ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের শরীরে বসানো হবে হার্ট ডেফিব্রিলেটর, জানাল ড্যানিশ ফুটবল সংস্থা

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ড্যানিশ ফুটবল তারকা ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের (Christian Eriksen) শরীরে হার্ট ডেফিব্রিলেটর বসানো হবে। ডেনমার্কের ফুটবল সংস্থা ড্যানিশ ফুটবল ইউনিয়ন (ডিবিইউ, DBU) এই খবর জানিয়েছে।

ড্যানিশ ফুটবল সংস্থা বৃহস্পতিবার টুইটারে এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, “এরিকসেনের হৃদযন্ত্র নিয়ে নানা পরীক্ষানিরীক্ষার পর সিদ্ধান্ত হয়েছে, তাঁর শরীরে আইসিডি (হার্ট স্টার্টার) বসানো হবে।”

Loading videos...

এই আইসিডি-ই হল হার্ট ডেফিব্রিলেটর (heart defibrillator)। এই যন্ত্রের কাজ হল ইলেকট্রিক পালস্‌ পাঠিয়ে হৃদযন্ত্রের চলার ছন্দ স্বাভাবিক রাখা।

মাঠেই হৃদরোগে আক্রান্ত

গত শনিবার ইউরো কাপে ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠে পড়ে যান এরিকসেন। তখন সতীর্থ খেলোয়াড় এবং মাঠে উপস্থিত থাকা ডাক্তার সিপিআর (কার্ডিওপালমোনারি রেসাসসিটেশন, CPR, cardiopulmonary resuscitation) অর্থাৎ বুকে ম্যাসাজ করে হৃদযন্ত্র সচল রাখার চেষ্টা করা হয়। সেই ম্যাসাজ কাজে দেয়। এরিকসেনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়।

ডিবিইউ বলেছে, “হৃদযন্ত্রের চলার ছন্দে গোলযোগের দরুন কেউ যদি হৃদরোগে আক্রান্ত তা হলে তাঁর শরীরে এই যন্ত্র বসানোর প্রয়োজন হয়।”

ডিবিইউ আরও জানিয়েছে, “এরিকসেন এই সমাধান মেনে নিয়েছেন” এবং “দেশের এবং আন্তর্জাতিক স্তরের যে সব বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসার সুপারিশ করেছেন, তাঁরাও এটি সমর্থন করেছেন।”

এরিকসেনের ভবিষ্যৎ

কিন্তু ইন্টার মিলানের ২৯ বছর বয়সি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই মিডফিল্ডারের ফুটবল-কেরিয়ারের কী হবে সে সম্পর্কে কোনো ইঙ্গিত দেয়নি ডিবিইউ।

তবে শরীরে এই যন্ত্র নিয়ে ফের ফুটবল খেলা শুরু করেছেন, এমন নজির রয়েছে। নেদারল্যান্ডসের ডালে ব্লিন্ড এই যন্ত্র নিয়েই আবার খেলা শুরু করেন।

আজ বৃহস্পতিবারই ডেনমার্ক তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে নামবে। খেলা শুরুর ঠিক আগে এরিকসেনের চিকিৎসা সম্পর্কে এই ঘোষণা এল। আজকের ম্যাচের ১০ মিনিটে খেলা অল্পক্ষণ বন্ধ রেখে দলের ১০ নম্বর জার্সিধারী ফুটবলার এরিকসেনের সুস্বাস্থ্য কামনা করে তাঁর প্রতি শুভেচ্ছা নিবেদন করার কথা।

আরও পড়ুন: মাঠেই হঠাৎ অসুস্থ ডেনমার্কের এরিকসেন, নিয়ে যাওয়া হল হাসপাতালে, অবস্থা স্থিতিশীল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.