amna

ওয়েবডেস্ক: শোনা গিয়েছিল বুধবারই দল থেকে বিদায়ের চিঠি আমনাকে ধরিয়ে দেবে লালহলুদ। কিন্তু তা হয়নি। কারণ মরশুমের শুরুতে ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে তাঁর চুক্তি হয়েছিল। ফলে তাঁকে মাঝপথে দলছুট করার কোনো আইনি উপায় ছিল না। অন্য দিকে স্প্যানিশ কোচ কোনো মতেই তাঁকে দলে রাখতে চান না।

তবে শেষমেশ সব জল্পনা উড়িয়ে দিলেন আমনা নিজেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলেন তিনি।

ss

তিনি জানান, “সমস্ত ইস্টবেঙ্গল সমর্থকের উদ্দেশে বলতে চাই, কয়েক সপ্তাহ আমি চুপচাপ ছিলাম, মিডিয়া আমার প্রতি যতই অবিচার করুক। কারণ আমি ক্লাবকে খুবই সম্মান করি। তবে আমাকে কিছু বিষয় পরিষ্কার করতে হবে। ক্লাবের কোনো ক্ষতির কারণ হওয়া আমার পক্ষে অসম্ভব। কারণ, আমি তোমাদেরই একজন, আমিও তোমাদের মতো ব্যথা অনুভব করি। তবে তোমাদের জানা উচিত ক্লাব আমার সঙ্গে শুধু ৫ ডিসেম্বর অর্থাৎ মিনার্ভা ম্যাচের পর দেখা করে। আমার যে টাকা পাওনা আছে তাঁর ৬০ শতাংশ আমি ছেড়ে দিই এবং সমস্ত শর্তে রাজি হই। ভেবেছিলাম, আমি তাড়াতাড়ি ফিট হয়ে যাব। পরে আমি দলের মনোভাবটা বুঝলাম। এবং বিশেষ করে আগামী ডার্বি, যা দলের পক্ষে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমিও স্বপ্ন দেখেছিলাম বাকিদের মতো ১৫ বছর পর আইলিগে জয় পাওয়া নিয়ে। তবে ভাগ্যের লিখন ছিল অন্য। ইস্টবেঙ্গল এবং সমর্থকরা সব সময় আমার হৃদয়ে থাকবে। আমি স্মৃতিগুলো কখনও ভুলব না। ইস্টবেঙ্গল জার্সি গায়ে দিতে পেরে আমি গর্বিত।”

আরও পড়ুন বিশ্বের সব থেকে বড়ো ফুটবল লিগ কোনটি, জানেন কি?

কোয়েস ভেয়েছিল নভেম্বর ও ডিসেম্বরের বেতন দিয়ে আমনাকে দেশে পাঠিয়ে দিতে। কিন্তু আমনা নাকি বেঁকে বসেন। তাঁর দাবি ছিল, তাঁকে আরও পাঁচ মাসের টাকা, অর্থাৎ পুরো মরশুমের টাকা দিতে হবে।

শেষ পর্যন্ত তাঁকে ঘিরে যাবতীয় বিতর্ক-জল্পনার অবসান ঘটালেন আমনা নিজেই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here