ইস্টবেঙ্গল-২(কাতসুমি,চার্লস)  চেন্নাই সিটি এফসি-১(রোমারিও)

কোয়েম্বাটুর: ফেডারেশনের শীর্ষকর্তাদের বলেও কোনো লাভ হয়নি। তাই খেলতে হল ইস্টবেঙ্গলকে। যাই হোক, তাতে অসুবিধা তেমন হয়নি। দল তিন পয়েন্ট পেয়েছে। চার্লস পুরোনো দলের বিরুদ্ধে গোল পেয়েছেন(ইস্টবেঙ্গলের হয়ে প্রথম)। সর্বোপরি কোনো ফুটবলার চোট পাননি।

যে মাঠে এদিন খেলা হল। তাকে খাটাল বললেও কম বলা হয়। প্রচুর গর্ত। অনেক জায়গাতেই ঘাস নেই। তাই খেলার আগেই বেঁকে বসেছিলেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। কিন্তু ফেডারেশন কর্তারা ভোলবার নয়। বালি ছড়িয়ে মাঠকে খেলার উপযুক্ত করার চেষ্টা করা হল। আর খেলোয়াড়দের চোটের ঝুঁকি নিয়ে সেখানেই খেলতে বাধ্য হল ইস্টবেঙ্গল। দুয়োরানি আই লিগের ফুটবলারদের নিয়ে ফেডারেশনের যে বিন্দুমাত্র মাথা ব্যথা নেই, তা প্রমাণিত হল।

যাই হোক, এসবের মধ্যেই ম্যাচের ২৭ মিনিটে আমনার পাস থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দিলেন কাতসুমি। পাঁচ মিনিট পরেই চেন্নাই ডিফেন্সের ভুলে গোল করলেন চার্লস। হাফ টাইমের আগে গোল করে ব্যবধান কমালেন রোমারিও।

ব্যস! তারপর আপর গোল হয়নি ম্যাচে। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে জোয়াকিমরা বারবার আক্রমণে ঝড় তুলেছিলেন লালহলুদ ডিফেন্সে। দু-একবার একটুর জন্য গোল মিসও হল। তবু মানতে হবে অর্ণব-এদুরা ভালোই খেলেছেন।

আরও একবার গোল হজমের দিনে খালিদকে স্বস্তি দেবে এই ব্যাপারটাই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here