23

ইস্টবেঙ্গল – ৩                                   গোকুলাম – ১ 

ওয়েবডেস্ক: গত তিন ম্যাচে হার। স্বাভাবিক ভাবে একটা চাপ যে ইস্টবেঙ্গল শিবিরে ছিল সেই নিয়ে কোনো সন্দেহ ছিল না। তবে সেই চাপ কাটানোর জন্য দরকার ছিল একটা জয়। শনিবার ঘরের মাঠে তাই করলেন আলেজান্দ্রোর ছেলেরা।

ঘরের মাঠে গতিতে শুরু করেন তাঁরা। যার ফল ৪ মিনিটের মধ্যে দলকে এগিয়ে দেন ব্রান্ডন। তবে এ ক্ষেত্রে বিপক্ষ দলের কিছুটা গাফিলতিও লক্ষ্য করা যায়। দলের হয়ে ফের ব্যবধান বাড়াতে পারতেন তিনি। তবে দ্বিতীয়বার সুযোগ কার্যকর করতে পারেননি। সুযোগ পেয়েছিলেন ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় জবি জাস্টিনও। কিন্তু তাঁর হেডার বাঁচিয়ে দেন গোকুলামের খেলোয়াড়রা। তবে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি হোম টিমকে। দলের হয়ে ব্যবধান বাড়ান সেই জবি। প্রথমার্ধে পজেশনের ফুটবলে এগিয়ে থাকলেও, গোলের খাতা খুলতে পারেনি গোকুলাম।

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য শুরু থেকেই চাপ বাড়াতে থাকে অ্যাওয়ে দল। যার ফল ৫৮ মিনিটে দলের হয়ে ব্যবধান কমান সাবাহ। এ ক্ষেত্রে কিছুটা দায় থেকেই যায় ইস্টবেঙ্গল কিপারের। তবে প্রতিআক্রমণে ম্যাচে চাপ রাখে  ইস্টবেঙ্গলও। চাপ বাড়ান রালতে, বিদ্যাসাগররা। যার ফল ৮২ মিনিটে দলের হয়ে জয় নিশ্চিত করেন চুলোভা।

এই জয়ের ফলে গোকুলামকে টপকে লিগ তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে উঠে এল ইস্টবেঙ্গল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here