ওয়েবডেস্ক: আরও একটি বিশ্বপর্যায়ের ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হতে চলেছে শনিবার সন্ধ্যায়। ফিফা কনফেডারেসশন্স কাপ। এই টুর্নামেন্টকে এক কথায় বলা হয় ‘চ্যাম্পিয়ন অফ চ্যাম্পিয়ন্স’ লড়াই বা সেরার সেরা হওয়ার লড়াই। এই টুর্নামেন্ট সংক্রান্ত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

টুর্নামেন্টের বিবরণ

বিশ্বকাপের ‘ওয়ার্ম আপ’ বলা হয় এই টুর্নামেন্টকে। প্রতি চার বছর অন্তর আয়োজন করা হয়। ফুটবল বিশ্বকাপের আগের বছর এই টুর্নামেন্টটি হয়। বিশ্বকাপ যে দেশে হবে, কনফেড কাপের আয়োজকও সেই দেশই। সামনের বছর বিশ্বকাপ রাশিয়ায়, তাই কনফেড কাপও আয়োজন করছে রাশিয়াই।

টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করছে আটটি দল। আয়োজক দেশ এবং বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ছাড়াও অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন মহাদেশে হওয়া ফিফার চ্যাম্পিয়নশিপের বিজয়ীরা।

এ বারের অংশগ্রহণকারী দেশ

কনফেড কাপের আয়োজক রাশিয়া, বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি এই টুর্নামেন্টে খেলছে। এ ছাড়াও থাকছে ২০১৫-এর এশিয়ান কাপ বিজয়ী অস্ট্রেলিয়া, ২০১৫-এর কোপা আমেরিকা বিজয়ী চিলে, ২০১৬-এর ওশিয়ানিয়া কাপ জয়ী নিউজিল্যান্ড, ২০১৬-এর ইউরো কাপ জয়ী পোর্তুগাল, ২০১৭-এর আফ্রিকান নেশন্স কাপ জয়ী ক্যামেরুন এবং ২০১৫-এর কনকাকাফ বিজয়ী মেক্সিকো।

গ্রুপ ভাগ

অংশগ্রহণকারী আটটি দেশকে দু’টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। গ্রুপ ‘এ’-তে থাকছে রাশিয়া, জার্মানি, চিলে, পোর্তুগাল। গ্রুপ ‘বি’-তে থাকছে মেক্সিকো, অস্ট্রেলিয়া, ক্যামেরুন, নিউজিল্যান্ড। শনিবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে আটটায় উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে রাশিয়া এবং নিউজিল্যান্ড। ২ জুলাই হবে ফাইনাল।

কোথায় হবে খেলা

মস্কো, সেন্ট পিটার্সবার্গ, কাজান এবং সোচিতে হবে খেলা। কাজান এবং সোচিতে হবে দু’টি সেমিফাইনাল। তৃতীয় স্থানাধিকারীর ম্যাচ হবে মস্কোয় এবং ফাইনাল হবে সেন্ট পিটার্সবার্গ।

চমকপ্রদ অনুপস্থিতি

১৯৯৭ থেকে টুর্নামেন্টটি আয়োজিত হচ্ছে। কিন্তু এ বারই প্রথম এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পায়নি ব্রাজিল। এর কারণ ২০১৫-এর কোপা বা ২০১৪-এর বিশ্বকাপ, কিছুতেই বিজয়ী হয়নি তারা। ২০১৪-এর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে লজ্জাজনক হারের পর তৃতীয় স্থানাধিকারীর ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের কাছেও হারে তারা। অন্য দিকে তার পরের বছর কোপা আমেরিকায় কোয়ার্টার ফাইনালেই বিদায় নিতে হয় তাদের।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here