ronaldo-cl

রেয়াল মাদ্রিদ – ১     ( দুই পর্ব মিলিয়ে ৪-৩ ব্যবধানে জয়ী রেয়াল )    জুভেন্তাস – ৩ 

ওয়েবডেস্ক: অতিরিক্ত সময় রোনাল্ডোর পেনাল্টিতে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিল রেয়াল মাদ্রিদ। দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠে হেরে গিয়েও, দুই পর্ব মিলিয়ে জয় পেল স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম লেগে তিন গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থাকার সুবাদে, ঘরের মাঠে রেয়ালের কাছে ম্যাচ শেষ করা ছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা। তবে ফুটবলে নব্বই মিনিটে যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারে। যার প্রমাণ, গত রাতে এএস রোমার দুর্দান্ত কামব্যাক, যা নিশ্চয়ই প্রেরণা জুগিয়েছিল জুভেন্তাসকে। যার ফল এদিন শুরুতেই পেয়ে যায় তারা। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই রেয়ালের প্রাক্তনী খেদিরার বলে জুভেন্তাসকে এগিয়ে দেন মান্ডুকিচ। গোল পেয়ে আক্রমণ বাড়াতে থাকে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নরা। প্রতি আক্রমণে ঘরের মাঠে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করে রেয়ালও। বেলের শট বাঁচিয়ে দেন জুভেন্তাস গোলকিপার বুঁফো। ইস্কোর গোল বাতিল হয় অফসাইডের কারণে। ক্রমশ চাপ বাড়াতে থাকে রেয়াল। ফের ইস্কোর নেওয়া শটে অবধারিত গোল বাঁচান বুঁফো। তবে প্রতি আক্রমণে আসতে থাকা জুভেন্তাস ম্যাচ জমিয়ে দেয়। ফের গোল করেন মান্ডুকিচ। যার ফলে বিরতিতে দু’গোলে পিছিয়ে থাকে রেয়াল।

 

buffon-cl

দ্বিতীয়ার্ধেও শুরু থেকেই আক্রমণ শানাতে থাকে জুভেন্তাস। যার ফলও পেয়ে যায় তারা কিছুক্ষণের মধ্যে। বক্সের মধ্যে বল ধরতে ব্যর্থ হন রেয়াল গোলকিপার নাভাস। সামনেই দাঁড়িয়ে থাকা বিপক্ষ খেলোয়াড় মাতুইদি গোল করতে ভুল করেননি। পিছিয়ে পড়েও হাল ছাড়েনি রেয়াল। কারণ তাদের দরকার ছিল শুধু মাত্র একটি গোল। ফলে শেষ দিকে প্রবল ভাবে আক্রমণ বাড়িয়ে, ম্যাচে ফিরে আসে রেয়াল মাদ্রিদ। যখন মনে হচ্ছিল ম্যাচ হয়তো অতিরিক্ত তিরিশ মিনিটে যাচ্ছে, তখনও নাটক বাকি ছিল। ক্রমাগত আক্রমণের ফল পেয়ে যায় রেয়াল। বক্সের মধ্যে ভাস্কেজকে ফাউল করেন জুভেন্তাস খেলোয়াড় বেনেতিয়া। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি, রেয়ালের তারকা খেলোয়াড় ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো। মরশুমে করে ফেললেন ৪১ তম গোল। তবে এই পেনাল্টি নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভ জুভেন্তাস শিবিরে। রেফারির সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জরিয়ে পড়ে, লাল কার্ড দেখেন জুভেন্তাস গোলকিপার বুঁফো।

ম্যাচ শেষে রেয়াল কোচ জিনেদিন জিদান জানান, ” ঘরের মাঠে আমাদের চাপে ফেলে দিয়েছিল জুভেন্তাস। দারুন খেলেছে ওঁরা। তবে শেষ পর্যন্ত লড়াইয়ের ফল পেয়েছে ছেলেরা। এই ম্যাচ এখন অতীত। লক্ষ্য এখন সেমিফাইনাল”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন