অতিরিক্ত আবেগপ্রবণ হওয়ারই প্রভাব পড়েছিল বিরাটের ব্যাটিং-এ, মত সৌরভের

0
112

দুবাই: এক দিকে অধিনায়ক হিসেবে ভারতকে যেমন সাফল্যের শৃঙ্গে পৌঁছে দিয়েছেন, অন্য দিকে ব্যাট হাতেই চূড়ান্ত সফল বিরাট কোহলি। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিনটে টেস্টে হঠাৎ করে ফর্ম হারিয়েছিলেন তিনি। অস্ট্রেলিয়া সিরিজের আগে ভারতের খেলা চারটে সিরিজের প্রত্যেকটাতেই দ্বিশতরান হাঁকিয়ে অনবদ্য রেকর্ড ছিল তাঁর। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া সিরিজে তিনটে টেস্টের পাঁচটা ইনিংসে তাঁর রান যথাক্রমে ০, ১৩, ১২, ১৫ এবং ৬। এই ফর্ম হারানোর জন্য অধিনায়কের অনেক ভক্তই এখন চিন্তিত।

সৌরভ গাঙ্গুলি এবং বিরাট কোহলি। অধিনায়ক হিসেবে দু’জনেই একই রকম। অধিনায়ক হয়ে সৌরভ অস্ট্রেলীয়দের বিরুদ্ধে চোখে চোখ রেখে কথা বলার বার্তা দিয়েছিলেন নিজের দলকে। বিরাটও সেই রকমই। জেতার জন্য যতটা সম্ভব যাওয়ার তিনি যেতে প্রস্তুত।  এই জেতার মানসিকতাই বিরাটের ব্যাটিং-এ প্রভাব ফেলেছিল বলে মত সৌরভের। আইসিসি’র ওয়েবসাইটে নিজস্ব কলমে সৌরভ লেখেন, “অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বিরাট জেতার জন্য এতটাই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিল, যে এর ফলে ওর ব্যাটিং-এ প্রভাব পড়েছিল। বিরাটের কাছে এটা একটা শিক্ষা হয়ে থাকবে। ও এত ভালো একটা প্রতিভা। এ বার নিজের মাথাটা ঠান্ডা করে ফের বড়ো রানে ফিরে আসুক বিরাট।”

এ ছাড়া বিরাটের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন সৌরভ। তাঁর মতে অধিনায়ক হিসেবে খুব উচ্চস্থানে বসবেন বিরাট। “আমার কাছে দু’টো বিরাট। এক জন ব্যাটসম্যান আর অন্য জন অধিনায়ক। রানের খিদে বিরাটকে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যানদের তালিকায় ফেলে দিয়েছে। অধিনায়ক হিসেবে বিরাট খুবই আবেগপ্রবণ এবং সর্বোপরী ও একজন নেতা। বিরাট সব সময় জিততে চায়। সব সময় চায় এক নম্বর হতে”, এমনই মত প্রকাশ করেন সৌরভ।

বিরাটের পাশাপাশি রাহুল, জাদেজা এবং উমেশ যাদবকেও প্রশংসায় ভরিয়ে দেন সৌরভ। তবে তাঁর বিশেষ প্রশংসা পান চেতেশ্বর পুজারা। সৌরভের মতে বিদেশে টেস্ট ম্যাচ জিততে গেলে পুজারাকেই মুখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে। 

সৌরভ লেখেন, “সিরিজের ফলাফলের থেকেও বেশি আমি উপভোগ করেছি রাহুল, জাদেজা এবং উমেশের পারফরমেন্স। তিন জনের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়েছে। কিন্তু আমার মতে এই সিরিজে সেরা যদি কেউ থাকে সে চেতেশ্বর পুজারা। গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে একটা টেস্টে বাদ পড়েছিল পুজারা। আমি তখন পুজারার বাদ পড়ার বিরোধিতা করেছিলাম কারণ ও একজন বিশেষ প্রতিভা। পুজারার ব্যাট থেকে এই মরশুমে ১৩১৬ রান এসেছে। বিদেশে এই ভারতীয় দলের অন্যতম প্রধান ভরসা হবে পুজারার ব্যাট।” এর পাশাপাশি সৌরভ আরও যোগ করেন, “বিশ্বের যে কোনো প্রান্তেই জেতার ক্ষমতা রয়েছে এই দলের।”

সৌরভের মতে ধর্মশালা টেস্টই এই সিরিজের ভারতের জেতা সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট। তার কারণও ব্যাখ্যা করেন তিনি। “তৃতীয় দিন ভারতীয় পেস আক্রমণের সামনে যে ভাবে অস্ট্রেলিয়া ভেঙে পড়ল, সেটা দেখে খুব শান্তি পেয়েছি। ভারতের সব থেকে স্মরণীয় জয়টা এমন একটা পিচে এল, যেখানে ভারতের থেকে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার।”

এর পর নিজের কলমে ভারতীয় কোচ অনিল কুম্বলেকে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন সৌরভ। সৌরভের মতে, কুম্বলের জন্য বিদেশের মাঠেও সফল হবেন ভারতের স্পিনার আর সেটা হলেই বিদেশে জেতার জন্য ভারতের যা প্রয়োজন সব কিছু পূর্ণ হবে। সৌরভের মতে, এই সিরিজেই অজি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ নিজেকে ভালো থেকে মহান ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিণত করেছেন।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here