কলকাতা: শুক্রবার সকালের অনুশীলন সেরে শিলিগুড়ির উদ্দেশে রওনা দেবে মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গল। তার আগে বৃহস্পতিবার দু’পক্ষেই চলল ডার্বির জন্য মানসিক প্রস্তুতির কাজ।

কলকাতা ফুটবলে এই প্রথম মরশুম ইস্টবেঙ্গল কোচ খালিদ জামিলের। ফুটবলের শহরের চাপটা ভালোই টারে পাচ্ছেন ইস্টবেঙ্গলের মুম্বইকর কোচ। তার ওপর রয়েছে টানা আট বার কলকাতা লিগ জয়ের হাতছানি। ফুটবলারদের প্রস্তুত করার পাশাপাশি চলছে তাঁর নিজের প্রস্তুতিও। নিজে কখনও কলকাতা ডার্বির অংশ হওয়ার সুযোগ পাননি। তাই ডার্বির উত্তেজনা কেমন হয় বুঝতে ভিডিওতে দেখলেন পুরোনো বিভিন্ন ডার্বি ম্যাচ। তবে শুধু নিজে নয়। দেখালেন ফুটবলারদেরও। কারণ ডার্বির অভিজ্ঞতা এই ইস্টবেঙ্গল দলে খুব বেশি ফুটবলারেরও নেই। নিয়ম মতো অনুশীলন চললেও কামো-ক্রোমা জুটির জন্য চলল আলাদা পরিকল্পনা।

অন্যদিকে একই সমস্যা বাগান ফুটবলারদের। শিলটন-কিংশুক-আজহারউদ্দিন ছাড়া ডার্বি খেলার অভিজ্ঞতা নেই কোনো বাগান ফুটবলারেরই। আজহারের অভিজ্ঞতাও খুব বেশি নয়। তাই তরুণ ফুটবলারদের ডার্বি সম্পর্কে বোঝালেন শিলটন-কিংশুক। রবিবারের ম্যাচ শিলটনের কাছে আলাদা চ্যালেঞ্জেরও। কারণ দু’বছর আগে চার গোল খাওয়ার ম্যাচের পর আর কোনো ডার্বি খেলার সুযোগ পাননি তিনি। বাগান অনুশীলনে এদিন আলাদা করে গুরুত্ব দেওয়া হল আল আমনাকে। মাঝ মাঠে সিরিয়ান মিডফিল্ডারের গতিবিধি কমাতে না পারলে যে ইস্টবেঙ্গলকে আটকানো কঠিন তা ভালোই জানেন কোচ শঙ্করলাল। তাই আমনাকে মার্কিং-এর জন্য থাকছে আলাদা পরিকল্পনা।

সব মিলিয়ে রবিবারের ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়ে টানটান উত্তেজনায় দুই প্রধানই।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন