব হবে।

এ দিকে শোনা যাচ্ছে, ইস্টবেঙ্গলে আর খেলা হবে না ধরে নিয়েই নিজের পদক্ষেপ নিতে শুরু করে দিয়েছেন ডং ও তাঁর এজেন্ট। ভারতে থেকে যাওয়ারই সম্ভাবনা বেশি এই কোরিয়ান মিডফিল্ডারের। ভেসে আসছে ডিএসকে শিবাজিয়ান্স, ডেম্পোর মতো দলের নাম। তবে সম্ভাবনা বেশি গোয়ার ডেম্পোরই। দলের কোচ আর্মান্দো কোলাসোর সঙ্গে অ্যালভিটোর সম্পর্ক ভালো। আর কিছু দিন আগেই ইস্টবেঙ্গলের ঘরের ছেলে থেকে বিতাড়িত অ্যালভিটোর বিশেষ বন্ধু ডং। তাই কোরিয়ান ফুটবলারের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া শুরু করেছেন অ্যালভিটো, ময়দানে ভেসে বেড়াচ্ছে এ রকম খবরই। 

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন