europachamps-atletico

মার্সেই – ০         আতলেতিকো মাদ্রিদ – ৩

ওয়েবডেস্ক: ইউরোপা লিগ চ্যাম্পিয়ন আতলেতিকো মাদ্রিদ। এই নিয়ে শেষ ন’বছরে তিন বার ইউরোপের দ্বিতীয় সেরা দল আতলেতিকো। অ্যান্টন গ্রিজম্যানের জোড়া গোলে তারা হারাল ফ্রান্সের মার্সেইকে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অলিম্পিক লিয়োর ঘরের মাঠে ফাইনালে শুরুটা ভালোই করে মার্সেই। পাঁচ মিনিটের মধ্যে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন জারমেইন। এর কিছুক্ষণের মধ্যে ফের সুযোগ। তবে রামির শট একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। আক্রমণাত্মক থাকলেও গোল মুখ খুলতে ব্যর্থ হয় মার্সেই। যা ম্যাচের স্কোরলাইন দেখলেই বোঝা যায়।

খেলার বিপক্ষে গিয়ে অবশ্য প্রথম গোল আতলেতিকোর। সৌজন্যে দলের সেরা অস্ত্র গ্রিজম্যান। বিশ্বকাপের আগে ফাইনালে দেশের মাটিতে নামের প্রতি সুবিচার করলেন তিনি। মার্সেই গোলকিপার মানডান্ডার দেওয়া বল নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হন ডিফেন্ডার আঙ্গুইসা। যা থেকে পাওয়া সুযোগে প্রথম গোল গ্রিজম্যানের। পিছিয়ে পড়ে আরও বড়ো ধাক্কা খায় মার্সেই। দলের নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় এবং অধিনায়ক পায়েট চোট পেয়ে বেড়িয়ে যান। পরিস্থিতি যা তাতে বিশ্বকাপে তাঁর না থাকার সম্ভানাই বেশি। এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় আতেলেতিকো।

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য প্রথম থেকেই আক্রমণ ডিয়েগো কোস্তাদের। যার ফল মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে গোল। নিজের এবং দলের হয়ে দ্বিতীয় গোল সেই গ্রিজম্যানের। কেন তিনি এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার তা ফাইনালেও বুঝিয়ে দিলেন। যত সময় যায় আক্রমণে খেলা নিয়ন্ত্রণ করতে থাকে আতলেতিকো। প্রথমার্ধের সেইরকম ঝাঁজ দ্বিতীয়ার্ধে সেইরকম ভাবে পাওয়া যায়নি মার্সেইর দিক থেকে।

ভালো ফুটবলের সঙ্গে একটা ভাগ্যেরও দরকার হয়, যা এদিন মার্সেই খেলোয়াড়রা ম্যাচ শেষে নিশ্চয়ই বুঝতে পারলেন। নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হওয়ার আগে, মার্সেই কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দেন অধিনায়ক গাবি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here