realmadrid

বায়ার্ন মিউনিখ – ১              রেয়াল মাদ্রিদ – ২

ওয়েবডেস্ক: চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয় রেয়াল মাদ্রিদের। বুধবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালের প্রথম লেগের অ্যাওয়ে ম্যাচে তারা হারাল জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখকে। এদিন ম্যাচের শুরুতেই সুযোগ পেয়ে যায় বায়ার্ন। তবে সেই সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন দলের সেরা স্ট্রাইকার লিওনডোস্কি। এদিন গোলের সুযোগের থেকেও বায়ার্নের চিন্তার কারণ ছিল চোট সমস্যা। ম্যাচের দশ মিনিটের মধ্যে পেশিতে টান পেয়ে মাঠ ছাড়েন আর্জেন রবেন। আক্রমণে উঠে আসার লক্ষ্যে মাঝমাঠ দখলের চেষ্টা করতে থাকে দু’দলই। যত সময় যায় ম্যাচে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে থাকে রেয়াল মাদ্রিদ। ইস্কোর শট বিপক্ষ ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। রেয়ালের ক্রমাগত আক্রমণ থাকলেও, খেলার বিপক্ষে গিয়ে গোল করে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। ২৮ মিনিটে বিশ্বমানের গোলে বায়ার্নকে এগিয়ে দেন কিম্মিচ।

bay-real-ucl

এগিয়ে গিয়ে আক্রমণে্ ঝাঁজ বাড়াতে থাকে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। সুযোগ পেয়ে কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন রিবেরি। তবে চোট সমস্যা অব্যাহত ছিল বায়ার্নের। এবার চোট পেয়ে বাইরে চলে যান দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় বোটেং। তবে প্রথমার্ধের সবথেকে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন সেই রিবেরি। পায়ে-বলে জমাতে ব্যর্থ হন তিনি। ক্রমাগত আক্রমণ শানাতে থাকে বায়ার্ন। মুলারের শট রেয়াল ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। তবে প্রতি আক্রমণে নিজেদের ফসল অবশেষে পেয়ে যায় রেয়াল। প্রথমার্ধের নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে রেয়ালের হয়ে সমতা ফেরান ব্রাজিলিয়ান মার্সেলো। অতিরিক্ত সময়ে লিওনডোস্কি যদি সুযোগ কাজে লাগাতে পারতেন তবে বিরতিতে এগিয়ে শেষ করত বায়ার্ন মিউনিখ।

allianzarena

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণ রেয়ালের। তবে প্রতি আক্রমণে ছেড়ে কথা বলেনি বায়ার্নও। সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন মুলার। যত সময় যায় আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে খেলা জমে উঠতে থাকে। যার ফল, প্রতি আক্রমণে উঠে এসে দ্বিতীয় গোল রেয়ালের। একক দক্ষতায় রেয়ালকে প্রথবারের জন্য ম্যাচে এগিয়ে দেন পরিবর্তিত খেলোয়াড় আসেনসিও। পিছিয়ে পড়ে সমতা ফেরানোর লক্ষ্যে আক্রমণে উঠে আসতে থাকে বায়ার্ন। প্রথমার্ধের মতো দ্বিতীয়ার্ধেও বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করেন বায়ার্নের অন্যতম ভরসা রিবেরি। এদিন সারা মাঠ জুড়ে খেললেন ফ্রান্সের জাতীয় দলের এই খেলোয়াড়। তবে শুধু গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ হন তিনি। শেষদিকে আক্রমণে উঠে এলেও ব্যবধান আর বাড়াতে পারেনি রেয়াল। নির্ধারিত সময়ের শেষদিকে সুযোগ পেলেও তা কার্যকর করতে পারেননি লিওনডোস্কি।

ম্যাচ শেষে রেয়াল কোচ জিনেদিন জিদান জানান,”অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে দ্বিতীয় লেগে আমরা অনেকটা এগিয়ে থাকব। তবে ঘরের মাঠে জয় ছাড়া আর কিছুই ভাবছি না”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here