bayern-ucl

বায়ার্ন মিউনিখ – ০    ( দুই পর্ব মিলিয়ে ২-১ ব্যবধানে জয়ী বায়ার্ন )   সেভিয়া – ০

ওয়েবডেস্ক: চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল বায়ার্ন মিউনিখ। বুধবার, দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠে সেভিয়ার বিরুদ্ধে গোলশূন্য শেষ করল তারা। ফলে প্রথম লেগে পাওয়া জয়, শেষ নয় বছরের মধ্যে সপ্তমবার সেমিফাইনালে পৌঁছে দিল জার্মান চ্যাম্পিয়নদের। ইতিমধ্যেই ঘরোয়া লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেছে তারা। ফলে এই মুহূর্তে একমাত্র টার্গেট ইউরোপ সেরা হওয়া। সেই লক্ষ্যে এদিন প্রথম থেকেই আক্রমণাত্মক দল সাজান বায়ার্ন কোচ জুপ হাইঙ্কস। লিয়োন্ডোন্স্কি, মুলার, রড্রিগেজরা ঘরের মাঠে জয়ের লক্ষ্যে প্রথম থেকেই আক্রমণ করতে থাকে। প্রথমার্ধে ভালোই সুযোগ তৈরি করেছিল বায়ার্ন। সৌজন্যে দলের অন্যতম দুই সেরা খেলোয়াড়, রিবেরি এবং হাম্মেলস। তবে এই দু’জনের নেওয়া শটই পরাস্ত করতে পারেনি সেভিয়া গোলকিপারকে। তবে প্রতি আক্রমণে সুযোগ পেয়েছিল সেভিয়াও। করেয়ার শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। তবে আক্রমণ প্রতি আক্রমণে খেলা হলেও বিরতিতে কোনো দলই গোল করতে পারেনি। এই নিয়ে শেষ পঞ্চাশটি ম্যাচের মধ্যে তৃতীয়বার প্রথমার্ধে গোল করতে ব্যর্থ হয় বায়ার্ন।

 

ucl-match

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণ করতে থাকে বায়ার্ন। লিয়োন্ডোন্স্কির হেডার একটুর জন্য প্রতিহত হয়। সুযোগ পেয়েছিলেন থমাস মুলারও। তবে তার শট পরাস্ত করতে পারেনি সেভিয়া গোলকিপারকে। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য কিছুটা ডিফেন্সিভ খেলতে থাকে সেভিয়া। তবে প্রতি আক্রমণে আসা সুযোগ কাজে লাগাবার চেষ্টা করেন, করেয়া, সারাবিয়ারা। কিন্তু গোলমুখ খুলতে পারেনি সেভিয়া। যত সময় এগোয় ম্যাচে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে থাকে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। শেষ দিকে বায়ার্নের মারতিনেজকে বাজে ফাউল করার জন্যে লাল কার্ড দেখেন সেভিয়ার খেলোয়াড়, করেয়া। গোলশূন্য শেষ হয় খেলা। এর ফলে এই মরশুমে সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে তৃতীয়বার ঘরের মাঠে আটকে গেল বায়ার্ন মিউনিখ।

ম্যাচ শেষে বায়ার্ন কোচ জুপ হাইঙ্কস জানান, ” ফুটবলে সব দিন একরকম যায় না। তবে আমরা সেমিফাইনালে পৌঁছে গেলাম। সামনে যে-ই আসুক, নিজেদের সেরাটা দেওয়ার লক্ষেই মাঠে নামবো আমরা”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here