juvecr7final

ওয়েবডেস্ক: রেয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে ন’বছরের সম্পর্কে ইতিমধ্যেই ইতি টেনেছেন পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। প্রায় ১০ কোটি পাউন্ডে তাঁকে রেয়াল থেকে দলে এনেছে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্তাস। বর্তমানে ইতালিয়ান লিগের সেই জনপ্রিয়তা অনেকটাই ভাটা পড়েছে। ফলে রোনাল্ডোর আগমনে ‘টিআরপি’-র দিকটা যে অনেকটাই জোশ পাবে তা চোখ বন্ধ করে বলে দেওয়া যায়। তবে কথাতেই আছে কারওর পৌষমাস তো কারওর সর্বনাশ। ন’ বছর লা-লিগায় নিজের আধিপত্য বিস্তার করেছেন সি আর সেভেন। ফলে যখন মহাতারকারা নিজেদের জায়গা পরিবর্তন করেন তখন সেই জায়গা সহজে ভরাট করার মতো ক্ষমতা সবার থাকে না। হয়তো ভবিষ্যতে নিশ্চয়ই কারওর আগমন হবে। কিন্তু বর্তমানে অনেকটাই খামতি অনুভব করবে লা-লিগাপ্রেমী থেকে স্পেনের ফুটবল-বৈচিত্র্য।

জেনে নিন রোনাল্ডোর প্রস্থানে পাঁচ ক্ষতিগ্রস্তের কথা:

১। রেয়াল মাদ্রিদ

এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই বয়স্ক রোনাল্ডোকে বিক্রি করে ভালোই ফায়দা তুলেছে রেয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু রোনাল্ডো কোনো সাধারণ মানের খেলোয়াড় নন। অতি বড়ো রোনাল্ডো সমালোচকও তা বলতে দ্বিধা করবে না। কারণ রেয়ালের সাদা জার্সিতে তাঁর উজ্জ্বল পরিসংখ্যান। ক্লাবের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। ৪৩৮ ম্যাচে ৪৫০ গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগে ১০৫ গোল রেয়াল জার্সিতে। অবশ্যই সর্বোচ্চ। শুধু তা-ই নয়, রেয়ালের হয়ে লা-লিগায় সর্বোচ্চ গোল (৩১১) এবং অ্যাসিস্ট (৮৫)। ফলে এখন রোনাল্ডোর জায়গায় যিনি-ই আসুন না কেন তিনি যে বিশাল চাপ অনুভব করবেন তা বলাই বাহুল্য।

real11600

২। লা লিগা

এই মুহূর্তে বিশ্বের দুই সেরা খেলোয়াড় রোনাল্ডো এবং মেসি। মেসির বার্সেলোনা অ্যাকাডেমি থেকেই উত্থান। কিন্তু রোনাল্ডোর ক্ষেত্রে তেমনটা ছিল না। বিশ্বের সেরা লিগগুলির তালিকা যদি করা হয়, তা হলে সর্বপ্রথম কিন্তু ইপিএলই মাথায় আসে। কেন না প্রিমিয়ার লিগ শুধু দু’টি দলের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। আর ছোটো-বড়োর মধ্যে তেমন তফাতও নেই। সে দিক দিয়ে লা লিগা অনেকটাই পিছিয়ে ছিল। কিন্তু রোনাল্ডোর মাদ্রিদে আগমনের পর চিত্রতা অনেকটাই বদলাতে শুরু করে। কারণ দুই মহারথী যখন এক জায়গায় অবস্থান করেন তখন টক্কর তো লাগবেই। ফলে রেয়াল-বার্সা ‘এল ক্লাসিকো’ ম্যাচে যে দর্শক-ভাটা অনেক গুণ পড়বে তা এখন থেকেই পরিস্কার।

laliga600

৩। মেসি-রোনাল্ডো

এই দুই মহাতারকাকে নিয়ে অনেক বিশ্লেষণ হয়েছে। শেষ দশ বছরে তাঁরা বিশ্বের দুই সেরা খেলোয়াড়। লা-লিগা জমিয়ে রাখার একমাত্র কারণ ছিলেন তাঁরা। কিন্তু নতুন মরশুম থেকে তা আর চোখে পড়বে না। সবই এখন ইতিহাস। দু’জন একে অপরের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত স্তরে ছাপিয়ে যাওয়ার চেষ্টা প্রতি মিনিটেই করেছেন। কিন্তু দু’জনের একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাও ছিল চরম। ‘এল ক্লাসিকো-তে’ নামার আগে মেসি যে রোনাল্ডোর অনুপস্থিতি হাড়েহাড়ে অনুভব করবেন তা বলাই যায়। অন্য দিকে যা প্রযোজ্য রোনাল্ডোর ক্ষেত্রেও। জুভেন্তাসের হয়ে বড়ো ম্যাচে নামলেও মাঠে মেসির অনুপস্থিতি কিন্তু তাঁকেও সমান ভাবে টানবে।

mesron600

৪। করিম বেঞ্জেমা

রোনাল্ডোর রেয়াল মাদ্রিদে সব চেয়ে কাছের বন্ধু ছিলেন তাঁর সতীর্থ বেঞ্জেমা। ২০০৯-তে তিনিও রেয়ালে যোগ দেন। ফলে তাঁদের সম্পর্ক যে বন্ধুত্বের থেকেও বেশি ছিল তা অতীতে অনেক বারই দেখা গিয়েছে। রেয়ালের ফরওয়ার্ড লাইনে রোনাল্ডোর সঙ্গে তাঁর বোঝাপড়াও ছিল দেখার মতো। যার সাফল্য বহু বার পেয়েছে রেয়াল মাদ্রিদ। ফলে সঙ্গীর বিদায়ে তিনি যে অনেকটাই বিমর্ষ তা পরিষ্কার। কারণ রোনাল্ডোর অনুপস্থিতিতে তাঁর দায়িত্বও কিন্তু অনেকটা বেড়ে গেল।

benzema600

৫। খুয়ান লোপেৎগুই

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে সব চেয়ে বড়ো ধাক্কাটা কিন্তু খেয়েছিলেন ইনি। স্পেন জাতীয় দলের কোচ ছিলেন। কিন্তু টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার আগে তাঁকে বরখাস্ত করে স্পেনের ফুটবল সংস্থা। যার কারণ জাতীয় দলের কোচ থাকাকালীন দেশের অন্যতম বিখ্যাত ক্লাব রেয়ালের আগামী মরশুমের কোচ হবেন বলে সম্মতি দিয়েছিলেন। যা একদমই মেনে নিতে পারেনি জাতীয় ফুটবল সংস্থা। ফলে রেয়ালে হয়ে নতুন মরশুমে কোচিং করাবেন ঠিকই, কিন্তু বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়কে ছাড়াই। যা যে কোনো কোচেরই স্বপ্ন থাকে। ফলে সেই দিক থেকে কিছুটা হতভাগ্য তিনি।

lopetegui600

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here